দাউদের কবিতা ট্যাগের সব লেখা

নাচেন নইলে নাচান
গান শুনে যান, (বা)গান দেখে যান
যদি না, গেয়ে উঠে অন্তরের তানপুরা
বুঝবেন,
পাতা হয়নি কান, দৃষ্টির নিশানা !
অথবা,
তা – গান নয়, হয়তো কোন স্লো গান
এই সমাজে
পায়নি যে- তিল পরিমাণ স্থান!
যে বিদ্রোহী, দাবী তুলে জ্বলেনি দাবানলে
কান্তার নির্বাণে পুড়েছে সে নিজে;
দেখাতে যায়নি ক্ষত
নিভৃতে গলেছে অশ্রু, ডুবেছে, রক্তে, পড়ুন
কবিতা | | ৩ টি মন্তব্য | ৫৬ বার দেখা | ৯৯ শব্দ
তাল ভাঙ্গা তবলে
তাল ভাঙ্গা তবলে
মাতাল অরণ্য
তাল ভাঙ্গা তবলে বন্য নৃত্য
সদ্য রজঃলব্ধ তন্বী চৈতন্য- সমূলে তুলে আনে মৃগয়া স্বপন,
সুরতাড়িত নির্জর ঝর্ণা – উন্মত্ত
ছুটছে হ্রেষা চরণে- ধূর্ত নয়নে সুধার ক্ষুধা চিনে চিনে
প্রাণে মরমি ছন্দ-
জ্যোৎস্নার বনে ধ্রুপদী সংগীত- নবীন যৌবনের মন্দ্র ধ্বনি,
রজকিনী জানে চণ্ডীদাসের পড়ুন
কবিতা | | ৩ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১০৭৪ বার দেখা | ৮৮ শব্দ ১টি ছবি
বেসামাল ঘোর
যুদ্ধের মতো চূড়ান্ত- মৃত্যু নয়তো জীবন,
বিজয় অথবা পরাস্ত-
যে কোন একটি কে বলতে পারি ‘সিদ্ধান্ত’!
আদর্শগত সিদ্ধান্ত-
কিংবা সিদ্ধান্ত-গত আদর্শ!
আসলে ভুল, সঠিক বোঝার মত চেতনাহীনতাই
ঠেলে দিচ্ছে ধ্বংসের দিকে
এই যে ধ্বংস বুঝি-
এইটুকু বোধই আমাদের যে কাউকে নৃশংস বানাতে পারে,
ভোগ না বুঝলে যেভাবে আমরা বেঁচে যেতাম দুর্ভোগ থেকে,
সম্ভোগ পড়ুন
কবিতা | | ৫ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৯৭৮ বার দেখা | ৯৬ শব্দ
নিঃশ্বাসের সুবাস হতে দে
নিঃশ্বাসের সুবাস হতে দে
সাথে থাকতে দে, অবাধে
হাত হাত রাখতে দে
কাঁদতে দে আমাকে অশ্রু জলে ভিজতে দে
পুড়তে দে আমাকে, তোর আব্রুর চোখে ভাসতে দে
বুকের দরিয়ায় ডুবতে দে, উত্তাল তরঙ্গে মিশতে দে
বন্ধু, তোর দিলের মখমলে আমার দিলের আশ্রয় দে
অনলের উত্তাপে চাপা বুকের নিঃশ্বাস নিতে দে- ভালবাসার পড়ুন
কবিতা | | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১৭০ বার দেখা | ১২৭ শব্দ ১টি ছবি
পরমা উত্তাপ
পরমা উত্তাপ
তীর ভাঙ্গা আর্তনাদ শুনে
কস্তুরি প্রাচীর ঢেউর অভিমুখে মেলে ধরে বুক
কর্তৃত্ব রুখে দেয়ার মত-সে এক বিপ্লবী চেতনা
জলের শৃঙ্খলে হানা দেয়া এক অসীম তৃপ্তি, সুখ
অথচ; যতক্ষণ জল ততক্ষণ সমুদ্র
ততক্ষণই তার শিল্প-অস্তিত্ব!
কে না জানে- ভাঙনে পরিধি বাড়ে, কখনো দূরত্বও
ওপারেপলি মন্থনের পড়ুন
কবিতা | | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১৪২ বার দেখা | ৯০ শব্দ ১টি ছবি
নবীন সুর ও সংগীতে
নবীন সুর ও সংগীতে
ফিরে আসে প্রাচীন অতীত।
অন্তরে রঙ্গীন প্রভাবরি ভোর,
শহস্র রজনী কেটে গেছে নির্ঘূম
কাটেনি কেবল-
তোর স্বপ্নে বিভোর থাকা হৃদয়ের ঘোর। শঙ্খের চুম্বনে তুমুল শঙ্খ ধ্বনি,
সমুদ্র মন্থনে জেনে গেছি
তোমার সনে আগুনের গোপন প্রণয়!
জল চিনেছে অতল
পাকা অভিনয়ে দক্ষ তুমিও চিনেছ অনল। নবীন সুর ও সংগীতে পড়ুন
কবিতা | | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১৮০ বার দেখা | ৪৪ শব্দ ১টি ছবি
নিকট অতীত
নিকট অতীত
নাচতে, না নাচাতে?
এখনো তুমি ঘুঙুর পরো নিদ্রাচ্যুত রাতে।
তান পুরাতে ধূল জমেছে,
ভুল ছন্দে কেটে গেছে প্রহরের শেষ শশী;
ডুবতে, না ডুবাতে?
আঁচল বেঁধে নামছ বেকরাল স্রোতে।
এখনো শীত নিকট অতীত, ঘন আর্দ্রতা নিশ্বাসে
যদিও উৎসুক সূর্য উঁকি দেয় পূর্বাকাশে।
নদীও জানে
লালিমা ভাসা দর্পণে বিনা কারণে সকাল পড়ুন
কবিতা | | ৩ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১৮৭ বার দেখা | ৫৪ শব্দ ১টি ছবি
ডুব সাঁতার ও কাতর বেলা
ডুব সাঁতার ও কাতর বেলা
তখনো আমি সাঁতার শিখিনী। তাই বলে ভয় পেতাম না জলে। বুকে কলসি চেপে পা ছুড়ে ছুড়ে ঠিকই পার হতাম পুকুরের এপার। আমারো ইচ্ছে হতো সবার মত মরিচ মরিচ খেলি, এইটা কি মরিচ এক্কই ডুবে ধরিস
আমার ঠিকই ইচ্ছে হতো পড়ুন
কবিতা | | ৩ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ২৭১ বার দেখা | ১১২ শব্দ ১টি ছবি
শাশ্বত সুন্দরের মৃত্যু
কত কিছুই জানা হয় না, জানা যায় না।
কেন প্রতিদিনের সেই একি জানালায় ঝুলে থাকে
ভাঁজ করা চিবুক।
কেন, এক জন যুবক
অন্ধকার হাতড়ে হাতড়ে তুলে আনে নিত্যনতুন অসুখ!
কেন বিদীর্ণ ভাস্কর্যের চেয়ে ঢের ম্লান হয় মানুষের মুখ ।
কতটা নৃশংসতায় ক্ষান্ত হয় নপুংসক হায়েনা
জানা যায় না- তুষের অভ্যন্তরে কতটা পড়ুন
কবিতা | | ৫ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ২৪০ বার দেখা | ৬১ শব্দ
অযৌক্তিক
অযৌক্তিক
অল্পের জন্য বেঁচে যাই,
মরতেও পারতাম। যদিও মৃত্যুতে কোন মুক্তি নাই,
অযৌক্তিক
গল্পের ভেতরে ঢুকে পড়ি,
অন্যের হাত ধরে হই দীঘল পথের সহচরী!
সাথে নই, সাথী নই
কদমে কদমে এগোই তব তীর্থের প্রহরী।
ঘুমে- নির্ঘুমে
সওদা করি মন, জলের দামে!
নির্মম বালিয়াড়ির ঘূর্ণি মর্মে উড়ি বৃত্তের ভেতর
ঘুরি চক্র বৃদ্ধ পড়ুন
কবিতা | | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ২০৪ বার দেখা | ৭৮ শব্দ ১টি ছবি
খুঁজে দেখোনি
খুঁজে দেখোনি
খুঁজে দেখোনি
অথচ
আমি ছিলাম তোমারই কাজলা দীঘির জলে
যেখানে নিত্য আগুন জ্বেলে – নিজেকে পরখ করে দেখতাম-
দেখতাম জলের অতলে ধিকি ধিকি আগুন
কিছুটা ক্ষুধা, কিছুটা উদাম নি:শেষে
জীবন আমাকে বরণ করলোনা- মানুষের খোলসে পড়ুন
কবিতা | | ৩ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ২১০ বার দেখা | ৩০ শব্দ ১টি ছবি
অশ্রুত ধারা
অশ্রুত ধারা
পানি মানে ঘাম
পানি মানে রক্ত! উদাম বুকে
অশ্রুত ধারা
পানি মানে জলাবদ্ধ অসহায় দু:খরা
কিছু পানি গড়িয়ে পড়ার
কিছু তৃষ্ণা মেটাবার
কিছু পানি অপেক্ষায় থাকে
জন্ম জন্মান্তর
বাষ্প হয়ে উড়ার জন্য !
এরাই ফিরে আসে
আমাদের দীর্ঘশ্বাসে পুনরায় অশ্রুতে মিশে অশ্রুত ধারা // দাউদল ইসলাম পড়ুন
কবিতা | | ৩ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১৫৩ বার দেখা | ৩৬ শব্দ ১টি ছবি
আমি চাইছিলাম কবিতা আসুক আজ
আমি চাইছিলাম কবিতা আসুক আজ
আমি চাইছিলাম কবিতা আসুক আজ
ইলিশ গুটি বৃষ্টির মত নির্ঝর নরম পায়ে
চাইছিলাম দুর্মর আবেগে মিসমিস বুকে
শব্দের মিষ্টি ধারা নামুক পরম মধুর লয়ে। আমি চাইছিলাম অবনীতা ভিজুক আজ
শীতল জলের স্নিগ্ধা হয়ে কম্পন ধরুক গায়ে
নরম পঙ্কজলের প্রলেপ মেখে জাগাতাম উষ্ণতা
মমতার শঙ্খ চুম্বনে ভরে পড়ুন
কবিতা | | ৩ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৩৮১ বার দেখা | ৮৭ শব্দ ১টি ছবি
বিমোহ
বিমোহ
কোত্থেকে আসে পিপাসা
কোন আগুনে জাগে এত্তো তৃষা,
কিসের কারণে বিমনা চিত্ত
কোন দহনে জাগে উদ্রেক- বিবমিষা! কে তুমি বাজাও বাঁশি
শাল পিয়ালের বনে
কার জন্য সাজাও শশী
চন্দ্র মল্লিকার উদ্যানে পাখীর ডাকে
কেন ধুকপুক উঠে বুকে?
কেন জ্যোৎস্না হাসে
যখন বাতাসে ফিসফিসনি শব্দ ভাসে; লুব্ধ দৃষ্টিতে এতো কি ধার
ফুল্কির মত পড়ুন
কবিতা | | ৫ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ২৪০ বার দেখা | ৫৭ শব্দ ১টি ছবি
মঞ্জিলে তুমি ছিলে
মঞ্জিলে তুমি ছিলে
আমাকে আটকাতে পারেনি
আটকাতে পারেনি ঘিরে আসা ঝড়ো অন্ধকার
হাওয়ার উন্মাতাল,কিংবা বৃষ্টির তীক্ষ্ণ ধার!
যখন দিগ্বিদিক ছুটেছিলো গৃহপালিত পশুর পাল
যখন ঘরে ফেরার চটপট কৃষাণীর দু চোখ খুঁজে পায়নি তাল
আমি তখন পা বাড়ালাম
মাথায় তুলে নিলাম রাজ্যের মাতাল ভালোবাসা
ছুটে চললাম
ছুটে চললাম লক্ষ্যে-পাণে
কারণ; মঞ্জিলে তুমি ছিলে! পড়ুন
কবিতা | | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৩২২ বার দেখা | ১০৮ শব্দ ১টি ছবি