টিপু সুলতান-এর ব্লগ

টিপু সুলতান
লেখক নামঃ আদি সানম
১২ অক্টোবর ১৯৮৬
কেশবপুর, যশোর। বাংলাদেশ।

জীবন বৃত্তান্ত; লিকলিকে স্বচ্ছ ক্যানভাস
নদীর শরীরে উপচে পড়া
প্রেমালিকার ঢেউ, স্রোতস্বিনী কল্লোলঃ
প্রথম বার্তা,সবুজ আফ্রোদি উদ্দ্যানে
গানের বাঁশিতে সংগীত শোনায়-
লেবুগাছ ঘ্রাণ-আলাজ শরবত
আমার পূর্ণানন্দ, নক্ষত্র-পৃথিবীপৃষ্ঠ হৃদয়বীণা
রোদে পোড়া সখিনার রক্ত,শাদা দুধের মা;
কালোত্তীর্ণ সন্তান আমি তাঁর
শেষ অনন্দটুকুর ছায়ানট-
মানুষ হয়ে ওঠা প্রবাদ ও সংলাপ।

★ প্রথম কাব্যগ্রন্থঃ গৃহ কারাগার।২০১৭ ইং।
নৃ প্রকাশন,ঢাকা। প্রচ্ছদঃ কাব্য কারিম।
★ যৌথ কাব্যগ্রন্থ থেকে
জাতীয় ম্যাগাজিন,লিটল ম্যাগ, পোর্টাল,
জাতীয় পত্রিকাসহ বিভিন্ন ব্লগে টুকিটাক লেখালেখি।

প্রিয় বাক্যঃ আমি ভালো আছি, তুমি…

আশা
আশা
একটা আহত চাঁদ, মেঘের আড়ালে
শুয়ে আছে। শুয়ে আছে
গিন্নি রাত আর অযথা
খোঁচাচ্ছে দীর্ঘ অবসর
বিরান জানালার ধারেকাছে
সবচেয়ে এক নীরব মানুষ
এত অমিল আশায় ঝিমোচ্ছে
সময় পালাচ্ছে তার স্বপ্নের মধ্যে; একটু হাসতে পারলে হয়তো
সমুদ্র আর শাদা ঢেউগুলোর
মধুরেণু শব্দে পেলব আকাশ
নিয়ে হামাগুড়ি দিত, পৃথিবী-
বিশ্বাস আর নিরাপদ জমিন
ম্যানগ্রোভ পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | ৩৫ বার দেখা | ৪৬ শব্দ ১টি ছবি
প্রতিবেশী
প্রতিবেশী
আষাঢ়ের দুপুর আর শাদা কবুতরগুলো
এক হয়ে সুদীর্ঘ সবুজক্ষেতের পাশে
আহত সাঁওতাল নগরী, গ্রামের ওধারে-
অসম তরঙ্গ নিয়ে আসে রেইনট্রির ট্রিপল
-ছায়া। উড়ে আসে বিকেল
নিমেরডালে হলুদ বিলুরুবিন রং
একপ্রস্ত হতে চাঁদ এসে থামে,
আস্ত ব্রীজের নিচে বহুদিনের পুরনো সন্ধ্যা- এ সবের ভেতরে হেঁটে যায় সেফটিপিনের
আলো-ইবাদত। মূলত ঝাঁঝালো পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | ২৭ বার দেখা | ৫৯ শব্দ ১টি ছবি
সমুদ্র মুখ
কোনো এক দূর সমুদ্রের বাতাসে
এসেছিল আষাঢ়ের সকালবেলা
বৃষ্টির জলভাসি থেকে-মেঘ
পাখির শরীরে নিদারুণ তাপ
ভিজাচ্ছিল ডানা-অতীতের উল্লাসে- আর পাতার শব্দের সাথে-
আম্মার হাঁসগুলো উঠানে এসে
সঘন সাদাটে জলমঞ্চ
ঢালু হয়ে গড়িয়ে যায়-
সমুদ্র আলাপে-একটা বর্ষায়
এমন বৃষ্টির দিনে। গানে ভাসা-মুখ
বুনোগন্ধের শরীর, এলাচ বনে! পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | ৩১ বার দেখা | ৩৪ শব্দ
শিল্পিত খোয়াবনামা
প্রতিদিন চক্রনাভি ছিঁড়ে বেরোচ্ছে
-বিদগ্ধ নগরে, গাঢ় শাদা রাজহংস
ধূসর পালকে হাওয়া জুড়ে ছোটে
উত্থাপিত রুপোলী মুখ বহুবার এসে
যেভাবে চোখের ওপরে ইশারা পড়ে হরিণ ক্ষুরো লম্ফঝাঁপে বেড়ে ওঠা পা
ফড়িং অথবা ফুলের রেণুমাখা বীজ-
এই সাঁতারু বৃক্ষ বটগাছের নিচে-
তরুণ শব্দের শিল্পিত খোয়াবনামা
লেখা ছিল সৌন্দর্য ভালবাসি। পৃষ্ঠা থেকে-
ঊর্ধ্বমুখি ছায়া আঁকানো প্রিয় পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | ৫৯ বার দেখা | ৪৬ শব্দ
হরফ কুড়ানো গল্প
এ শহরে ধানশিশুর মতো হামাগুড়ি দেয়
আমার প্রথম দেখা শিকারি এজ্রাসে
জলের কল্লোল, বৃষ্টির দিনে-কবুতর
আকাশ নিয়ে খেলতে গিয়ে একটা পর্ব
শেষ না হতে আরেকটা শব্দসংখ্যায়
অভিভাবকের মতো হুদাই শৈশব টানে
দূর মফস্বল কিংবা হাট-বাজার আরও
সন্ধ্যার নাভি ছেঁড়া অন্ধকারে-একপাল
জোনাকিপোকার সাম্পানে ঘণীভূত রূপ
ব্রীজের নিচে শুঁকনো মাটির মৌসুম
মৃদু হরফ কুড়ানো গল্প নিয়ে পড়ুন
কবিতা | ৩ টি মন্তব্য | ৪০ বার দেখা | ৬৪ শব্দ
বিলম্বিত রূপ
এই বৃষ্টির দিনে বারান্দা হাসছে খুব
শহরের ভেতরে; নির্ঘুম সন্ধ্যায়-
প্রতারণাহীন কর্পূর মেশানো
কী একটা ঠাণ্ডা সবুজ ট্রেন ধরে
মানুষের স্বভাবে ভিজছে শুঁকনো ডালে চাঁদ, বনের ওধারে
আদুরি অন্ধকার, স্নানে ওঠানামা
করে তেরো নদীর জল, মেঘাচ্ছন্ন-
পাহাড়ে দুরু কবিতার বিলম্বিত রূপ
এমন কিছু বুঁদ হয়ে যায়। ধমনীর-
নরকে-সুন্দরময়ী গোপন আনন্দ
কেবল তুমিহীন কাঠগড়া এখানে
ধেয়ে আসে পড়ুন
কবিতা | ৩ টি মন্তব্য | ৪২ বার দেখা | ৫০ শব্দ
স্বপ্ন
বিলম্বিত ঠাণ্ডা কফির ধোঁয়া-সিঁদুরের মতো
স্রোত ধরে কী যে মহুয়া ঠোঁটের উপত্যকায়-
আশ্রিত স্বপ্ন ভাসে। ঘনশীল সবুজ পাতার
সন্ধ্যায়-বেঁচে থাকা কল্পনার নিঃশ্বাসে
তুমি পালানো-হরিণ, মাংসাশী বাতাস-
এক সঙীন জীবন নিয়ে ছুটছে। ঘরানার শহরে-
কেবল লুডুর গুটির মতো-অলীকবন,
গল্পের নিচে-কাপহীন পিরিচের শব্দ,
ঋষিঋদ্ধ সবুজ সমুদ্রে আশাবাদী মানুষ,
জিততেই হবে। এমন তো শিকারি মুহূর্ত
তোমাকে কেন্দ্র পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | ৫৩ বার দেখা | ৭৯ শব্দ
জেদি মুখ
বাজারের প্যাকেটে বয়ে নিচ্ছে রাত্রিগুলোর ঝিঁঝিঁ ডাক-
চকচকে নিপুণ আঙ্গুলের স্পর্শ বসানো জেদি মুখ
মুখরিত আর গোলার্ধ চোখ এবং সাংসারিক ঝগড়ার
গভীরে শস্যক্ষেত; মৃত্যুর আগে-পথ, তোমার এই
অলীকবনে কতবার নেমেছে প্রেমিকার নার্সিং ছায়া,
জানবার ছিল। কত গাছপাতার শিস খসায়ে নিজের
ডাকনামে বিকেল বলে সন্ধ্যার সঙ্গীন ঘড়িকাঁটায়
পেরোয়ে গেছে রাতভর আলাপ, আচ্ছা, পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | ৪৭ বার দেখা | ৫৫ শব্দ
একান্ত ভ্রমণ
আমার গন্তব্য যখন তোমার দিকে
তুমি দৃষ্টিসীমার মধ্যে চলে এসেছ
একান্ত ভ্রমণে-গ্রহণযোগ্য বলে কিছু
গ্রাম্য গাছপাতার মতো ঘনশীল
বাতাসে লাগামহীন দীর্ঘ করতালি-
আর এতিম প্রেমিকার প্রযত্ন রূপ
এই স্বপ্নতাড়িত দরকারি সৌন্দর্য
আজকাল মৌন আঙ্গুলও টের পায় কীভাবে যন্ত্রণা লিখতে হয়, চুপচাপ-
উচ্চারণহীন ইশারা দিয়ে কেবল
বিষাক্ত সাক্ষী না রেখে বলা যায়
সেদিন খুব জ্বর এসেছিল। পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৮০ বার দেখা | ৫৫ শব্দ
শোভাযাত্রা
তোমার যাত্রা, এইসব প্রস্তর পথে-লোহার সুক্ষ্মতম
শব্দ, ছুটন্ত রাত-নির্মিত শরীরের ভেতরে পালিয়ে
বেড়ানো মুখটেপা হাসি চেপে মশলার ঘ্রাণের মতো
একটা দারুণ মুখাবয়ব লাবণ্য ধরে দরদ বুনে যাও
এখানে প্রচুর লুটোপুটির বান্ধবহীন গল্প, এতগুলো
পিছুটান আর তাঁবুর নিচে রূপসী সংসার, এমনিতর
সুন্দর আবগাহন করে যাচ্ছ, সিনা আর হাড়ে বেঁধে;
এই বিশাল শোভাযাত্রা-শেষতকও পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৬৩ বার দেখা | ৪৬ শব্দ
অনেক কথা
কবে পাব, সেই দিনটা সঠিক দাও
বারান্দায় বসে এমন বিষণ্ণ সন্ধ্যায়-
পরাপার ভাবছি। প্রলয়মঞ্চে একবার
সংগীতের সুর শুনে বুঝেছিলাম
বৃষ্টির সরোবরে দারুণ এক ফিল্মসের
অস্থির স্ক্রিপ্ট দৌড়াচ্ছে
শান্ত মেঘে টাটকা রাত্রির নাড়িকাঁটা
নাভিতে জ্যোৎস্নার মুদ্রানাচ আর
জামদানি কাপড়ে গোছানো নগর,
মফস্বল গ্রাম-এই সব ভোরের শুক্রবার
আরও ছিল ঘড়িকাঁটার সময়-
এই সাঁতারে প্রতারিত হতে চাই পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৪৯ বার দেখা | ৪৯ শব্দ
বিংশ শতাব্দীর কবি, নজরুল
বিংশ শতাব্দীর কবি, নজরুল
বিংশ শতাব্দীর কবি, নজরুল। মানুষের মুক্তির অভিভাবক। সামন্তবাদের সংকীর্ণতা, অন্ধকারচ্ছন্নতা, দুষ্টবুদ্ধিসম্পন্ন বেষ্টনী ভেঙে বের হয়ে এসেছেন। তাঁর পারঙ্গমতা বোধের অন্তরায়ে শ্রেণি সংগ্রামের কথা বলেছেন। বাংলা সাহিত্যের উৎসব আবহে শিশুদের শৈশবজুড়ে শত পল্লবী শোভা ছড়াচ্ছে। এ সত্য অমলিন। কবি লিখেছেন- – গাহি পড়ুন
ব্যক্তিত্ব | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৮৫ বার দেখা | ৮০ শব্দ ১টি ছবি
অংশ
হাঁসডানার মতো এই যে লম্বা অবসর, রজঃস্বলা
নগরে-উদ্যত এক হৃদয়ে ফেরে আবার প্রত্যন্ত স্বপ্ন
ওই দেখা মাস্টার হাসি,আতঙ্ক; একটু টোকা দেয়-
তোমার নদীপ্রপাত সরাইখানার শিল্পকণা পেঁচিয়ে
ঢাকার দুপুরবেলা আর একাকিনী জলছাপ শাড়ির
মিশকালো পাড় অবতরণ করে, বিস্তীর্ণ নিঃশ্বাস-
এবং সেলাই কলের নিচে সন্ধ্যার স্নিগ্ধ বৃষ্টি শাসিয়ে
সেঁকা রুটির গন্ধ, ভিন্ন বাতাস পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৬৯ বার দেখা | ৫৮ শব্দ
বিশেষ সন্ধ্যা
পুরনো কথা, প্রসাধনীর মতো অদ্ভুত সুগন্ধ পাখির ঠোঁটে
ঝুলে যাওয়া সন্ধ্যায়-খুব বিঘ্নিত সুন্দরে বিশেষ বাণিজ্য
নিয়ে এসো-প্রতারিত হবার আগে- এবার লবঙ্গফুলের
আব্রুঘেরা জ্যোৎস্নার নিচে হৃদবেষ্টিত ঝুড়িভর্তি আপেল
একটা কবিতা-আর নকশী কাঁথায় জড়ানো শিশুর মতো
স্রষ্টা হাসি, খুব প্রাধান্য পাবে। তুমি এলে-মে মাসের বৃষ্টি,
নিহত হরিণের বনে হাবিলদার বাতাস প্রায় সীমাহীন পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৮৪ বার দেখা | ৪৪ শব্দ
বন্ধু
এই নগরে অনেক বন্ধু রয়েছে আমার
বিশাল বটগাছের মতো;
ডাকপোস্ট খুলে কোরাস গানের নামে
নিবিড় নিসর্গ এক কোমলতা ঠেকিয়ে
সন্ধ্যার নীল জ্যোৎস্নাময়ী সিঁথি ধরে
হরিণছুটির মতো হৈহোট্ট করে, এদিক
ওদিকের শহর তখন জিরোয়, সটানে- আর আমাদের জিহবায় খুন হয়ে যায়
কমলালেবুর মতো মাঝবয়েসী হাসি
এবং মিথের গহিন থেকে লাফ দেয়
খরগোশ বাচ্চার সমেত দ্বিতীয় পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ২২৫ বার দেখা | ৬৩ শব্দ