সৌমিত্র চক্রবর্তী-এর ব্লগ
নিজকিয়া ৩৬
দেহজ শব্দেরা তিলতিল গড়ে তোলে রুক্ষ অবয়ব
স্তন উপত্যকায় মোহর লাগানো তিল তীক্ষ্ণ রোদ্দুরে বাদামী হলে
হাঁটুর নীচে নেমে আসে স্তব্ধবাক যোনি
কালাহারি ছেয়ে যায় ঠোঁটের উপোসী বৃত্তান্ত
দহন মাঝ আকাশে পৌঁছলে পড়ে থাকে রেত ঢেউয়ে
নিরাহারী যাযাবরী নিঃসঙ্গ কঙ্কাল। পড়ুন
কবিতা | ৩ টি মন্তব্য | ৪০ বার দেখা | ৩৫ শব্দ
নিজকিয়া ৪২
নিজকিয়া ৪২
অভিমান পেতে রাখি
বুক থেকে বুকে
ক্ষণিক সুখের শেষে
জানু পাতি
দেহ পাতি
অক্ষরে পেতে রাখি
প্রাচীন পিরামিড
মাটির গর্ভে পাতি
দুঃখের ছায়া
জড়ানো দুঃখ পাতি
মমির আদলে
ডুব পাতি
হাঁস পাতি
জল পাতি জলে
স্তব্ধ অতলে
সুখদ সময় শেষে
সূর্যাস্ত ছ্বটায়
মন পাতি
ব্রহ্মাণ্ড জুড়ে পড়ুন
কবিতা | ৩ টি মন্তব্য | ৪৪ বার দেখা | ২৮ শব্দ ১টি ছবি
নিজকিয়া ৩৭
নিজকিয়া ৩৭
এ নষ্ট জীবন আমার
এ বরাভয়
দেহজ সংলাপ আঁকে
সমুদ্র গভীরে
ডুবে যাওয়া জাহাজীয়া কঙ্কাল,
শ্যাওলার প্রেত
দু হাতে জড়িয়ে কাঁদে
অবিরাম, ‘যেতে নাহি দিব’ ;
তবু যেতে হয়। পড়ুন
কবিতা | ৩ টি মন্তব্য | ৯৬ বার দেখা | ২১ শব্দ ১টি ছবি
গোলোকধাঁধা
গোলোকধাঁধা
বেশ ছিলো, ক্ষেপে গেল
গোলোকেশ গোলদার
এই শীতে চাই তার
মালকোষ মালদার। তাই শুনে শোরগোল
পড়ে গেল শহরে,
কেউ কি শুনেছে এ
কর্ণের কুহরে? মালদার মালকোষ
সেটা কি যে বস্তু!
ভাষাটা কি ইংলিশ
তেলেগু না পুস্তু? খায়? নাকি মেখে নেয়
খড়ি ওঠা শীত গায়?
অভিধান ফেল করে
বোঝো একি হলো দায়! মালদার বিখ্যাত
ল্যাংড়া বা ফজলি,
বেশি পড়ুন
কবিতা | ৩ টি মন্তব্য | ৯২ বার দেখা | ১৩৮ শব্দ ১টি ছবি
দাড়ি দ্রিম দ্রিম
দাড়ি দ্রিম দ্রিম
কোনো দাড়ি খোঁচা খোঁচা
কোনো দাড়ি লম্বা
কোনো দাড়ি কুচিপুডি
কোনো দাড়ি সাম্বা।
কোনো দাড়ি সাদা কালো
সরষের বাহারে
কোনো দাড়ি ঘষে দিলে
লোকে বলে বাবা রে! কোনো দাড়ি পলিটিক্স
কোনো দাড়ি গুণ্ডা
কোনো দাড়ি টুকটাক
থুতনির ফান্ডা।
কোনো দাড়ি নূর আর
কোনো দাড়ি চাইনিজ
কোনো দাড়ি মেছো বাস
ফ্রেঞ্চকাট গোয়ানিজ। কোনো দাড়ি ঘেমো ছি
কোনো দাড়ি পড়ুন
ছড়া ও পদ্য | ৪ টি মন্তব্য | ৪৩ বার দেখা | ৮৭ শব্দ ১টি ছবি
মৃত্যু
মৃত্যু
যতই অস্বীকার করি
মৃত্যু ওঁত পেতে থাকে
শাখায় প্রশাখায়
নিবিড় আমাজনে চিতার
নিঃশব্দ থাবায়। যতই ভেবে নিই
মৃত্যুর কথা ভেবে হাতে গোনা
সময় হারাব না আর
তবুও সে আসে চুপিসারে
স্বপ্নের গ্রীলঘেরা আধো অন্ধকারে। কতবার মৃত্যুকে হারিয়েছি
সরাসরি দ্বন্দ্বযুদ্ধে
কতবার তাকে মেরেছি অমোঘ
তরবারির দ্রুততম আঘাতে
আশ্চর্য রক্তবীজ ফের বেঁচে যায়। প্রত্যেক জরায়ু নিষিক্তকরণে
মৃত্যু বাসা পড়ুন
কবিতা | ৩ টি মন্তব্য | ১৪৯ বার দেখা | ৪৭ শব্দ ১টি ছবি
কিং লিয়রের সঙ্গীরা
যে কবিতারা হারিয়ে যায়
স্বতই কুম্ভমেলায় কিম্বা নিছক
গ্রামীণ মেলার ভীড়ে,
যে সব ভূমিষ্ঠ না হওয়া গল্প
স্বপ্নের নীল তালুকের সীমানা পার
হতে পারে নি কোনো প্রজন্মে,
যে সব গান শুদ্ধ সত্ব তম রজ
সরগমের সাদা যাদুকাঠির
ইশারায় বন্দী থেকে যায়,
আজ সবাই এক সঙ্গে ঢুকে গেল
বৈদ্যুতিক চুল্লীর এগার হাজারী
মনসবদারী ব্ল্যাকহোলে।
আজ কিং লিয়র পড়ুন
কবিতা | ৩ টি মন্তব্য | ৪০ বার দেখা | ৪৭ শব্দ
যা নিবি নে
যা নিবি নে
আমার বুকের বালি নিবি
ধূ ধূ মারীচ চর?
জল-ভাঙা রঙ কোপাই নিবি
আকুল অবসর! একলা আমার একতারা সুর
একলা ধোঁয়ার সন্ধে,
নিবি আমার হারানো দিন
ব্যাকুল কিশোরবন্ধে! টুপটুপিয়ে জল চোয়ানো
বিকল কলের ভ্রান্তি,
নিবি আমার পায়রাপোড়া
সফেদ রঙা শান্তি? যা কিছু হোক দস্তানাতে
সবই দিতে রাজী –
চাইলে নোনা বুককুঠরী
রাখতে পারিস বাজী। আমার বুকের বালি পড়ুন
কবিতা | ৩ টি মন্তব্য | ৩৯ বার দেখা | ৪৬ শব্দ ১টি ছবি
টাকা ফাঁকা
টাকা ফাঁকা
যদি টাকা না থাকে –
কিসের দুর্গাপুজো!
কিসের ঈদ!
কিসের ক্রিসমাস!
যদি টাকা না থাকে যদি টাকা না থাকে –
দুরন্ত হালফ্যাশন কাঁচকলা দেখায়,
বিরিয়ানির নামে ফুটপাতের হলুদ ভাতও অন্ততঃ ষাট,
পাঁচ মুদ্রার নেলপালিশ শ্রেফ মুদ্রাদোষ;
যদি টাকা না থাকে যদি টাকা না থাকে –
ঝাঁপিয়ে বুকে পড়ার ন্যাকামি পড়ুন
কবিতা | ৩ টি মন্তব্য | ৫০ বার দেখা | ৭৭ শব্দ ১টি ছবি
কুকুরালি
– কেমন আছো নিস্পলক রেখায়? ভালো আছো?
– আছি। ভালো কিম্বা মন্দ বিচার এখন অশ্বত্থামা কান্ডের আদল পেয়েছে।
– এত বিষাদ কেন পারমিতা! সবে তো সকাল তরুনী!
– বৃষ্টি শুরু হলে সকাল বৃদ্ধা হয়, এমনকি বিদ্যুৎ চমকও অমিল।
– শহরের চৌমাথা ঘিরে, মফস্বলী গলিপথ জুড়ে আহত কুকুরের কান্না।
পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | ৪৩ বার দেখা | ৮৪ শব্দ
নিজকিয়া ৩
নিজকিয়া ৩
প্রথম চুমুর জন্যে কি ঘুরেছিলাম বলো
তখন দুজনেই কত বোকা ছিলাম!
একটু ছায়া খুঁজে পামির থেকে ফাইন আর্টস
একটু আদরে বুকে মাথা রাখতে
কেনিয়ান সাভানায় সিংহের গুহায়
চুকিতকিত খেলার সত্যিমিথ্যে শৃঙ্গার!
আজ কতদিন আসোনি বলো তো!
আমি কিন্তু গুনে রেখেছি মাস সেকেন্ড বছর
রোজ আমার শ্যাওলাধরা দেওয়ালে
দাগ কেটেছি পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | ৩৮ বার দেখা | ৫৭ শব্দ ১টি ছবি
নিজকিয়া ৪৩
নিজকিয়া ৪৩
লেখা কেন!
কেন ভালোবাসা !
একরাশ প্রশ্নের মাঝে
একাই পালায় চোখ
কাশবনে ট্রেনের লোভে!
#
অজস্র স্তাবক
বস্তাপচা প্রেম,
তাহলে
কাজলটানা রাতে
একলা জানলা কেন
একমনে নিশি ডাকে!
#
খিল্লিবাজ হাসি
ব্র্যান্ডেড পরমানু কথা
পুচি পুচি কবিতার ঝুন্ড্
অথবা নালায়েক শব্দ,
অতৃপ্ত যোনিময়তা বা
তারাদের গল্প কে যে শোনায়!
#
নিজের ভেতরে ডুব দিলে
এক বৃষ্টিময় সকালে
আধোস্বর ডাকবেই
– মা, দরজা খোলো!
#
বিস্মৃত পড়ুন
কবিতা | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৯৯ বার দেখা | ৫০ শব্দ ১টি ছবি
তবু ছুঁয়ে আছি
তবু ছুঁয়ে আছি
কথা শুরু হলে অনেক কথাই বলে ফেলি
ভালো কিম্বা ভালো নয়
সবকিছুই সময়ের গায়ে হেলান দিয়ে দাঁড়িয়ে। বাড়ি ফিরেছ এখন? আজকাল বড় চিন্তায়
থাকি, দিনকাল ভালো নয়,
গলির অন্ধকার মাঝেমধ্যে হাত বাড়ায়
একলাহুতুম ভয়ের বাসাগুলোতে
লাল চোখের হুমকি চোখ বুজলেও দেখতে পাই। তোমার চুল সেসময় ওড়ে আজব হুতাশী পড়ুন
কবিতা | ৬ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৩১৭ বার দেখা | ১৫১ শব্দ ১টি ছবি
শীতসন্ধ্যে ও একপাত্তর ভোদকা
শীতসন্ধ্যে ও একপাত্তর ভোদকা
এই কনকনে পাথরের দেশে, যেখানে আসার আগেই পালাও নৃশংস ভয়ে, ঝুপ করে সন্ধ্যে লাফালেই অশরীরী হাতে রামগরুরের বাপ ট্রে হাতে সামনে দাঁড়ায়। ভোদকার গ্লাসে সাঁতার কাটে চেরা লঙ্কা, এককুচি পাতিলেবু আর তোমার মেহেন্দীরঙ ঠোঁট। ভোদকার গল্পে মিশে থাকে তোমার স্পেশাল রসগোল্লা পড়ুন
জীবন | ৫ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৩৫৮ বার দেখা | ২২৬ শব্দ ১টি ছবি
জলবিহার
জলবিহার
জলীয় নীলচে কথা উঠলেই ঘুম তাড়া করে নিষাদবেলা
জলের হাতে পায়ে কালাসনিকভের হুমকি
আয়নার ভেতর থেকে বেরিয়ে আসে ফেরেস্তাদের ছায়া
বিষাদগ্রস্ত ভাঙাচোরা অমেরুদণ্ডী
হওয়া না হওয়ার মধ্যবর্তী নোম্যানসল্যান্ডে পরে থাকে
আমারই ঘুমন্ত শবদেহ, চারপাশে জলজ উচ্ছ্বাস।
জল ছুঁতে ইচ্ছে করে বিকেল হলেই
জলার্ক শরীর আর খুফিয়া মন পড়ুন
কবিতা | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৪১৩ বার দেখা | ৫৯ শব্দ ১টি ছবি