সৌমিত্র চক্রবর্তী-এর ব্লগ
নিজকিয়া ৫৬
নিজকিয়া ৫৬
মায়াতে বসত করি
মায়াজল মায়ারোদ
মেখে নিই গায়ে
বর্ণমালা উদ্বেলিত হলে
সুখস্মৃতি মাথায় জড়াই,
প্রার্থনায় কর্ষিত হয়
দিনের প্রান্তে রাখা
অলস অবকাশ
পাপড়ির কিনারায় লাগে
বিগত ফুলের সঞ্চিত
প্রাচীন সুগন্ধ। পড়ুন
কবিতা | ৩ টি মন্তব্য | ১০৭ বার দেখা | ২০ শব্দ ১টি ছবি
যুদ্ধ
যুদ্ধ
জানি কিছু ভালো আছে মাত্রই
আলোকবর্ষ দূরে
আমাদের কালো আছে
আমাদের আলো আছে
আমরা তো শোক রাখি
মর্গ নিথরে।
কিছু যুদ্ধ জেতা যায়
বাকি যুদ্ধ হারি
বীরগাথা লিখে রাখি
তুলোট কাগজে
কিছু রক্ত
কিছু ঘাম
সময় যন্ত্রে কিছু
নক্সা বিশ্রাম
পশ্চাদপসরণেও থাকে
অন্ত যুদ্ধ জারি। পড়ুন
কবিতা | ৪ টি মন্তব্য | ১৩৩ বার দেখা | ৩০ শব্দ ১টি ছবি
নিজকিয়া ৪৪
কোনো শুরু ছিল না, তাই শেষও হয় নি
বিকার ছিল না, তাই নির্বিকার হওয়ার প্রশ্নও তোলেনি কেউ;
নিশ্ছিদ্র অন্ধকার কিম্বা ফুটফুটে আলো
মেরুর বরফজ্বলন শেষে ছিল না কোথাও,
এক অলীক ব্রহ্মের রূপক ঘিরে রেখেছিল আব্রহ্মস্তম্ব;
ছিল শুধু সুখ আর শোকের কল্পিত মন্ড। পড়ুন
কবিতা | ৫ টি মন্তব্য | ৮৯ বার দেখা | ৩৭ শব্দ
শত্রু মিত্র
আমার কোনো ঘোষিত শত্রু নেই।
অঘোষিত শত্রুদের দিয়েছি কবচকুন্ডল
সাতমারী বিলের নিঃশর্ত ইজারা
দাতব্য চিকিৎসালয়।
অজান্তে গল্পের মাঝবয়সিনী লম্বা রেখায়
বন্ধুরা উঠে চলে গেছে ঘরজোড়া ফরাশে
হুইস্কি আর পোড়া সিগারেটের ছাই ফেলে।
চিলেকোঠায় প্রাচীন তোরঙ্গ খুলে
নাবাল ভালোলাগার চিহ্ন ঘেঁটে দেখি
অসময়ের বিকেলে চুরি হয়ে গেছে আমার মৃত্যুবাণ। পড়ুন
কবিতা | ৫ টি মন্তব্য | ৭৪ বার দেখা | ৩৯ শব্দ
মেমসাহেবা ৩৯
মেমসাহেবা ৩৯
কথা শুরু হলে অনেক কথাই বলে ফেলি
ভালো কিম্বা ভালো নয়
সবকিছুই সময়ের গায়ে হেলান দিয়ে দাঁড়িয়ে। বাড়ি ফিরেছ এখন? আজকাল বড় চিন্তায়
থাকি, দিনকাল ভালো নয়,
গলির অন্ধকার মাঝেমধ্যে হাত বাড়ায়
একলাহুতুম ভয়ের বাসাগুলোতে
লাল চোখের হুমকি চোখ বুজলেও দেখতে পাই। তোমার চুল সেসময় ওড়ে আজব হুতাশী পড়ুন
কবিতা | ৪ টি মন্তব্য | ৭৬ বার দেখা | ১৫১ শব্দ ১টি ছবি
আমি আমরা এবং আমাদের মুখোশ
আমি আমরা এবং আমাদের মুখোশ
দুর্গাপুজোতে ঈদে নতুন জামা পড়ি, বড়দিনে কেক কাটি, সরস্বতী পুজোয় আর ভ্যালেন্টাইন দিনে নিয়ম মেনে প্রেম করি, একুশে ফেব্রুয়ারী এলেই বাংলাভাষী হয়ে যাই। সারাটাবছর আমরা, শহুরে বা স্বচ্ছল গ্রামীনেরা ছেলেমেয়েদের সাহেব মেম বানাতে চাওয়ার চেষ্টায় প্রাণপাত করি। ‘বাংলা মাধ্যম শিক্ষায়তনকে আমাদের পড়ুন
জীবন | ৪ টি মন্তব্য | ১৩০ বার দেখা | ২২৮ শব্দ ১টি ছবি
নিজকিয়া ৪১
নিজকিয়া ৪১
যাকে মেঘ ভেবে স্যালুট করেছ আসলে সেটা যে তিতিরপালক
বুঝতে বুঝতে নবীন বালক নদীর দুপাশে দু আধখানায় পাক দিয়ে ওড়ে,
দু পাশে দুই চিত্রপটুয়া গভীর আবেশে চিতা এঁকে যায় সন্তর্পনে
একান্ত মনে সাদা নীল ধোঁয়া সেলাই করে কল্মিগন্ধা নক্সীকাঁথা
মেঘ থেকে নদী, নদী থেকে পড়ুন
কবিতা | ৫ টি মন্তব্য | ৮৪ বার দেখা | ৫৩ শব্দ ১টি ছবি
আসা যাওয়া
আসা যাওয়া
এইতো আসছি, বল্লেই
সরকার তার সেরা গাড়ী হাজির করে দোরগোড়ায়,
এই তো, রেডি স্টেডিমুখ থেকে
খসাতে না খসাতেই এক্সপ্রেসওয়ে
তুড়ুক লাফে সেজেগুজে গতজন্মের
পিনভাঙা গ্রামোফোন হয়ে একটানা
বলে যায় গোগোগো
আমিও যাই, আগে পেছনে দৌড়ায়
আমার এসকর্ট অ্যাসফল্টের সাদা বর্ডার।
নেচেগেয়ে হেসেকুদে জার্নির একানব্বই শতাংশ
জমজমাট বাঁধিয়ে দিতে দিতেই এগোয়
দুপাশের পড়ুন
কবিতা | ৪ টি মন্তব্য | ৭৪ বার দেখা | ১১৬ শব্দ ১টি ছবি
মেমসাহেবা - চার
মেমসাহেবা - চার
একঘন্টা বকমবকম করার পরে আজও
আসল কথাটাই বলা হলো না,
ফোন তুললেই তুই এমন
পাহাড়ি ঝোরা হয়ে যাস!
আর আমি ভাসতে ভাসতে
সাঁঝবিহানের কল্পমানুষ হই। চার চারটে বছর মেশিন হয়েই
কাটিয়ে দিলাম এপাড়া ওপাড়া,
কলেজের পড়ার রক্তচাপ বাড়ছে যতই
ততই ইচ্ছে করছে এই সব
চারদিকে ছড়ানো ছেটানো
বই খাতা পেন পড়ুন
কবিতা | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৮২ বার দেখা | ১৩৪ শব্দ ১টি ছবি
অভিনয় শেষে
একদিন যেভাবেই হোক ফুরোয় আবিষ্ট সকাল, একদিন
দুপুরেরও ত্বকে পড়ে টান অমোঘ নিত্যতায়,
শুধু ওই এককোনে এককুচি পর্ণমোচী আশা
জেগে থাকে আবারও মিঠাস ভোরের একফোঁটা
শান্ত ভদ্রবাস শিশিরমায়ায় নিরলস।
এভাবেই একদিন পর্দা পড়ে চব্বিশ ইনটু সাত রঙ্গমঞ্চে,
একে একে জনশূন্য অডিটোরিয়ামে নিভে আসে আলো,
পাখারা হাঁপিয়ে উঠে বন্ধ করে বৃত্তাকার পাক,
শুধু পড়ুন
কবিতা | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৯৭ বার দেখা | ৮১ শব্দ
নিজকিয়া ৪০
একদিন আমিও ঘুমাব
নিঃসার নিঃঝুম নিঃশর্ত অঙ্গীকার
বুকের প্রান্ত থেকে নিংড়ে
জল টুপটুপ শেষ ভাদ্রের ঝিঁঝিঁ
আর শিকার সন্ধানী গোখরোর
কিলবিল বুকছাপ মুছে,
ঘুমাব নির্মোক আনন্দে
ধূপ আর আতরের তীব্র মেহকিয়া
নির্যাস ছড়িয়ে বাঁশের খাঁচায় :
আর উঠবো না । পড়ুন
কবিতা | ৭ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ২২৫ বার দেখা | ৩১ শব্দ
নিজকিয়া ৫৭
নিজকিয়া ৫৭
যতই দিন গড়িয়ে চলেছে, আরও বেশী
মজে যাচ্ছি নদীর গোল্লাছুট গতিময়তায়
নদীও হাঁটে আমিও হাঁটি
হঠাৎ গভীর খাদ হাঁ মুখ মেলে ধরলে
নদীও পড়ে, আমিও পড়ি;
সূর্যকুমারী তোর্সার রিংটিং হাসিতে
সূর্যও কামুক হয়ে ওঠে, বিদীর্ণ পতনে
আমি তখন নির্বিকল্প দর্শক।
গত জন্ম থেকে ভালোবাসা ছুঁয়েছি
চুমু খেয়েছি তোর্সার নম্র পড়ুন
কবিতা | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১১৬ বার দেখা | ৬২ শব্দ ১টি ছবি
নিজকিয়া ৩৮
নিজকিয়া ৩৮
নখ বেড়ে অকাল সাইক্লোন
জলের তোড়ে ভাসছে ফুলমাথানীয়ার জঙ্গল
সব গাছ ফুল আর ফল
দুহাতে উঁচুতে তুলে
নোয়ার নৌকা খোঁজায় ব্যস্ত।
পায়ের নীচে চোরা জলের স্রোত,
এখানে জলের ভেতরে জল
দাগ কেটে যায় অনবরত;
থৈ জলের ত্বকে ডুবকি মারে
অনাবশ্যক ফেলে আসা আদর ছাড়া
সেক্সের টুকরো ফ্রেম,
একসময়ে নির্বেদ গাছের শাখায়
ঠাঁই পড়ুন
কবিতা | ৫ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১০২ বার দেখা | ৪৭ শব্দ ১টি ছবি
নিজকিয়া ৩৯
নিজকিয়া ৩৯
মৌরলা, সরপুঁটি, খলসে মাছেরা ডানা মেলে ডায়নোসর হয়ে গেল,
পুরনো বিবর্ণ দিনগুলো ডায়রীর হলদে পাতায় জন্ডিসে ভুগছে,
ছেলেবেলার শিলকোটাও কিম্বা চানাজোরগরম
প্রাইমারী স্কুলের ভুলে যাওয়া মুখ সেকেন্ড মাস্টারের
ছিঁড়ে যাওয়া পকেট গলে কখন পড়ে গেছে স্মৃতির লালধূলো রাস্তায়। পড়ুন
কবিতা | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১২৮ বার দেখা | ৩৪ শব্দ ১টি ছবি
উদ্ভুতুরে
উদ্ভুতুরে
চায়ের কাপে গোঁত্তা খেয়ে
সকাল বেলায় শিববাবু
খালি গলায় গান ধরলেন
ভাত নয় আজ দাও সাবু!
সে কি কথা! গিন্নী বলেন
কেমনতর ভীমরতি!
সাধ করে কেউ সাবু খায়?
এ কেমন ছন্ন মতি!
ওঠো এবার বেলা হলো
বেরিয়ে পড় বাজারে,
পকেট ভরো নতুন নোটে
শ কিম্বা হাজারে।
ইলিশ নাকি শস্তা এখন
খাচ্ছে সবাই পাড়ার পড়ুন
ছড়া ও পদ্য | ৩ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১২৩ বার দেখা | ২০০ শব্দ ১টি ছবি