মাসুদুর রহমান (শাওন)-এর ব্লগ

মাসুদুর রহমান (শাওন) এর জন্ম ১৯৯৭ সালে, টাঙ্গাইল জেলার গোপালপুর উপজেলার সবুজে ঘেরা ছায়াঢাকা পঞ্চাশ গ্রামে। পিতার নাম মোঃ মজনু মিয়া, মাতা মোছাঃ খুকুমণি। প্রাথমিক শিক্ষা গ্রামের প্রাথমিক বিদ্যালয়ে, বর্তমানে আনন্দমোহন কলেজ’এ (ময়মনসিংহ) বাংলা সাহিত্যে অনার্সে অধ্যায়নরত। ষষ্ঠ শ্রেণিতে পড়ার সময় ছড়া লেখার মাধ্যমে সাহিত্যে প্রবেশ। কবিতা ছাড়াও ছোট গল্প লিখে থাকেন। জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম, জীবনানন্দ দাশ দ্বারা প্রভাবিত।

তুমি যদি
তুমি যদি
তুমি যদি কখনো আমার পাশে না থাকো তবে আমার ভোরগুলো নীরস হয়ে যাবে,
আমার আঙিনায় আর কোন ফুলই ফুটবেনা, আমার দুয়ারে আসবেনা বসন্ত।
তুমি যদি আমাকে আর নাম ধরে না ডাকো তবে পৃথিবীর সব সুর বদলে যাবে বিশ্রী শব্দ দূষণে,
পাখিদের গানগুলো পড়ুন
কবিতা | , | ৫ টি মন্তব্য | ১৫৭ বার দেখা | ১১৫ শব্দ ১টি ছবি
কল্পনায় একদিন
কল্পনায় একদিন

একদিন কল্পনায় আমি হেঁটেছি কত দূর তার সাথে,
ছুঁয়েছি চুড়ির রেশ হয়ে তারই হাত সারাটি পথ ধরে।
হঠাৎ হাওয়ার মতো আমিও দুলে দিয়েছি এক গোছা চুল তার,
নীল আচলে আমি দিয়েছি তারে বসন্তে ঝরা কত পড়ুন
কবিতা | , | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৯৭ বার দেখা | ৪৭ শব্দ ১টি ছবি
কর্তৃপক্ষের করোনা চিন্তা ও আদু ভাই তৈরি
কর্তৃপক্ষের করোনা চিন্তা ও আদু ভাই তৈরি
দেশের সবকিছু স্বাভাবিকভাবে চলতে পারবে, অফিস-আদালত, ব্যাংক, হাট-বাজার ইত্যাদি ইত্যাদি ইত্যাদি
কেবল মাত্র বন্ধ থাকবে শিক্ষাকার্যক্রম কারণ এক গবেষণায় দেখা গেছে শুধুমাত্র শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষাকার্যক্রম পরিচালিত হলেই করোনা ভাইরাস ব্যপকভাবে ছড়িয়ে পড়বে এবং ইহা মহামারি আকার ধারণ করবে। আর তাই আমাদের পড়ুন
অন্যান্য, সমকালীন | | ৬ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৮১৫ বার দেখা | ১৮২ শব্দ ১টি ছবি
একুশ মানে
একুশ মানে
একুশ মানে আমার মায়ের ভাষার অহংকার,
আমার ভাইয়ের রক্তে জ্বলা জাগ্রত হুংকার।
একুশ মানে মাথা তুলে বাঁচার দীপ্ত পণ,
রক্ত চক্ষু রুখে দেবার শপথ আমরণ।। একুশ মানে শ্লোগান শোভিত পায়ে পায়ে মিছিল,
অধিকার আদায়ে রাজপথটা রক্তে করা পিছিল।
একুশ মানে উত্তাল ঠেউয়ে যুদ্ধে যাবার নেশা,
বুকের ভিতর পড়ুন
কবিতা | , | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১৪৪৭ বার দেখা | ৯৫ শব্দ ১টি ছবি
কিছুই রবেনা জেনো
কিছুই রবেনা জেনো
ক্ষীরের মতো নরম মাটিতে রুয়ে দেয়া গোলাপের চারাগাছটা,
একদিন যৌবনে ভরে দেবে শতশত ফুলের ঘ্রাণে পুরোটা আঙিনা।
সুপারির ভরে নুয়ে যাবে একদিন তার সদ্য গজানো চারাটিও,
তারপর একদিন মরে যাবে এমন করে রুয়ে দেয়া সবকটি চারা।। গ্রীষ্মের তাপদগ্ধ মাটি; উনুনের মত জ্বলবে তীব্র যন্ত্রণায়,
একদিন পড়ুন
কবিতা | , | ৬ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১১৯ বার দেখা | ১৫৭ শব্দ ১টি ছবি
নিয়মের খেলা
নিয়মের খেলা
অজস্র দক্ষ সংসারী পাখি,
হঠাৎ একদিন পথ ভুল করে,
হারিয়ে যায় অবেলার হাওয়ায়।
সারারাত পাহারায় থাকা,
নামহীন নক্ষত্রও আচমকা কখনো,
খসে পড়ে নিভে যায় গভীর অন্ধকারে।
এমনই কত যত্নে মোড়ানো ভালোবাসাও,
ধীরে ধীরে কোন একদিন,
মরে যায় কেবলই অবহেলায়।। ২৭/১০/২০২০ পড়ুন
কবিতা | , | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৫৩৩ বার দেখা | ৩১ শব্দ ১টি ছবি
অনু কবিতা- ২৯৯
অনু কবিতা- ২৯৯
তুই একা হেঁটে যা শিশিরের পথে,
কান পেতে শোন বাতাসের গুঞ্জন।
ছিঁড়ে দে সব ‍মায়ার বন্ধন যত,
পুড়ে ফেল স্মৃতির ডায়রিটা তোর।
নিজেকে আপন করে, গলা ছেঁড়ে গা,
বেঁচে থাকবার গান।। ২৬/১০/২০২০ পড়ুন
কবিতা | | ৬ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৫২৫ বার দেখা | ২৭ শব্দ ১টি ছবি
অনু কবিতা- ৩০২
অনু কবিতা- ৩০২
কেন অকারণে দুজনেই পুষি কষ্টের পাখি?
মুখ বুজে চুপ করে থাকা মন জুড়ে ডাকাডাকি ০৪/০১/২০২১ পড়ুন
কবিতা | , | ৮ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১৩১ বার দেখা | ১৩ শব্দ ১টি ছবি
অনু কবিতা- ৩০১
কোথায় যেন আজও রয়ে গেছে সে নিকটে আমার,
রয়ে গেছে তার আঙুলের ঘ্রাণ, শীতল পরশ।
পৌষ রাতের শিশিরের মতো সারা রাত ধরে,
আজও যেন ঝরে পড়ে সে বুকের ভিতর।। ১০/১১/২০২০ পড়ুন
কবিতা | , , | ৬ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৫১২ বার দেখা | ২৬ শব্দ
অণু কবিতা- ২১৫
অণু কবিতা- ২১৫
হয়তো আকাশ, নদীজল, তীরের হাওয়া,
সব জেনে গেছে, তুমি কার নিবিড় বকুল হয়ে আছো।
কেবল বিষণ্ণ সন্ধ্যা, ব্যাকুল তিয়াসের কণ্ঠ জানে,
তোমার নাম কেবল খুদিত আমার বুকের গভীরে।। ০৩/০৬/২০১৯ পড়ুন
কবিতা | , | ৫ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১৯৪ বার দেখা | ২৫ শব্দ ১টি ছবি
স্মরণে নজরুল
স্মরণে নজরুল
নজরুল তুমি কই ? বাজাও বিষের বাঁশি,
সত্য ন্যায়ের পাল তুলে দাও অসত্যেরে ফাঁসি।
দারিদ্রে পিষ্টে যে জন মরে দাও তারে সুখ আনি,
নিষ্পাপ জনের লৌহ কবাটে দিয়ে যাও আঘাত হানি।। মুছে দাও তুমি বিভেদ মানুষে সকলে করো একজাতি,
ঘৃণার দেয়াল ধুলায় লুটায়ে দিয়ে যাও পড়ুন
কবিতা, ব্যক্তিত্ব, শিল্পসংস্কৃতি | | ৬ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৪৫৮ বার দেখা | ৮১ শব্দ ১টি ছবি
বৈপরীত্য
বৈপরীত্য
এবেলায় আমি খুব ভীষণ রকমের শান্ত প্রভাতের আকাশের মতো,
তবে ভিতরের অবস্থা ঠিক বিপরীত যেন বৈশাখী ঝরো প্রস্তুতি প্রতিক্ষণ।
আমার বাহিরে মাতাল করা পারফিউমের সে কী অপূর্ব ঘ্রাণ,
অথচ ভিতরে কী উপচে পরা ভ্যাপসা উৎকট গন্ধ।। এইতো বেশ লাগে আমায় চোখে সানগ্লাস, হাতে ঘড়ি, পড়ুন
কবিতা | , | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৫৬০ বার দেখা | ১৭৪ শব্দ ১টি ছবি
রমণী
রমণী
এই যে পৃথিবী জুড়ে কতশত রমণী,
বিশ্বাস করো আর না করো,
এদের প্রত্যেকের ভিতরে আছে উদার আকাশ, মহাসিন্ধু।। যদি একবার এদের কারো ভিতরে কেউ প্রবেশ করতে পারে,
তবে জেনে রেখো পৃথিবীর এই আকাশ, মহাসিন্ধু,
তার কাছে মনে হবে তুচ্ছের থেকেও বেশি তুচ্ছ।। তবে মনে রেখো রমণীর পড়ুন
কবিতা | | ৫ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ২৪৪ বার দেখা | ৫৩ শব্দ ১টি ছবি
অণু কবিতা- ২১৮
অণু কবিতা- ২১৮
নিয়ন আলোয় তোমার শহর, জেগে থাকে রোজ।
ধূসর আঁধার ঢাকে আমায়, শূন্যতে নিখোঁজ।
তোমার পাড়ায় সুরের বাঁধন, বেঁধে রাখো গানে,
আমার ঘরে ব্যথার হাওয়া, বয়ে যায় আনমনে।। ০৮/০৬/২০১৯ পড়ুন
কবিতা | , | ৩ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১৯৬ বার দেখা | ২৪ শব্দ ১টি ছবি
ভালোবেসে দেখেছি
ভালোবেসে দেখেছি
ভালোবেসে দেখেছি, এলোকেশী রমণীর প্রশস্ত বুকের ভিতর,
আমার নিঃশ্বাস ফেলবার জায়গাটুকুও পাইনি আমি।
কেবল প্রত্যাখ্যাত হয়েছি আমি উদাসী বলে, দিকভ্রান্ত বলে,
আমার এই উড়ন-চণ্ডী জীবনে কেউ বাসা বাঁধার সাহস করেনি। সেবার বর্ষায় ভিজে ভিজে একগুচ্ছ কদম এনেছিলাম,
একটা পুষ্প বিলাসী রমণীও খুঁজে পাইনি সেদিনের পড়ুন
কবিতা | , | ৩ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৫৮৩ বার দেখা | ৯০ শব্দ ১টি ছবি