অনুভূতির দস্তাবেজ
অনুভূতির দস্তাবেজ
আমরা সর্বদা আকাশছোঁয়া স্বপ্ন দেখি, ছুঁতে পারি না। তোমার স্বপ্ন দেখি কিন্তু পড়তে পারি না। তাই স্বপ্নে উড়ি কল্পনায় উড়ি ভাবনায় উড়ি উড়তে উড়তে মহাকাশের গ্রহ থেকে আরেক গ্রহে যাই বাস্তবতা এই যে, আমরা আজ আকাশে উড়ি চাঁদে যাই, মার্চে পড়ুন
জীবন | ১টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৩৩৯ বার দেখা | ৬৫০ শব্দ ১টি ছবি
সারারাত জলের জোনাকে
আবার বৃষ্টি এলে সারারাত জলের জোনাকে
লিখে নাম, দেবো ভাসিয়ে কাগজ
কেউ জানবে না এই হেমন্তে, কে ছিল গোলাপ বাগানে
কে ছিল প্রথম শ্রোতা, ভূপেনের পদ্মা- গঙ্গা – গানে কে ছিল স্বীকৃত আলো- কে ছিল পাখা হাতে বসে
পাশে রেখে স্মৃতিঠোঙা, বুকে নিয়ে পুষ্পব্যানার
কে এমন কার্তিকের পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১৩২ বার দেখা | ৬৭ শব্দ
ছবি
ছবি
রূপালি কবির বহু কবিতা পড়ে পড়ে
নিজেকে মনে হয় আমি কোন এক
ধূলি উড়া ধূলির বিন্দু বিন্দু প্রজাপতির ডানা;
তিল তিল করে বুড়র দিকে যাচ্ছি!
অথচ সংসার ধর্ম আমাকে তাই বলছে
এ সবে খুব সংশয়, আরাধনার আরাধনা
তার চেয়ে নীরবে মরে যাওয়াই ভাল-
কোন কবিতার হাত, মুখ, পড়ুন
কবিতা | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১৪৮ বার দেখা | ৬৯ শব্দ ১টি ছবি
দুর্দিনের অবসানে
মরণের ইচ্ছা জাগিছে আজি,
কোনোমতে বেঁচে থাকার বহু চেষ্টা গেলো জলে,
জগতে বিশ্বাস নাই,
ঈর্ষাবশত অমূলক দোষারোপে সমাজচ্যুত আমি।
মৌনাবলম্বনে অনেক হইলো দিনগুজরানো,
ইহাতে সুখ নাই-
বেদনার্ত অনুভূতির কবলে কত রাতের অবসান,
মুক্তির প্রতিজ্ঞা করেছি আজ-
দেশান্তরে জীবন পার করবো না,আত্মহুতি।
বিজন প্রান্তরে সন্ন্যাসজীবন নিবো না,
অথবা,
সমাজের অবিচারে প্রতিবাদীও হবো না!
ভয় হয়-খুব ভয়!
সাহসী পড়ুন
অন্যান্য | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ২৬৫ বার দেখা | ১০৮ শব্দ
কবি মহল
৪৪/৪১ স্বরবৃত্ত ছন্দ এমন একটি কবি সমাজ
আমরা সবে চাই,
হিংসা বিদ্বেষ কোনো কথা
সেইখানেতে নাই। কবি সমাজ মিলেমিশে
থাকতে হবে সব,
কবি কবি হিংসা বিদ্বেষ
নাহি কলরব। কবি হলো জাতির দর্পণ
কবি শুদ্ধ জন,
ভালো কাজে ভালো ফলটা
কবির সৃষ্টি ক্ষণ। হিংসা বিদ্বেষ ভুলে গিয়ে
চলো জীবন মুখ,
হিংসা বিদ্বেষ জাতি ধ্বংস
পাবে না কো সুখ। জ্ঞানী গুণী কবি যারা
মন পড়ুন
কবিতা, ছড়া ও পদ্য | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ২১৩ বার দেখা | ৫১ শব্দ
আক্ষেপ
আক্ষেপ
একদিন দেখতে পাবে
ঘোর অন্ধকারে তুমি হাঁটছো
তোমার ছায়া তোমাকে এড়িয়ে
অদ্ভুত একাকীত্বে তুমি
সেদিন আমি
জোনাকি হয়ে তোমায় ছোঁয়ে যাবো। একদিন শুনতে পাবে
বেলা শেষে তুমি তোমার আর্তনাদ
চোখের জল তোমাকে পাশ কাটিয়ে
এক হরর সময়ে তুমি
সেদিন আমি
রবীন্দ্রনাথের সুর হয়ে তোমার কর্ণকুহরের মূর্চ্ছনা তুলবো। একদিন জানতে পাবে
নির্জনে যখন পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ২৫১ বার দেখা | ৮২ শব্দ ১টি ছবি
দুর্দিন
খেটে খাওয়া মানুষ গুলো
মুখে তাদের উড়ছে ধূলো
চুকছে পেটের ঋণে,
রোদ বৃষ্টিতে নিত্য পোড়া
মাইনের জন্য পিছু ঘোরা
নিত্য নতুন দিনে। দিনটা চলে এরূপ করে
শান্তি নাহি আসে ঘরে
খাদ্য চাই যে ছেলে,
সুখের উল্লাস নেই তো কভু
লেগে আছেন দুঃখ তবু
সুখ নাহি তো মেলে। সংসারের হাল ধরার তরে
খেটে খেটে জীবন ভরে
ভালো থাকার জন্য,
কষ্ট পড়ুন
কবিতা, ছড়া ও পদ্য | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৩৭৪ বার দেখা | ৭০ শব্দ
দিলে দিলে মসকরা
দিলে দিলে মসকরা
দিল আমার ক্যারাব্যারা খায়া পইড়া আছে
জল্লার পাড়ে; হালার পুতেগো লেইগ্যা
সাসভি লিবার পারি না
হাতের মেন্ধি দেইখাভি কয়,
তুমি বহুত খুপসুরত আছ, তোমারেই চাই। আমি কই, উষ্টা খা আপনা কপালে
ঐ বেল্লিক তোগো মা-বইন নাইক্কা?
আমার দিল লিয়া খেলবি আবর তো ছাইড়াও যাবিগা
হুমন্দির পোলা, কুন আজাবে পড়ুন
কবিতা | ৩ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১৬৭ বার দেখা | ১৫৭ শব্দ ১টি ছবি
একটি দ্বিধাজড়িত প্রশ্ন
সেদিনের সন্ধ্যা কেবল একা আমার ছিল না। কাজকর্ম অফিসটফিস ফেলে এক সন্ধ্যায়
জমায়েত হলাম-লাভরোড, চা-স্টলের সামনে
চেনা-অচেনা বন্ধুগুলো প্রায় গোল মোড়ের মতো
একে অপরের মুখোমুখি স্থির বসে আছি। কেন বসে আছি?এমন দ্বিধাজড়িত প্রশ্ন
সবচেয়ে অসুন্দর হলেও
চা তাপে তা গলে গলে নিশ্চিত ঝরে যাচ্ছে
ছায়ার পিঠাপিঠি মানুষের দলে, গৃহহীন বনে-
অগোছালো কথা, সারিবদ্ধ পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৩৭১ বার দেখা | ৬৬ শব্দ
মঙ্গলজলের গান
ভেতরে শূন্যতা নিয়ে দোলে উঠে নদী। জোয়ার নেই,
তবু মুগ্ধ কোলাহলে কাছে টানে রাতের বিনয়, যারা
দূরে দাঁড়িয়ে দেখছিল – তারাও হাতিতালি দেয়। আহা সভ্যতা! আহা নগ্নতার ভোর, তুমি কী দেখাচ্ছ
আদিমতার ছায়া!
ভাবতে ভাবতে ক্রমশ জেগে উঠে
রোদের দক্ষিণা,
মানুষের প্রতি হাত বাড়িয়ে দিতে দিতে
বলে- যে জীবন কাটাও পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৯৯ বার দেখা | ৬২ শব্দ
অভিযান
অভিযান
রাতের তারারা জ্বলজ্বল করে আকাশে
চাঁদের আলো মেঘের ফাঁক দিয়ে উঁকি মারে।
পাইন গাছের মাথায় বাতাসের কারচুপি
গাছের ছায়া পড়ে বাড়ির চালে আর আশেপাশে। তিরতির বয়ে চলা নদীর জলে মৃদুমন্দ ঢেউ
পার্শ্ববর্তী শহরের আলোয় চিকচিক করে।
এমনি একটি রাতে তোমার হাত ধরে হেঁটে গেছি
অনেক দূর দেবদারু পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১০৭ বার দেখা | ৫৬ শব্দ ১টি ছবি
অংশুমান
অংশুমান
তোমার হাতে তুলে দিলাম প্রভাতের স্নিগ্ধতা
তোমার সাথে মেতে রইলাম মিষ্টি রোদের উষ্ণতা। ঊষার দেশে বাল্মীকি হেসে উঁকি দেয় নব যৌবন
ভালবাসা আশায় থাকে, স্বপ্ন আঁকে নিভৃত মন; যেমন চাও কাছে এসো, আমাকেও যেতে দাও অমর্ত্য পুরে
রৌদ্র উজ্জ্বল গালে সোনালি চুম্বন পেয়ে যাও ভরা পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৩১৪ বার দেখা | ৪২ শব্দ ১টি ছবি
তবু কিছু বেদনা
রাস্তায় নামতেই ক্ষুদ্র এক পাথরে ধাক্কা খেলাম
প্রতিদিনের রাস্তা, প্রতিদিনের পাথর। ফুটপাতে
উই’র টিবির মতো পাথর সযত্নে এড়িয়ে চলি।
আজ মনসংযোগে ব্যাঘাত হচ্ছে, বাঁধতে ভুলে
গেছি টাইয়ের নট। গতকাল শিমুলের ডালে যে
সংসারী শালিক কে উৎফুল্ল দেখেছিলাম, আজ
শিমুলের গোড়ায় তার নিষ্প্রাণ দেহ পড়ে আছে। টকটকে লাল শিমুল পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ২৯৫ বার দেখা | ৮৯ শব্দ
অতি খুশির ভারে
অতি খুশির ভারে
হেমন্ত যেই প্রতি বছর
কৃষাণেরি দ্বারে,
মুখে ফোটে হাসির ঝলক
অতি খুশির ভারে। ছাতিম ফুলের গন্ধে সবে
উদাস হয়ে পড়ে,
নবান্নেরি উৎসব তখন
সবার ঘরে ঘরে। সোনার ধানে ভরে গোলা
হেমন্তের এ খেলা,
গ্রামেগঞ্জে মেলার হিড়িক
বসে রাত্রি বেলা। পিঠাপুলি ফিরনী পায়েস
খাওয়া চলে গাঁয়ে,
শিউলি ঝরা বকুল তলে
মানুষ জড়ো ছায়ে। শশী হাসে রাতের বেলা
ছড়ায় পড়ুন
ছড়া ও পদ্য | ৩ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১৫৩ বার দেখা | ৪৭ শব্দ ১টি ছবি
স্বজনের প্রতীক্ষা
শৈশবকালে হারিয়ে যায়
অনেক ছেলে মেয়ে,
আসবে কবে আপন ঘরে
স্বজন থাকে চেয়ে। হারিয়ে গেছে সেই জনেরা
আসে না কভু ফিরে,
স্বজন তরে থাকেন শুধু
স্মৃতি এটুকু ঘিরে। তাদের সাথে দেখা করতে
মনে ইচ্ছে করে,
সেই কথাটা মনে হলেই
অঝোর ধারা ঝরে। চলে গেছে যে সবার থেকে
অনেক বেশি দূরে,
তাকে দেখতে পেলে স্বজনে
হৃদয় খানা ভরে। সম্ভব না দেখা পড়ুন
কবিতা, ছড়া ও পদ্য | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১৮১ বার দেখা | ৫৬ শব্দ