পরিবহন কথা
পরিবহন কথা

প্রতীকি ছবি মিনিট দশেক অপেক্ষা করে বাস পেলাম। বাসে উঠতে না উঠতেই দুজন দীর্ঘদেহী মানবের বাঁধায় থমকে গেলাম; পথ আটকে দাঁড়িয়েছিলেন। দরজায় দাঁড়িয়ে থাকলাম কিছুক্ষণ। পরের স্টপে আরও কয়েকজন বাসে উঠছে দেখে ভিতরে যাওয়ার চেষ্টা করলাম। কিন্তু না, সেই দীর্ঘদেহী পড়ুন
অণুগল্প, সমকালীন | ১টি মন্তব্য | ৩৭ বার দেখা | ২০৫ শব্দ ২টি ছবি
দেহ হাঁটি হাঁটি
দেহ হাঁটি হাঁটি
মধ্যরাত শ্যাম শালিকের চোখে
সময় বুঝি গড়ে- গড়ে যাচ্ছে-
ভয়ঙ্কর দেহ বুক ধর- ধর, বুকে;
নিশ্চিত গায়ের জোড়ে ইট ভাটা
জ্বালান যায় অথচ মনের গা দিয়ে
নিভান যায় না,আরও জ্বলতে হয়;
চোখের সাথে মনটা রাখ খোলাখুলি-
দেয়াল বেয়ে উঠে যাবে না তো শ্যাম
শালিকের ফাঁকি-গন্ধ নাকে শুধুই মাটি
আকাশ পড়ুন
কবিতা | ৪ টি মন্তব্য | ৬১ বার দেখা | ৫০ শব্দ ১টি ছবি
ধারাবাহিক উপন্যাসঃ কুসুম-কুমার
ধারাবাহিক উপন্যাসঃ কুসুম-কুমার
পর্ব-১১ শীতের সকাল। চারদিকে ঘন কুয়াসা। এই কুয়াসার ভেতর দিয়ে ঘুরতে মিলু খুব ভালবাসে। চারপাশের আবছা পরিবেশটা তার চোখের সামনে এনে দেয় এক অলৌকিক জগতের চিত্রাবলী। অস্পষ্টতার ভেতরে সে যেন খুঁজে পায় কোনো এক সুস্পষ্ট সৌন্দর্য্য।
কুসুমকুমারী ঘুম থেকে উঠে বারান্দায় এসে পড়ুন
সাহিত্য | ২ টি মন্তব্য | ৭৮ বার দেখা | ৩৪৫ শব্দ ১টি ছবি
ঘুম ভাঙ্গিয়ে দিলে সহসা
ঘুম ভাঙ্গিয়ে দিলে সহসা
কার্তিকের সকাল, হিমাবেশ, ঘুমে বেঘোর
নিস্তব্ধ পরিবেশ, এই কাক ডাকা ভোর,
দখিন বারান্দার পর্দা দিলে সহসা খুলে,
দিলে তো বাপু ঘুম থেকে তুলে!
এবার চা করে দেখি! ছুটির আরাম চোখের পাতায়, আমি নিঝুম পুরীতে
ঘুমের বাজালে বারো, যেন এক থুড়িতে,
চা না করলে পান এবেলা,
চোখ তো আলোয় পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | ৬৪ বার দেখা | ১৫৫ শব্দ ১টি ছবি
এক চাঁদের কথা (সনেট)
এক চাঁদের কথা (সনেট)
এ আকাশে চাঁদ ছিলো থালার মতোন
ছড়াতো জ্যোৎস্না রোজ নির্দ্বিধায় হেসে,
দখিনা বাতাস তারে করতো যতন
চকোরের দৃঢ় ধ্যান খুব ভালোবেসে। রূপালী ধারার আশে তরুলতা দুলে
তেষ্টায় গুনতো জেগে অপেক্ষার শ্বাস,
ঊর্মির নাচন দেখে তটিনীর কূলে
শ্বাপদও খুশিতে হতো ডাহুকের দাস। হায় এ কি ভগ্ন দশা সেই পড়ুন
কবিতা | ৬ টি মন্তব্য | ১১০ বার দেখা | ৬৬ শব্দ ১টি ছবি
পরিযায়ীর গল্প
পরিযায়ীর গল্প
সাইদুর রহমান অতিথি পাখি আসতে পারে
ষড়ঋতুর দেশে,
দেশের পাখি ‘স্বাগত’ বলে
বরাবরই হেসে। দূরের দেশে বাস করেও
প্রিয় বাংলা ভূমি,
আদর স্নেহ দেয় যে ঢেলে
কাছে টানে যে চুমি। শীতেরকালে মোদের দেশে
পায় আরাম খুর,
সাগর পাড়ে খেয়ে বেড়ায়
দেয় আমোদে ডুব। অতিথি সেবা বাংলাদেশে
বিশ্বে করেছে নাম,
ছাড়ে তাই যে সাইবেরিয়া
ছাড়ে তাদের ধাম। অনায়াসেই খাল-বিলেতে
পোকা-মাকড় পড়ুন
কবিতা | ৪ টি মন্তব্য | ৯০ বার দেখা | ৬৩ শব্দ
এত লম্বা লেখা আমিও লিখতে পারি ভুলে গেছি প্রায়!
এত লম্বা লেখা আমিও লিখতে পারি ভুলে গেছি প্রায়!
প্রকৃতির পরিবর্তন কত দ্রুত ঘটতে পারে পূর্ব ইউরোপের ঐ অংশে বাস না করলে হয়ত বুঝতে পারতাম না। শীতের রাজত্ব ঐ অঞ্চলে প্রশ্নাতীত। সেই যে সেপ্টেম্বরের শেষের দিকে তুষারপাত শুরু হয় তার শেষ কবে কেউ জানেনা। ডিসেম্বরের শুরুতে বরফ এসে জায়গা পড়ুন
জীবন | ১টি মন্তব্য | ৩৯ বার দেখা | ৮২৮ শব্দ ১টি ছবি
শূন্যতা ছুঁয়েছে মন
শূন্যতা ছুঁয়েছে মন
মহাকালের সূর্যটা একাই চলেছে বয়ে
কালের গর্ভে মহাকাল হয়ে
একা থাকার এই সমারহে
পথটাও রয় একা প্রবল শূন্যতায়। তাই আজ তুমি
কতটা শূন্যতায়
সেজেছ পথিক তুমি, মন।
কতটা শূন্যতায় ভেঙেছে হৃদয়; কিভাবে চলেছে দিন
দিনে দিনে করে ঋণ জানা নেই তবে
বেঘোরে বেঘাত, সব
হয়েছে বেহাত কী তা পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | ৩৭ বার দেখা | ৬৬ শব্দ ১টি ছবি
ধারাবাহিক উপন্যাস: কুসুম-কুমার
ধারাবাহিক উপন্যাস : কুসুম-কুমার
পর্ব -১০ সময়কে পেছনে ফেলে জীবন এগিয়ে চলে সামনের দিকে। চলতে চলতে পথিক কখনো সখনো অতীত পথের দিকে ফিরে তাকায়। সে পথের বাঁকে বাঁকে ঘটে যাওয়া ঘটনাকে মনের চোখ দিয়ে দেখে নিতে ভালবাসে। মিলু স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথে আনমনে কখন পড়ুন
সাহিত্য | ৪ টি মন্তব্য | ৭৯ বার দেখা | ৮৩০ শব্দ ১টি ছবি
নিমতিতা সরকারি কলোনি
আট
অনেক দূরের নক্ষত্রমণ্ডল থেকে ফিরে আসছিল চাঁদ, রিকশা ক’রে। অন্ধকার মহাজগতে চাকার নীচে খোয়ার মতো ছায়াপথ আর গ্রহাণুপুঞ্জের ঝাঁকুনি খেয়ে, রিকশার হ্যান্ডেলের লাগানো টেমি-র আলোয় রাস্তা দেখে দেখে। হঠাৎ এক একটা উল্কা ছুটছে চারদিক সাদা ক’রে দিয়ে। তখন বোঝা যাচ্ছিল, ধ্রুবলোকের কোথাও ব’সে সিংহ পড়ুন
গল্প, জীবন | ১টি মন্তব্য | ৩৫ বার দেখা | ৭৮৫ শব্দ
প্রলুব্ধ ছায়ার ছবি
অনেকদিন ধরেই ঘাড়ধরা শব্দে কবিতা লিখি
গাছ থেকে বেলের বদলে তাল পড়লে যেমন
হাঁচি আর কাশি একসাথে বেরোতে চাইলে যেমন
আমার কবিতার বেখাপ্পা শব্দেরাও তেমন!! তবুও কবিতা লিখি লেজ আর গোবর মাখামাখি
আমি ঋণগ্রস্ত অকবিবয়ে বেড়াই শব্দের দায়,
এভাবেই বেড়ে চলছে অপরিশোধিত লেনদেন
যে কেউ ইচ্ছা হলেই স্বত্তাধিকার কিনে পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | ৩৫ বার দেখা | ৯১ শব্দ
ঈর্ষা এবং অগ্রজ
ঈর্ষা কত প্রকার এবং কী কী জানতে হলে আমাদের তথাকথিত শ্রদ্ধেয় অগ্রজদের পানে একটু তাকাতে হবে। শ্রদ্ধেয় এর আগে তথাকথিত লাগানোয় অনেকে নাখোশ হবেন কিন্তু একদিন যাদের পরম আরাধ্য ভাবতাম তারা যে শেষ পর্যন্ত ঊনমানুষ হয়ে দেখা দিবেন ভাবতে পারিনি। এতদিন অপাত্রে শ্রদ্ধা নিবেদন পড়ুন
জীবন | ১টি মন্তব্য | ৩৬ বার দেখা | ১৮০ শব্দ
কার জন্য ...
কার জন্য ...
কার জন্য ঘুম ভাঙ্গে
কার বিহনে জ্বর আসে অঙ্গে? কোঁকড়ানো ভেজা চুলে স্নিগ্ধা লাগে বলে
কার জন্য স্নান করো সাত সকালে? কার জন্য জন্য খুঁজো নীল টিপ
সাঁঝের বেলায় কার অপেক্ষায় জ্বালাও প্রদীপ। কার সাথে ডুবো নিবিড় কথোপকথনে?
ভুলে যাও সকালের নাস্তা দুপুরের খাবার গ্রহণে। কার বুকে আঁকো পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | ৩৯ বার দেখা | ১১৪ শব্দ ১টি ছবি
চে গুয়েভারার হাত
বিনাশী আগুন দেখো কবি। দেখো বিরাগসমগ্রের দুটি হাত।
স্ট্যানগান পড়ে আছে দূরে। গুলির আওয়াজ শুনে কাঁপতো
যে জঙ্গল তার পাখিরাও আজ সাহসী কেমন! পোড়ামেঘ
বুকে নিয়ে আকাশও কী প্রত্যয়ে মেলেছে চোখ। কত নির্মোহ
ভালোবাসায় জেগে আছে অধিকারের আলো। বিনম্র গোলাপ দেখো কবি। দেখো হলুদ চাঁদের যৌবন
পাহারা দিচ্ছে যে সময়- পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | ২৬ বার দেখা | ৫৭ শব্দ
বিশুদ্ধ গুলজার
আজ জ্যোৎস্না নেই-অন্ধকার
নিশ্চুপ সব, ঠাণ্ডা অভিসার-
বিশুদ্ধ গুলজারে সুন্দরীময়
আধুলি আধুলি হিম কুয়াশা
আর বুনোফুলের চরিত্র নিয়ে
শাদা কাশফুল, নতুনের দিনে-
চুলখোলা সবুজ বাতাস, চারদিক;
এই মোহগন্ধ মেটাই প্রান্তরে
পাখিদের শিরোনামে-পরী
আকাশ ছেড়ে এখানে
ঘরের দরজায় নাচে, পৃথিবী! পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | ২৯ বার দেখা | ২৯ শব্দ