নীতিশ রায়-এর ব্লগ
এইতো জীবন
এইতো মাত্র আর কটা দিন,
হয়তো জয়ি বন্যাকে মনে রাখবে না কেউ!
মনে পড়বে কালে ভদ্রে,
বিশেষ কোন সময়ে,নতুবা বিশেষ দিনে।
জাগ্রত হবে না আর কারো বিবেক।
কাঁদতে কাঁদতে চোখের জল ও
শুকিয়ে যাবে এক দিন।
কেবল শুকাবেনা মায়ের শাড়ির-
আঁচলের প্রান্ত ভাগ।
দিগন্তের মেঘমালা উড়ে যাবে,
পাখির কুজনে মুখরিত হবে
সবুজে ঘেরা বন পড়ুন
কবিতা | | ৩ টি মন্তব্য | ৭২ বার দেখা | ১১৫ শব্দ
আমি জয়ি বলছি
আমি জয়ি বলছি,
ওদের তোমরা ক্ষমা করো না।
যাদের উদ্মাত্ত রক্তের নেশায়
বলি হতে হল আমায়,
বিদায় বলতে হল-
প্রিয় মা,মাটি, মানুষকে।
বিদায় বলতে হল সহপাঠি ও
প্রিয় শিক্ষকদের কে।
ওদের তোমরা ক্ষমা করো না। মা-বাবা,
আমায় ক্ষমা করে দিও।
আমি চাইনি তোমাদের ছেড়ে,
তোমাদের কাঁদিয়ে চলে আসতে।
আমি কি কষ্ট পাইনি?
অনেক কেঁদেছি মা।
তবু আমি পারিনি,
আমি পড়ুন
কবিতা | | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৮৭ বার দেখা | ১৫৫ শব্দ
ফরিয়াদ
হে প্রভু ক্ষমা কর তুমি, আমি অপরাধী,
তোমারে ভজিতে নাহি পারি।
অন্তরে মোর সহস্র ব্যথা ,
মালা করে গলে গাঁথি।
মলিন বদনে চেয়ে থাকি আমি,
তুচ্ছ করি তোমারে।
কেমনে ডাকিব জানিনা আমি
ব্যথা ভরা এ হৃদয়ে।
চারিদিকে শুধু দুঃখের সাগর,
কষ্টে গড়া পাহাড়।
হৃদয়ের কপাট খোলনি তুমি,
দিয়েছ অমার আঁধার।
জীর্ণ বস্ত্র শীর্ণ আহার
চুম্বিছে আমার পড়ুন
কবিতা | | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৭০ বার দেখা | ৬২ শব্দ
জীবনের বাঁকে
সেদিন দুপুরে পথের ধারে ছোট্ট এক ভীড়ে,
দেখিল বিশু এক পথশিশু বিদ্ধ কথার তীরে।
চোখে তার জল গা থরথর ভয়ে সে জড়োসড়ো,
কম্পিত স্বরে বলছে বারে বারে মার্জনা মোরে করো। ক্ষুধার জ্বালায় প্রান চলে যায় ভুল করেছি তাই,
আমি যে অনাথ কষ্ট অগাধ বাবা মা বেঁচে নাই।
কাকে পড়ুন
কবিতা | | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৮৩ বার দেখা | ১৭৯ শব্দ
বিয়ে বাড়ি
হৈচৈ হৈচৈ বিয়ে বাড়ির হৈ চৈ,
চারিদিকে লোকজন হরদম হৈ হৈ।
ছোট ছোট ছেলেমেয়ে মুখে হাসি সারাদিন,
আসবে বর আজ, মন নাচে ধিনধিন।
সূর্যটা যায় হেলে পশ্চিম আকাশে,
সানাই এর সুর বাজে দুর ঐ বাতাসে।
লোকজন সাথে নিয়ে বর এল সন্ধ্যায়,
চারিদিকে ছোটাছুটি, বর দেখে আসি আয়।
কিশোর কিশোরীরা আড় চোখে দেখে পড়ুন
কবিতা | | ৫ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৬৩ বার দেখা | ১০১ শব্দ
বুকের মানিক
দুঃখী এক মাতা কেঁদে ফেরে একা
কোল জুড়ে হাহাকার।
দিলনা বিধাতা পুরিল না আশা
রহিল কালো আঁধার।
জোড় করি হাত জেগে সারা রাত
মানত করে দরগায়।
আলো দিলে কোলে ডাকিব তোমারে
পুঁজিব তোমার পায়।
চাহিল বিধাতা পুরিল আশা
কোল হল আলোকিত।
কুটিকুটি হাসে বসে মা পাশে
দেখে মুখ উচ্ছ্বাসিত।
যতদিন গেল বাড়িয়া পড়ুন
কবিতা | | ৫ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৫০ বার দেখা | ১১৮ শব্দ