একটি রূঢ় বাস্তবতার গল্প

নাম তার সুদীপ্ত চৌধুরি। তিনি একজন শিক্ষক। তাও আবার প্রবাসী বিদ্যায়তনে চাকরি করেন। স্বায়ত্ত্বশাসিত প্রতিষ্ঠান। স্যারের আত্মসম্মান বোধটা একটু বেশি। কোন অভাব অভিযোগ কারো সঙ্গে সহজে শেয়ার করতে পারেন না। তাই সবাই ভাবে, স্যারের অনেক কিছু আছে। প্রবাসের মাটিতে কোন কিছুর অভাব হয় নাকি? কিন্তু করোনা যে, সব গ্রাস করে নিয়েছে! সে গল্প সবার অজানা! … Continue reading “একটি রূঢ় বাস্তবতার গল্প”

আমার বাংলাদেশে

চোখ মুদে দেখি যে অবয়ব সুন্দর বর্ণিল আকাশে তুমিও কি খুঁজেছ তারে; কোন এক অন্ধকার সাগরের তলদেশে! লক্ষ্মীপেঁচার ডাকে ঘুম ভেঙে, এখনো কি হাতড়ে বেড়াও আঁধারের আলো শিশিরের পতন শব্দে জলতরঙ্গের সুরে, উন্মাতাল দিন কাটে কি আজো! সবুজ ক্যানভাসে বর্ণিল রঙের ছটায়, উন্মিলিত চোখে আজো কি স্বপ্ন ভাসে এখনো কি খেলা কর জোনাকির আলোয়; আলো-আঁধারি … Continue reading “আমার বাংলাদেশে”

একটু সতর্ক হই!

একটু সতর্ক হই!

পেইজে একসাথে পনেরটি লেখা প্রদর্শিত হয়। এই পনেরটি লেখার মধ্যে একজনের চার পাঁটটি লেখা কম সময়ের মধ্যে পোস্ট করলে অন্যের লেখা দ্রুত আড়ালে চলে যায়। আসুন লেখা পোস্ট করার ক্ষেত্রে একটু সতর্ক হই।

যতো সুখ বঙ্গমায়ের উত্তরী তলে

আমার অনাদি অস্থি জুড়ে বিস্তার লাল-সবুজের এমন বিমোহিত করা রঙ কোথাও দেখিনাকো আর হাজার নদী পাড়ি দিয়েছি; অকূল পাথার বিত্তের মাঝেও নেই উল্লাস; শ্যামলিমার মত তোমার। চোখে ভাসে আজো উত্তরী উড়িছে দখিনা বাতাসে যেমন ভেসে বেড়ায় শঙ্খচিল; বাধাহীন মুক্ত আকাশে, ঘাসফড়িং রচিছে বাসর সবুজ ঘাসে স্বাধীন ভূমে বারণ নেই তার হারিয়ে যেতে, অসীমের মাঝে। পাখ-পাখালি … Continue reading “যতো সুখ বঙ্গমায়ের উত্তরী তলে”

তবে কি প্রেম!

যে বৃক্ষের ছায়ার বিকল্প আছে অহরহ হন্যে হয়ে তবু কেন খুঁজি তারে অহর্নিশ, করে নিথর দেহ মনের জানালায় এঁকে যাই সেই কচি কিশলয় দুর্বাঘাসের তো অভাব নেই সবুজ বাংলায়। অক্টোপাসের অষ্টপদ অদৃশ্য চাপ রেখেছে হৃদয় গহীনে মনের চোখের দৃষ্টি কেঁড়ে নিয়েছে অতি সংগোপনে, দেখি না তাই নীল আকাশের ওপারের নীল আকাশ প্রান্তের ওপারের সেই ঘন … Continue reading “তবে কি প্রেম!”

ধূসর প্রবাসে-

দিনের বেলায় ডুবে থাকি কর্মযজ্ঞে ভুলে যাই কর্ম কোলাহলে অতৃপ্ত বাসনাকে দিবাবসানে সন্ধ্যার আলো আঁধারে হারিয়ে যায় খেই চোখে হলুদ স্বপ্ন হয় আরো ধূসরবর্ণ যেন মুক্তি নেই। আধপেটে তোমার কোলে মাথা রেখে যখন দেখি নীলাকাশ কেমন মায়া আছে বোঝাবার নেই অবকাশ বিদেশ-বিভূঁইয়ে হয়তো রাশি-রাশি ধনরাশি কোথাও দেখি না তবু তুমি আমি আর ভালোবাসা পাশাপশি। অবারিত … Continue reading “ধূসর প্রবাসে-“

স্বজাতির ভুলে প্রতিশোধের মালা আমারই গলে-

দেবদারু তলায় প্রায় দেখা হতো এক বৈষ্ণবীর সনে ব্রত ছিল তার মজিবে না আর কোন পুরুষ প্রেমে; ছিল এক বামন ঠাকুর; কেঁড়ে নিল তার সব জীবন-যৌবন সে হতে বৈষ্ণবী; ঘুরে দেশে দেশে, নিয়ে সন্ন্যাসি মন । ভাঙতে বৈষ্ণবীর ভ্রম, সেজেছিলাম সাধুজন ব্রত নিয়েছিলাম কভু হানিবো না আঘাত, হবো বিশ্বাসী জন কাজে-অকাজে ছুটে যেতাম দেবদারু তলে … Continue reading “স্বজাতির ভুলে প্রতিশোধের মালা আমারই গলে-“

অনন্ত পথের সন্ধানে-

হবো এবার বিসুভিয়াসের অগ্নি উদগিরিনী বান পুড়ে যাবে যত জ্বালা যন্ত্রণা; হবো অনির্বান- কুইনান গিলে নেবো, অমৃত সুধা মেলেনি যখন; নিরন্তর মরুর বুকে হেটে চলি উদ্ভ্রান্ত পথিক যেমন। সীমাহীন অনন্ত পথে হতে পারিনি অসীম আটকে গেছি তোমার মায়া জালে, পরিসর অতি সসীম আমার আমি হতে পারিনি আমার মত করে, আমি যে আবদ্ধ আজ তোমার সংকীর্ণ … Continue reading “অনন্ত পথের সন্ধানে-“

এসো তারুণ্যের চেতনায় গড়ি বাংলাদেশ

এসো তারুণ্যের চেতনায় গড়ি বাংলাদেশ

এসো আবার তারুণ্য দীপ্তকণ্ঠে করি উচ্চারণ- এই মাটি আমার এই ভূখন্ড আমাদের চেতনার দামে কেনা প্রতিটি ইঞ্চির ন্যায্য হিস্যা বুঝিয়ে দিতে হবে আমাদের। চাই না কোন সান্ত্রি কাপুরুষের আস্ফালন- কান পেতে আজো শুনতে পাই, নুরলদিনের আর্তচিৎকার ‘জাগো বাহে…’ চোখ বুজলেই দেখতে পাই আসাদের রক্তে রঞ্জিত রাজপথ ভেসে ওঠে চোখের সামনে ত্রিশ লক্ষ শহীদের রক্তস্নান করা … Continue reading “এসো তারুণ্যের চেতনায় গড়ি বাংলাদেশ”

বন্ধুত্ব-

বন্ধুত্ব-

তুই কি আমায় বাসবি ভালো শর্ত ছেড়ে মুক্ত মনে তুই কি আমার সঙ্গী হবি দুর্যোগে আর জলোচ্ছ্বাসে হৃদয়ে জমিন বিছিয়ে দিবি; স্বর্গ সুখে ঘুমিয়ে নিতে আমার চাওয়া, তোর চাওয়াতে মিলে মিশে পথ দেখাবে। বন্ধু, আমি ডাকছি তোমায়- বাধার দেয়াল ছিন্ন করে আয় ছুটে আয়, ছুটবো দুজন উল্কা বেগে; অতৃপ্তিকে পেছনে ফেলে স্বর্গ মর্ত্য পাতাল ফুঁড়ে, … Continue reading “বন্ধুত্ব-“