বরষার মেঘ

বরষার মেঘ

রিমঝিম রিমঝিম বাদল দিনে তোমার কথা পড়ে মনে কোথায় আছ তুমি আজ এমনি বরষা মুখর দিনে। তোমার পরশ মাখা স্বপ্ন আমায় করেছে মগ্ন দিন কাটে ঘরে একা তোমার সুরে গান গেয়ে। বিদায় নিয়েছে বসন্ত এসেছে বরষা তবু কেন কাটে না যে দিন গুলি তোমার পথ পানে চেয়ে।

মেঘ মদিরা

মেঘ মদিরা

আজি মেঘ গরজিছে শ্রাবণ আকাশে গুরু গুরু ডাকে দেয়া সুবাসিত বাতাসে।। ঘনঘটা বেজে শোন পিয়ালের বনে উথলে বিরহ জ্বালা প্রিয়ার মনে এ লগনে তারে বলা যায় কি আভাসে যদি না বাতাস বহে বকুল সুবাসে।। ধীরে ধীরে বরষণে মন নিশীথে পুলকিত হরষে চায় তারে দেখিতে না দেখিয়া তারে ভাবি নিরলে বসে সেও বুঝি ডাকে মোরে এমনি … Continue reading “মেঘ মদিরা”

হামিদ সাহেব

হামিদ সাহেব

স্ত্রীর নানারকম কটুবাক্য, গালাগালি, নির্যাতন সহ্য করিতে না পারিয়া হামিদ সাহেব গৃহ ত্যাগ করিলেন। সারাদিন শুধু ফোঁস ফোঁস ঘুম আর ঘুম সংসারের একতা কাজও তাকে দিয়ে করার উপায় নাই, যাবে কোথায় যাক। রাত হলেই সুরুসুর করে এসে হাজির হবে। না, ঘন্টা, রা্ত, দিন, সপ্তাহ পেরিয়ে যাবার পরেও যখন হামিদ সাহেবের প্রত্যাবর্তনের কোন চিহ্ন দেখা গেলনা … Continue reading “হামিদ সাহেব”

কত যে ছিল গান

অনেক দিনের আশা ছিল তোমায় দেখিবার মনের মুকুরে দীপ জ্বেলে ভালবাসিবার।। আসা যাওয়ার পথের পাশে ক্লান্ত আঁখি মেলে বসে আছি উদাস মনে সকল ভাবনা ফেলে।। তোমার দেখা পাই না বলে মেঘের ছায়া পড়ে বেলা শেষে চাঁদের আলো নিভে গেল অবশেষে।।

যুগের মালী

কর্কট ক্রান্তি মকর ক্রান্তি ছাড়িয়ে উত্তর থেকে দক্ষিণ মেরু, বিষুব রেখা পেরিয়ে অশান্ত ঝড় বইছে পৃথিবী জুড়ে লক্ষ জনের অশ্রু ঝরিয়ে বিষাদের সুরে। এটম নাপাম নিউক্লিয়ার হাইড্রোজেন বোমা শান্তি সোহাগ রাখবে না জমা। পাল্লা ধরেছে সকলে খেলবে মরণ খেলা বসে না যেন বকুল তলে বসন্ত মেলা। মা কাঁদে, শিশু কাঁদে, কাঁদে ধরণী, অথৈ জলে ডুবে … Continue reading “যুগের মালী”

সুদূরিকা

সুদূরিকা

রাতের কোলে ঘুমায় চাঁদ বাঁকা আকাশের বুকে যেন স্বপ্নের ছবি আঁকা।। হৃদয় রানী এলো দোলাতে আমায় কি যেন বলিতে চায় চোখের ভাষায় আধ খোলা জানালায় সেই সুদূরিকা।। রাতের চাঁদিনী সে ডাকে ইশারায় মালা হাতে কাছে কেন আসে না যে হায় মরীচিকা সে যেন সুদূর নীহারিকা।।

আমি ঢাকা মহানগরী

আমি ঢাকা মহানগরী

এই যে আজকে আপনারা বসবাস করছেন আমার বুকে এই আমি ঢাকা মহানগরী। এক সময় কিন্তু আমি এত বড় ছিলাম না। নবাবদের আমলে মাত্র কয়েকজন নবাব বাড়ির নায়েব, গোমস্তা আর খানসামারা এখানে বসবাস করত এবং তাদের সেবা যত্নের জন্য কামার, কুমার, নাপিত ধোপা, স্বর্ণকার, তাঁতি, গোয়ালা, ময়রা এমনি যাদের প্রয়োজন তেমনি কয়েক ঘর জনবসতি ছিল। সে … Continue reading “আমি ঢাকা মহানগরী”

লেখকের বিড়ম্বনা

লেখকের বিড়ম্বনা

আমি কোন লেখক বা সাহিত্যিক হবার জন্য হাতে কলম ধরিনি বা এই বিজ্ঞানের যুগে যেহেতু কলম দিয়ে লেখার প্রচলন উঠেই গেছে তাই বলা যায় কম্পিউটারের কি বোর্ডে হাত দেইনি। তবে মনের গোপন কোণে যে এমন একটা সাধ সুপ্ত নেই সে কথাও জোর দিয়ে বলতে চাই না। নিতান্তই চাকরি থেকে অবসর নিয়ে সময় কাটাবার জন্য বিশেষ … Continue reading “লেখকের বিড়ম্বনা”

হাত তুলেন

হাত তুলেন

এই মানুষটারে যারা চিনেন না তারা হাত তুলেন আর যারা চিনেন তারা মুরুব্বী’র কাছে নালিশ করেন প্লিজ! লোকটা নিখোঁজ বিগত আড়াইশ বছর যাবত।

কি যে করি?

কয়দিন যাবত শরীলডা কেমন কেমন লাগতেছে মাথায় ঝিম ধইরা থাকে, খালি খাই খাই ভাব কিন্তু দাতে ধার নাই তাই কিছু চাবাইতে পারিনা, চোখে সব সময় সইরষা ফুল দেহি, হাত পাও নিতে চাই একদিকে চইলা যায় আর এক দিকে। কি মসিবত! এক দোস্ত কইল কবিরাজের কাছে যাও। ভাবলাম এইডা বুঝি সৎপরামর্শ তাই গেলাম। বিশেষজ্ঞ কবিরাজ হাত … Continue reading “কি যে করি?”