জসীম উদ্দীন মুহম্মদ-এর ব্লগ
অভিনন্দন পত্র
অভিনন্দন পত্র যে শিশুর ভূমিষ্ঠ হতে এখনো লক্ষ কোটি বছর বাকি
তাকেও আমি অ ভি ন ন্দ ন জানিয়ে রাখি!
হয়ত তখনকার নাম গুলো মানুষের নামের মতো হবে না
হয়ত তখন নদী নামের কোনো অনাথিনী থাকবে না
হয়ত তখন পাহাড় -পাহাড়িকা নামের আর কেউ রইবে না
হয়ত চিরন্তন সত্য বলে পড়ুন
কবিতা | ৩ টি মন্তব্য | ১৪ বার দেখা | ১৫৬ শব্দ
ম নো রো গ
ম নো রো গ আমার হয়েছে মনোরোগ
রাত বড় হলেই বাড়ে কবিতা সম্ভোগ! তবুও আড়চোখে আলো খুঁজি
তবুও ভালোবাসার মানুষ বলতে তোমাকেই বুঝি! হোক সৌরভহীন আমার প্রহর
তবুও আলোয় ভরে উঠুক তোমার শহর!! পড়ুন
কবিতা | ৪ টি মন্তব্য | ১৬ বার দেখা | ২৮ শব্দ
না বর্ষার জল
না বর্ষার জল তবুও আমার ভালো একটা বাসার বাসনা বলে কথা
যেখানে নীরব রাত্রির রোদন শোনা যায়
যেখানে ভোরের পাখির বোধন দেখা যায়
যেখানে চোখ না খুলেই দিগন্ত ছোঁয়া যায়
যেখানে আদুরী বাতাসের গন্ধের ভোগী হওয়া যায়! আমার শহরটা বড়ো ক্ষেপাটে, মাথা গরম থাকে
ঝিঁঝিঁ পোকার মতো টানা টানা গাড়িগুলো ডাকে! এখানে পড়ুন
কবিতা | ৩ টি মন্তব্য | ১৪ বার দেখা | ৭০ শব্দ
শীত
শীত যারা প্রেম চেটেপুটে খায় আমিও তাদেরই লোক
নিসর্গ আমায় চাটে
রোজ রোজ একটি করে প্রেমপত্র লিখে বালিশের নিচে
রেখে যায়
আমি শেওড়ার ঝোপের দিকে তাকিয়ে থাকি। এখন রাজপথে হাড়কাঁপানো শীত
কবিতারাও অরণ্য ছেড়ে বেরুতে সাহস পায় না!! পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | ১১ বার দেখা | ৩১ শব্দ
তবুও আমি প্রণয়িনীর কথা ভাবি
তবুও আমি প্রণয়িনীর কথা ভাবি তবুও কিছু কিছু ভালোবাসার দিকে তাকিয়ে থাকি
যদিও উদয়ের পর অস্ত থেমে থাকে না
তবুও গতবুদ্ধি রাংতার কাজলের কথা ভাবি
মহাসমুদ্রের অলৌকিক বিভাজনের কথা ভাবি!!
শুরু যেভাবে মুদ্রিত হয়, শেষও যদি সেভাবে মুদ্রিত
হতো?
তাহলে কি পাহাড়ের দীর্ঘশ্বাস যুবতী রমণী হতো?
মৌণতার হাত ধরে ধীরে ধীরে ভালোবাসা পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | ১৬ বার দেখা | ৯৭ শব্দ
চন্দ্রগ্রহণ
চন্দ্রগ্রহণ ও সুন্দরি,
কোলবালিশ কোলে নিয়ে কার কথা ভাবছো?
আমাকে পাশ ফিরে কার ছবি সংগোপনে আঁকছো?
ওই দেখো
পাতার ফাঁকে কী সুন্দর যমজ পাহাড় ঘুমায়
লতানো শিশিরের ভাঁজে ভাঁজে আকাশ চুমায়! ঐ শোনো,
ওখানে সাগর ডাকে, ডাকে উর্বশী হরিণী চাঁদ
মনে আছে?
একদিন ওখানেই পেতেছিলে ভালোবাসার ফাঁদ! সেখানেই আমি ফেলে এসেছিলাম কবিতার খাতা
কে জানতো
সেখানে বারোমাসি পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | ১২ বার দেখা | ৫৯ শব্দ
দুরাশা
দুরাশা পাহাড়ের নিবিড় নীরবতার মতো আমিও ভালো
থাকতে শিখে গেছি
শিখে গেছি কিভাবে মাড়িয়ে যেতে হয়
শ্বাপদের ছায়া
শিখে গেছি কিভাবে আঙুলে জড়িয়ে রাখতে হয়
নীলমার মায়া!!
যেভাবে একদিন নামতার মতো মুখস্ত করেছিলাম
তোমার ভালোবাসা
সমুদ্রের গর্জন দেখে বুঝে গেছি সেদিন সন্ধ্যাবেলা
তুমি ছিলে আমার প্রথম দুরাশা!! পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | ১৫ বার দেখা | ৩৯ শব্দ
সে রাত্রির খরচের কথা ভাবি
সে রাত্রির খরচের কথা ভাবি তবুও আমি একটি ফুটফুটে দিনের কথা ভাবি
গুটিবসন্তের দাগের মতো ঘাড়ের উপর চেপে বসেছে
যে রাত্রি
সে রাত্রির খরচের কথা ভাবি! প্রেমহীন কিছু সময় বরাবর খবরের শিরোনাম হয়
আমি পাতাঝরা গাছেদের দিকে তাকিয়ে থাকি
দেখি তাদের কারো চোখে ঘুম নেই
তাদের কারো মুখে সুখের পদচিহ্ন নেই! তবুও আমি পড়ুন
কবিতা | ৩ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ২৬ বার দেখা | ৮৪ শব্দ
আমার ভণ্ড উপন্যাসের কিছু অংশ
আমার ভণ্ড উপন্যাসের কিছু অংশ তুমি বারবার সৃষ্টিকর্তা সৃষ্টিকর্তা করছো। তোমার কবি-সাহিত্যিক হওয়ার স্বপ্ন কোনোদিন পুরণ হবে না।
কেনো?
তুমি জানো না কবি-সাহিত্যিক হতে হলে নাস্তিক হতে হয়। লোকেরা তোমাকে আস্তিক বলে গালি দিবে।
দিক।
তোমার বই কেউ পড়বে না।
না পড়ুক।
তোমাকে আনকালচারড বলবে।
বলুক।
তোমার কাছে কেউ মেয়ে বিয়ে দিবে না।
না পড়ুন
জার্নাল ও ডায়েরী | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ২০ বার দেখা | ১৬৩ শব্দ
গাল লাল হউক
গাল লাল হউক সবকিছু আরও আরও সুচরিতা হউক
অথবা আরও বেশি বেশি অশুচি হউক
কোনো মানুষকে বলার দুঃসাহস করছি না
ম্রিয়মাণ হেমন্ত আর শীতকে বলছি! যেভাবে আমার সর্বস্ব লুটে ফেরারি হয়েছে
তস্কর বসন্ত, ওরাও তেমনি হউক!
আমি কোনো বিনিময় মুল্য ধার্য করছি নে
কেবল যেদিন থেকে ইতিহাস জন্ম হয়েছিলো
আমাকে দেখার প্রথম দিন
সেদিনের পড়ুন
কবিতা | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৪৮ বার দেখা | ৭১ শব্দ
ধর্ষণনামা
যেদিন আমার প্রথম কবিতাটি সম্পাদক
কর্তৃক ধর্ষিত হয়েছিলো,
সেদিন আমি কিছু বলিনি।
এখনও মাঝেমাঝে ধর্ষিতা হয় না এমন নয়,
এখনও কি আমি কাউকে কিছু বলেছি, বলিনি! আমি কেনো কিছু বলবো?
ভ্রমর যখন ফুলকে ধর্ষণ করে ফুল কি কিছু বলে?
রাত যখন রাতকে ধর্ষণ করে সে কি কিছু বলে?
দিন যখন দিনকে ধর্ষণ পড়ুন
কবিতা | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৩২ বার দেখা | ১২৫ শব্দ
ধর্ষিতা
ধর্ষিতা
বোদ্ধা কবি নদী কথা বলে না
বালুচর কথা বলে মৃতের মতো
কোথাও কোথাও নদীর বুকে ধানের শিষ কথা বলে
কথা বলে জীবিত মানুষের মতো! কখনও কখনও বড়ো প্রেম কথা বলে না
জীবিত অথবা মৃত
আমার নিষ্ফলা কবিতার মতো
তবুও অভিধান ঘাঁটাঘাঁটি করি হারানো শব্দের মতো
নদী কথা বলে না
নারীও কথা বলে না
সাগরিকা নামের পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৫১ বার দেখা | ৫৫ শব্দ
আশা
আশা এখন রেলস্টেশনে বসে আছি
আকাশের তারার মতো এখানেও কিছু সোডিয়াম লাইট মিটমিট করছে
মিটমিট করছে ট্রেনের যাত্রীদের যাওয়া-আসা
তবুও তাদের ফুরায় না ভালোবাসা! গন্তব্যে পৌছার এই যে নেশা
বিকল ইঞ্জিনও পরাজিত করতে পারে না তাদের দিশা
বারবার মরে যায়, তবুও বেঁচে যায় আশা!! তবুও যে কোনোদিন পুরাতন হয় না
তারই প্রকৃত নাম পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৩৩ বার দেখা | ৪৭ শব্দ
কিছু বাজেয়াপ্ত সময়ের কথা
কিছু বাজেয়াপ্ত সময়ের কথা
বোদ্ধা কবি কবিতায় কিছু বাজেয়াপ্ত সময়ের কথা বলি। নীল, শিখা, সুবর্ণা, আঁচল ওরা কেউ সময়ের কাছে
পরাজিত হয়নি
ওরা সবাই এখন আমার স্মৃতির মমি
তবুও এই আমি এখনো সেই আগের আমি
কবিতার কাছে বর্গা নিতে চাই মাত্র তিন ইঞ্চি জমি! ওতেই আমার সব হবে চাষবাস
খাঁচার পাখি তারও কি পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৩৫ বার দেখা | ৪৭ শব্দ
মৌনতা
মৌনতা এ বেলা আমার নয়
তবুও দিন শেষে রাতের উৎসব শুরু হয়! মৌনতা দিয়েও যৌনতা কেনা যায়
পাথরে পাথর।
যেজন আসল প্রেমিক নয় সেজন খোঁজে
কেবল গতরে গতর! পড়ুন
কবিতা | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৩৩ বার দেখা | ২২ শব্দ