জাহাঙ্গীর আলম অপূর্ব-এর ব্লগ

জাহাঙ্গীর আলম অপূর্ব সিরাজগঞ্জ জেলার রায়গঞ্জ উপজেলার নলছিয়া নামক গ্রামে ১০ ই জুন ২০০১ সালে জন্ম গ্রহণ করেন।
তার লেখা গুলো বাস্তব ধর্মীয়। লেখা তার নেশা।
সবচেয়ে বেশি ভালো লাগে কবিতা লিখতে।

* চরম মুর্খ সেই যে শিক্ষা অর্জন করে নিজের মাতৃভাষা শুদ্ধ ভাবে বলতে পারে না ।
* আমার কাছে আনুষ্ঠানিক শিক্ষা পদ্ধতি থেকে অনানুষ্ঠানিক শিক্ষা পদ্ধতি শ্রেষ্ঠ।

মৃদুস্বরে হাসি
ছেলেবেলায় শুনেছি যে
কত হাসির কথা
সেই হাসির কি কথা বলা
যাবে যথা’তথা। মৃদু হাসি আছে মুখে
হাসি কত প্রকার
জনে জনে আমি বলি
আছে হাসির আকার। কারো মুখে অট্টহাসি
কারো মুখে মৃদু
কোন হাসিতে বলো আছে
দৃষ্টিকারা জাদু। তেমন হাসি মুখ ওই আমি
কিনতে চাই যে তবু
এমন হাসি মুখ’কি ধরায়
পাওয়া যাবে কভু। মৃদু হাসি মুখে আছে
তারে লাগে পড়ুন
কবিতা, গল্প | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১৪৬ বার দেখা | ৫১ শব্দ
বাংলার নারী
বাংলার নারী পড়ে শাড়ি
নানা রকম সাজে,
জি সিরিয়াল দেখে তারা
মন বসে না কাজে। অলস সময় করে পারি
সদা করে গল্প,
যদি কেউ ভাই যেতে রে চাই
বসো একটু অল্প। ভালো কাজে মন বসে না
দারুণ বিমুখ তারা,
পরচর্চা করে নারী
কাটে দিন যে সারা। ইচ্ছে মতোন ঘুরাঘুরি
জি সিরিয়াল দেখে,
মনের ভিতর অনেক কথা
সবকে বলতে থাকে। আগের পড়ুন
কবিতা, ছড়া ও পদ্য | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৯৪ বার দেখা | ৫৭ শব্দ
দূষিত পৃথিবী
এমন দূষিত ধরা আমি চাইনি তো কভু
চেয়েছিলাম রে ভ্রাতা দূষণহীন ভূ তবু।
যেখানে আছে আমার খোলামেলা বিচরণ
সতত সবাই কাটে সারাবেলা ভাই বন। বিচার বিহীন সবে দূষণ করে যে ধরা
তারে তরে পৃথিবীতে শুধু শুধু হয় খরা।
মানুষের হয় শুধু নানা ধরনের রোগ
মাটি,পানি দূষণ যে নানা রোগে ভাই ভোগ। পরিবেশের পড়ুন
কবিতা, ছড়া ও পদ্য | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১৩০ বার দেখা | ১১৭ শব্দ
আমাদের কথা
মোদের কথা বলবো কি আর
কষ্ট প্রাণে আজ
মানুষ হয়ে মানুষ মারে
এ কেমন ভাই কাজ। ভাবি আমি তাদের কথা
অন্তরে নেই ভয়,
নরহত্যা করে তারা
ভয় করেছে জয়। পাখির প্রতি মানুষের ওই
যত মায়া ভাই
নরের জন্য নরের রে ভাই
তত মায়া নাই। নরহত্যা জঘন্য কাজ
সবাই জানে ভাই,
মারার বেলায় তাদের কথা
মনে জাগে নাই। আছে পড়ুন
কবিতা, ছড়া ও পদ্য | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১৪৩ বার দেখা | ৫৫ শব্দ
কাঠবিড়ালি
খোকার সাথে কাঠবিড়ালি
করে ভালো খেলা,
খোকা জানে বিকেল বেলা
কাঠবিড়ালির মেলা। ইচ্ছে খুশি ছুটে চলা
সবার সাথে দলে,
কাঠবিড়ালি খোকার সাথে
শুধু যায়’রে চলে। কাঠবিড়ালি কোমল দেহ
হাতে হাতে দিয়ে,
খাইতে নাইতে নিত্য চলে
কাঠবিড়ালি নিয়ে। খোকার সাথে কাঠবিড়ালির
ভালো বোঝা পড়া,
কাঠবিড়ালি জানে সেটা
কাছে গেলে ধরা। কাঠবিড়ালি সাথে খোকা
সদা খেলা করে
যেতে চাইলে কোনো স্থানে
শুধু পিছু ধরে। পড়ুন
কবিতা, ছড়া ও পদ্য | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১১০ বার দেখা | ৪৫ শব্দ
দেশের জন্য
আসুক যতোই ঘাত প্রতিঘাত
আসুক যতোই ঝড়
দেশের জন্য লড়বো মোরা
করবো নাকো ডর। আপন দেশে পরের শাসন
মানবো না’রে ভাই
আপন দেশে আপন শাসন
করতে মোরা চাই। আপন দেশে পরের বিধান
মানতে কষ্ট হয়
পর তাড়াতে লড়তে হবে
যোগ্য নেতা কয়। দেশকে মুক্ত করতে হবে
দেশই হলো মা
তার গর্ভে যে জন্ম মোদের
মোরা যে তার ছা। মনে আছে পড়ুন
কবিতা, ছড়া ও পদ্য | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১০৮ বার দেখা | ৫৬ শব্দ
বর্ষাকাল
জলে থৈথৈ করে রে ভাই বর্ষার ওই না সময়
শিশুদের ওই নাইতে ভয়
হাসি মজার নিত্য হয়
সুন্দর সুন্দর কথা কয়
শাপলা শালুক ফুলে ফুলে ভরে গেছে মৃন্ময়। ভেলা চড়ে ঘোরাঘুরি বন্ধুদের ওই সনে
দিবানিশি ভাবি তাই
বহু কিছু দেখতে’রে পাই
নানা রকম কাঁদা ভাই
মনের খুশি দেখা যায় রে আনন্দ যে ক্ষণে। জেলেরা পড়ুন
কবিতা, ছড়া ও পদ্য | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৩২ বার দেখা | ৮৬ শব্দ
ছোটন সোনা
খোকা খুকি দেখতে পেলো
ছোটন নাকি নাইতে গেলো
নদীর জলে
সাতার চলে
মায়ের ভয়ে এলোমেলো। মা আসবে খোকা বলে
ছোটন সোনা দৌড়ে চলে
মনে মনে
ক্ষণে ক্ষণে
শাপলা শালুক নদীর জলে। খোকা খুকি বিকেল বেলা
মন আনন্দে করে খেলা
ছোটন ডাকে
মায়ের হাঁকে
নদীর তীরে শিশুর মেলা। দারুণ কাব্য শৈলী কথা
ছোটনের মন আছে ব্যথা
বায়না বড়
জড়ো সড়
বলবো কাকে যথাতথা। রচনাকালঃ
০৪/০৭/২০২১
৪৪৪৪ পড়ুন
কবিতা, ছড়া ও পদ্য | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১১৯ বার দেখা | ৪৪ শব্দ
রতির ক্ষতি
পরম পিতা রতির মিতা
করছে ক্ষতি সবে
আপন পরে সকলে মরে
বাড়লে অতি তবে। জীবন খসে খারাপ রসে
হয়ে যে জ্ঞান হারা
খুশিতে যারা আত্মাহারা
প্রাণ দেয় যে সারা। রতির যাদু শিখায় সাধু
প্রেমের কথা বলে
ভবের হাঁটে তুমি খাটে
শিক্ষা নিয়ে চলে। সবার প্রাণে রতির টানে
আঁধার নেমে আসে
রতির খেলা রাতের বেলা
নর নারীরা ভাসে। রতি দমন করো পড়ুন
কবিতা, ছড়া ও পদ্য | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ২৫ বার দেখা | ৫২ শব্দ
গাঁয়ের বধু
গাঁয়ের বধু হেলে দুলে
পুকুর ঘাটে যায়,
ঝুমুর ঝুমুর শব্দ তাহার
দিয়ে নুপুর পায়। নুপুরের ওই দারুণ ছন্দ
পথিক ভোলে পথ,
গায়ের বধু সুন্দর দেখায়
দিলে নাকে নথ। নুপুর পায়ে হেঁটে চলে
গাঁয়ের বধু ভাই,
কলসি কাঁখে নিয়ে যখন
জল আনিতে যাই। মিষ্টি মুখের মিষ্টি কথা
পাখির মতো ডাক,
পিছন থেকে কে দিলো রে
মায়া বলে হাঁক। যেয়ে দেখে পুকুর পড়ুন
কবিতা, ছড়া ও পদ্য | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ২৯ বার দেখা | ৫৫ শব্দ
বারিধারা
৮৭/৬ (বিশাখ পয়রা) আকাশটা ঘন মেঘে /ডেকে আছে কভু রে
ডেকে আছে কভু,
নদীনালা খালে বিলে / জলে থৈথৈ তবু রে
জলে থৈথৈ তবু। বারিধারা অবিরাম / চলে শুধু চলে রে
চলে শুধু চলে,
কদম কেয়া ফুলের / বর্ষা রানি বলে রে
বর্ষা রানি বলে। দেয়ার ডাকে সবাই / পড়ুন
কবিতা | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ২৯ বার দেখা | ১০১ শব্দ
বর্ষার ছন্দ
৪৪/৪২ মাদল বাজে মনের ভিতর
ওই না বর্ষার ছন্দে
আশেপাশে ভরে গেছে
কদম কেয়ার গন্ধে। বৃষ্টির শব্দ জল কলতান
দারুণ ভালো লাগে
বর্ষার আরো কত ফুল ওই
ফুটে আছে বাগে। জেলে নেমে গোসল করা
নৌকা নিয়ে ঘোরা
কদম গাছে কেয়া গাছে
ফুল যে জোড়া জোড়া। বর্ষাকালে নদের জলে পড়ুন
কবিতা, ছড়া ও পদ্য | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৭৩ বার দেখা | ৬৯ শব্দ
আচরণ
৪৪/৪২ পিতা মাতার বিশৃঙ্খলায়
কাঁপে শিশু ভয়ে,
বিশৃঙ্খলার ভেতর থেকে
সব জ্বালা যায় সয়ে। কোমল মনে আঘাত পায়’রে
ছোট্ট একটা তবে
তাদের সাথে ভালো কথা
বলতে তবে হবে । নইলে তারা বিপথ যাবে
হবে না’কো ভালো,
জীবন থেকে মুছে যাবে
ধরার সকল আলো। ছেলেমেয়ের সামনে রে ভাই
রীতি ভালো পড়ুন
কবিতা, ছড়া ও পদ্য | ৩ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১০১ বার দেখা | ৬৪ শব্দ
লকডাউন
৪৪/৪২ স্বরবৃত্ত ছন্দ লকডাউনের জন্য দেশে
অভাব এলো নেমে
গরিব লোকের কষ্ট কি ভাই
থাকবে শুধু থেমে। লকডাউনের খারাপ সময়
জীবনে ভাই কষ্ট,
করোনার যে পুরো মৃন্ময়
সকল স্বপ্ন নষ্ট। গৃহবন্দী জীবন নিয়ে
সদা বসে ঘরে,
অসহ্য যে সময় হিয়ে
থাকি শুধু পড়ে। ঘরে বসে একলা মনে
বিষন্ন মন থাকে,
করোনার ওই প্রতিক্ষণে
সবে দূরে রাখে। লকডাউনের দুখের কথা
বলা যায় না পড়ুন
কবিতা, ছড়া ও পদ্য | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১০৮ বার দেখা | ৫০ শব্দ
গোলাপ কানন
স্বরবৃত্ত ছন্দঃ ৪৪/৪২
মাত্রাবৃত্ত ছন্দঃ ৫৫/৫২ ফুলের রাণী ফুল কুমারী
গোলাপ বাগে ফোটে,
সৌরভ পেয়ে ভ্রমর সবে
গুনগুনিয়ে ছোটে। গোলাপ আছে গোলাপ বাগে
কত রকম ছবি,
গোলাপ দেখে যুগে যুগেই
কবিতা লেখে কবি। গোলাপ গাছে প্রচুর কাটা
মালিই শুধু জানে,
মধু খেয়েই ভ্রমর ঘুরে
ফুলের পানে পানে। ফুলের প্রেমে অলির গানে
মুগ্ধ করে সবে,
ফুলের কালে নতুন রুপে
বিশ্ব সাজে তবে। ভালোবাসা পড়ুন
ছড়া ও পদ্য | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ২৩ বার দেখা | ৫৩ শব্দ