ইন্দ্রাণী সরকার-এর ব্লগ
নিশ্চুপ মন
নিশ্চুপ মন
অনেক দূরের যে পথটা এঁকেবেঁকে চলে যায়
তার পাশ দিয়ে বয়ে যায় একটা পাহাড়ি ঝর্ণা।
কুলুকুলু জলের শব্দ, একরাশ ফেনিল উচ্ছ্বাস
তারই মাঝে মাঝে থোকা থোকা বেগুনি ফুল। এলোমেলো বাতাসে পাইনের পাতা তিরতির
সারি সারি দেবদারু পথের ধারটি ঘিরে থাকে।
বাহারি সব পাখিরা এদিকে ওদিকে গেয়ে পড়ুন
কবিতা | ৪ টি মন্তব্য | ৭০ বার দেখা | ৫৮ শব্দ ১টি ছবি
স্বর্ণপ্রভা
স্বর্ণপ্রভা
তুমি কি হেলেঞ্চালতার মত দুলে ওঠো?
আকাশে ছড়িরে পরে তোমার স্বর্ণপ্রভা
রামধনুর সাতটি রং এসে তাতে মিশে যায়
মনে মনে ভাবি তুমি কি সেই যাকে দেখে
ইন্দ্র দেবতার হাজার চোখ ফুটে উঠেছিল? বিশ্বামিত্র মুনির তপস্যা ভঙ্গ হয়েছিল?
চতুর্দিকে দেবতারা বাজিয়েছিল শঙ্খনিনাদ
তোমায় পাদ্য-অর্ঘ্য দিতে নতজানু হিমালয়
ময়ূর ভুলেছিল পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | ৫১ বার দেখা | ৫৭ শব্দ ১টি ছবি
জোছনা ভরা রাতে
জোছনা ভরা রাতে
প্রতিটি জোছনা ভরা রাতে
বিনিদ্র চোখ জানে
রাত্রির অরণ্য সুখের কথা
আর বাতাসের ফিসফিসানি। বৃষ্টিভেজা দীঘি জ্যোৎস্নায়
সুদূর স্বপ্নময় নীরবতায়
রুপালি আলোর মায়ায়
তোমার মুখের চালচিত্র। দূরে ভাসে মেঘের কালো চুল
উড়ে যায় চাঁদের গায়ে
আকাশে তারাদের টিপছাপ
তার মাঝে তোমার চেয়ে থাকা। পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | ৩৮ বার দেখা | ৩২ শব্দ ১টি ছবি
শ্যাম পরবাসে
শ্যাম পরবাসে
বর্ষা ছুঁয়ে যায় প্রেয়সীর অধর
শ্যাম পরবাসে আঁখি ঝরঝর
কভু যেও না আমারে ছাড়িয়া
শুধু ভরে থেকো আমায় চাহিয়া গানের কলি ভাসে প্রান্তর জুড়ে
অধরে অধর ছোঁয় আনমনা সুরে
বাতায়নে জাগি হে আমার প্রিয়া
পাশে থেকে মোর ভরে দিও হিয়া লাজে রাঙা তার চরণ দুখানি
ত্রস্ত নয়নে পশে বলাকা পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | ১৭৭৭ বার দেখা | ৬২ শব্দ ১টি ছবি
পারাপার
পারাপার
মৃত্তিকা-নদী খেয়ে পারাপারের
সংযোগস্থল পাথুরে, জনাকীর্ণ
অন্ধত্বের ভাণ করে পড়ে থাকা
মানুষের দল ভিক্ষারত প্রত্যাশা কোজাগরী চোখে আলতো ভাবে
ছুঁয়ে যায় শীর্ণ, মলিন বসবাস
সামান্য উপঢৌকনে সাজায় হাত সদ্যবিবাহিতা এক বধূ এস্ত্যভাবে
এদিক ওদিক চেয়ে ঘাটের তোরণে
এক পা এক পা করে জলে নামে
কুলবধূদের উলুধ্বনিতে পালিত
হয় কোনো আনন্দদায়ক কুলাচার। পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৫৩ বার দেখা | ৪০ শব্দ ১টি ছবি
ভৈরবী
ভৈরবী
ভোরের বেলা যখন বাসি
বেলি আর জুঁইয়ের গন্ধ
তখনো ছড়ানো আমাদের
ওই ঝুলবারান্দায়,
আহা কি মধুর সে গন্ধ
ভেসে আসে অদূরে
পাশের বাড়ির আমবাগানে
যেথায় মুকুল ধরে আছে,
ডালে ডালে, বাতাস
দুলিয়ে দেয় আম্রমঞ্জরী
পাশেই সুপারি গাছে
লেগে থাকা শিশির
ঝিকমিক করতে থাকে।
মাটিতে কাঁপা কাঁপা
দোদুল্যমান পত্রছায়া । পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৪০ বার দেখা | ৩৫ শব্দ ১টি ছবি
মৌন পরিক্রমায়
নিবিড় মেঘে ঢাকা তমসাবৃত আকাশ
শুভ্র চাঁদের আলোয় ভরে যায়
মেঘ সরে গেছে, মেঘের ফাঁক দিয়ে
ফুটে ওঠে সুস্পষ্ট চাঁদ আর তার দীপ্তি
রাত্রি তারার আঁচল বিছিয়ে দেয়
মৌন পরিক্রমায় পৃথিবী ঘুরে নেয়
তার নিজেকে একদিন এক রাত
রাত গড়িয়ে দিন, দিন গড়িয়ে রাত
তুমি এসে বললে, সে কি ঘুমিয়ে গেছে?
আমি চোখ পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৮২ বার দেখা | ৫৭ শব্দ
মেঘের তোরণে
মেঘের তোরণে
অপূর্ব চাঁদনী মুখ তার ভাসে
অপার্থিব প্রেমের প্রত্যাশায়
নিশি জাগা পাখিরা বিষণ্নতার
বিকেল বেলা ছুঁয়ে ছুঁয়ে যায়
আকাশে ভাঙা গড়া চাঁদ
মেঘের তোরণে ভেসে যায়
টুপটাপ শব্দে ঝরে পড়ে পাতা
তখন আকাশের অস্তরাগের লাজ
প্রতীক্ষার বিকেল গড়িয়ে যায়
মেঘের ভেলায় বয়ে চলে চাঁদ
তখনি পাতায় খসখস আওয়াজ
সে এল পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৫৩ বার দেখা | ৪১ শব্দ ১টি ছবি
প্রান্তরেখা
প্রান্তরেখা
নীল আকাশের তলায় একটা সাঁকো
তলায় বয়ে যায় পাহাড়ি নদী
প্রিয়ার চিবুক ছুঁয়ে প্রিয়র বহিরাগমন
ঘুমের মাঝে তুফান, তুফানের মাঝে পথ
ধ্যানবিন্দু সরে সরে যায়
নিঃশব্দতা বড় বুকে বাজায়
রাতপাখির ডানায় অপেক্ষা দূরাভাস
প্রিয়ার বোবা চোখ তবু তারে খুঁজে চলে
যেসব প্রজাপতি একদা রঙিন হয়ে ভেসে উঠত
তারাও পথ পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৫১ বার দেখা | ৬৫ শব্দ ১টি ছবি
স্বরলিপি
স্বরলিপি
নির্জন রাস্তায় একরাশ পাতার ওপর দিয়ে
তোমার নিত্য যাওয়া আসা
আমার অপেক্ষার শেষ হয় তোমায় পেয়ে
ভাবনার স্বরলিপি ঠোঁট ছুঁয়ে যায়
তোমার স্পর্শের অপেক্ষায়
রঙিন স্বপ্ন আঁকা হয় প্রজাপতির পাখায়
তোমার চোখের তারায় ভাসে আমার মুখ
তুমি হাত ধরে আমায় পাশে বসাও
ভাবনার সমুদ্র থেকে একরাশ কথা
ফোটা ফুল পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৫৮ বার দেখা | ৫৯ শব্দ ১টি ছবি
হাতছানি
হাতছানি
গোধূলির আলোয় ঘিরে থাকা স্তব্ধতা যত
বনভূমিতে আছড়ে পড়ে
কিছু পাখি অবসন্ন মেঘেদের বুক চিরে
দূরে কোথাও মিলিয়ে যায়। তোমার মায়াবী মুখ ভেসে ভেসে ওঠে
অবভাস কেবল ঢেউয়ের মতো ভেসে আসে।
গোপন দেরাজ থেকে বেরিয়ে আসে না কেউ
প্রয়োজন পড়ে না, সবই গাঁথা আছে। টুপটাপ পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৬২ বার দেখা | ৭৭ শব্দ ১টি ছবি
সাঁওতাল মেয়ে
সাঁওতাল মেয়ে
মেঠোপথের আল ধরে আঁকাবাঁকা পথ দিয়ে
হেঁটে আসে সেই সাঁওতাল মেয়ে ~
মাথায় তার চুড়ো করা খোঁপা
ঠোঁটে পানের লাল,
কাঁধে ঝোলা রুপার দুল,
নাকে তিলক মাটির ফোঁটা,
দুগালে দুটো আলতার ফোঁটা
পায়ে রুপোর নূপুর
মেঘলা দূপুরে আলুথালু বেশে গান গেয়ে
রিনিঝিনি পায়ে হাঁটে ওই সাঁওতাল মেয়ে~ ত্রস্তনয়ন কাজলে আঁকা
টিকোলো পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৭৭ বার দেখা | ৮২ শব্দ ১টি ছবি
কবিতা
কবিতা
প্রিয়তমা, তোমার ওই কিশোরী মুখের হাসিতে
আমি বারবার ভেসে যাই
যতবার জোছনায় আমার ঘর, মাঠ, আকাশ
প্লাবিত হয় ততবার তোমার
সান্নিধ্য কামনায় আমি ব্যাকুল হয়ে উঠি। তোমার ছেলেমানুষি ছটফটানি সব কিছুতেই
আমি বাঁচার রসদ খুঁজে পাই।
দেখো না তোমায় দেখলেই আমার পিয়ানো
কত সুন্দর বেজে ওঠে যেন
আমার কৃতিত্ব পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৬৭ বার দেখা | ১১৮ শব্দ ১টি ছবি
অস্তগামী
অস্তগামী
সকাল থেকে রাত শুধু তোমাকেই দেখি
দেখতে দেখতে হয়রান হই
তোমার উজ্জ্বল মুখ, মায়াভরা চোখ
সবই কি আমার জন্যই ? বাস্তবতা হারিয়ে হতাশা আঁকড়ে ধরতেই
তোমার দিকে ফিরে তাকাই।
তোমার নীরব চোখদুটো হেসে বলে,
ভয় কি ? আমি ত আছি। আমি ত তোমায় ভালোবাসি তবে
কেন এত ভেঙে পড়ো পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৭৯ বার দেখা | ৫৯ শব্দ ১টি ছবি
শতাব্দীর ঘুম
আমার তন্দ্রাচ্ছন্ন শ্রান্ত দুটি আঁখি
বিরল জনপথ ছাড়িয়ে প্রান্ত সীমায়
এসে বিশ্রাম নেয় কোনো নদীর ধারে,
তবু তোমার দেখা পাওয়া যায় না ।
ঘুম আসে আবার ভাঙে, তোমায় খুঁজি
হয়ত একদিন দেখা পাব এই আশায় ।
আবার ঘুমিয়ে পড়ি, শতাব্দীর ঘুম
তোমার ভরসায় থেকে থেকে প্রদীপ
ম্লান হয়, নতুন প্রদীপ খুঁজে পাই পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৬৯ বার দেখা | ৫০ শব্দ