ফকির ইলিয়াস-এর ব্লগ

কবিতা লিখি, থাকি নিউইয়র্কে।

সাফ গেমস এ বিজয়ী নারীদের জন্য একটি গান
সাফ গেমস এ বিজয়ী নারীদের জন্য একটি গান
জিতেছে আজ বাংলাদেশ,
জিতেছে বাংলার নারী
হে আকাশ আজ উল্লাস করো,
পারি আমরাও পারি॥ মুজিবের এই বাংলায় দেখো
সবুজের প্রাণে প্রাণে
জয়ের উল্লাস জাগিয়েছে আশা
প্রজন্মের কলতানে।
জয় বাংলা – হেঁকে হেঁকে উড়ে
বিজয়ী পাখিদের সারি॥ একাত্তরের চেতনায় যারা
দিয়ে গেল তাজা প্রাণ
তারাই আজ এসেছে ফিরে
করতে শক্তি দান
বিজয়ী বাংলার নারী
বিজয়ী পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | ৩৬ বার দেখা | ৪৯ শব্দ ১টি ছবি
বুড়বক
এই যেমন ধরো, তুমি
সৈয়দ মুজতবা আলী’র এক-দুইটা
বই পড়তে পারছিলা।
এই যেমন ধরো,তুমি
শামসুর রাহমানের পিছে পিছে
ঘুরছিলা, শাহবাগের রাস্তায় রাস্তায়। এই যে তুমি দুই চাইর লাইন
বাংলা লেখতে পারো,
পড়তে পারো বাংলা বর্ণমালা-
এর লাইগাই তুমি জুকারবুকে
একটা একাউন্ট খুলতে পারছ, আর মাঝে মাঝে গালি দিতে
পারতেছ রাহমান কে,
মাঝে দাঁত বিলকাইয়া
কইতে পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | ৪৯ বার দেখা | ৫০ শব্দ
প্রকাশিত সূর্যরাষ্ট্র
ধরো—আজ বৃষ্টি হবে না
সবপাখি ঘরে আসবে ফিরি
কেউই পথ ভুলে নদীতীরে যাবে না আর—
দুপুরের সাথে প্রকাশিত সূর্যরাষ্ট্র করবে না লুকোচুরি
কেউ দেখবে না কারও মুখ বলে,
প্রতিজ্ঞা করেছিল যারা,
ফিরে আসবে তারাও এই জলভেলা মাখা তুমুল বর্ষায়
লেনাদেনা সেরে মাঝিও নৌকোর গলুইয়ে বসে
গাইবে মহাজনী গান—
শান্ত ঢেউ যেমন মাঝে মাঝে পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | ২২ বার দেখা | ৬৭ শব্দ
নয় এগারো বাইশ
নয় এগারো বাইশ
ওরা আমাকে তুলে নিয়ে গেল। – তোমার বাংলা লেখা যে আমরা
পড়তে পারি, তা কি তুমি জানো?
– জানি!
বলতেই সামনে বসা একজন,
বাদামী রঙের একটি ফাইল
আমার সামনে মেলে ধরলো।
আমি পড়লাম। – এখানে সই করো!
আমি ইতস্তত করতেই ডানে
বামে দাঁড়ানো দুজন,
কিছুটা শাসনের সুরেই বললো,
সাইন ইট! আমার হাত পড়ুন
কবিতা | ৩ টি মন্তব্য | ৪২ বার দেখা | ৭৪ শব্দ ১টি ছবি
কবিরা এরকমই যায়
[ খোন্দকার আশরাফ হোসেন- আপনাকে ] দুহাতে তুলে রাখি কিছু বনঢেউ। আজ আমি কিছুই সাজাবো না।
না আকাশ, না পুষ্প, না আগুন। কারো গায়েই পরাবো না
নতুন কোনো পোশাক। কিছু অন্ধকার আমার প্রিয় হোক, কিছু
বিচ্ছেদ ছিন্ন-বিছিন্ন করুক আমার পাঁজর – এমন প্রত্যয় নিয়ে
আজ আমি নগরে বেরোবো যারা পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | ৬০ বার দেখা | ১১৮ শব্দ
জলপাহাড়
এত বৃষ্টি চারদিকে,
তবু ধুয়ে নিতে পারছে না আমাদের সম্মিলিত পাপ
এত আগুন চারদিকে
তবু পুড়ে যাচ্ছে না অজগরের লকলকে জিভ ঘূর্ণির প্রতিবেশী হয়ে থাকি
তবু উড়িয়ে নেবার শক্তি দেখি না
সবাই আমার চোখের দিকেই তাকায়
তবু পরিচিত কোনও মানুষ দেখি না পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | ১৭৩২ বার দেখা | ৩৬ শব্দ
মেঘ নেই, মোহ নেই
খুব বেশি মেঘ নেই তবুও আকাশটা আঁধার
হয়ে, আমাকেও দিয়ে যায় ধার
দেনা করে শোধ করি মৌরশী ঋণ
এভাবেই দায় নিয়ে কেটে যাবে অনাগত দিন! এভাবেই আসবে শীত, পৌষের কুয়াশা
মিশিয়ে কেউ লিখবে গান- বুকে রেখে আশা
মাঝিও ফলাবে ফসল উজানের চরে
শস্যদানার ঘ্রাণে উন্মত্ত দুপুর পাবে ফিরে সোনালী অতীত তার, লিখিত পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | ১৭৩৮ বার দেখা | ৫২ শব্দ
এত রক্তপাতের পরও
যে কাঁটা গলায় বিঁধার কথা ছিল, তা বিঁধেছে চোখে
কিছুই দেখছি না আর,
কিছুই মনে করতে পারছি না, আদৌ
মানুষ ছিলাম কী না, কোনো জনমে
দাঁড়িয়েছিলাম কী না- কোনো মানুষের পাশে। উড়ে যাচ্ছে পাথর। উড়ছে রক্ত- বাষ্প হয়ে
তারপরও আমাদের নিষ্ক্রিয় নাসারন্ধ্র, পাচ্ছে না
কোনো গন্ধ, পরখ করতে পারছে না বর্ণের পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৫৪ বার দেখা | ৭২ শব্দ
বিশ্বস্ত বন্ধুদের প্রতি
এখন রপ্ত করতে চাই কীভাবে পালাতে হয়, কীভাবে দীর্ঘ করা যায়
বিভিন্ন ছুটিদিবস- কীভাবে অন্য কোনো গ্রহে পৌঁছে নেয়া যায়
মুক্ত নিশ্বাস। জানি সেদিন হয়তো থাকবে না আর এই শ্বাসকষ্ট,
এই পোড়ামাটিচিহ্ন লেগে থাকবে না আমার হাতে, অথবা যে ছবিগুলো
একদিন ছিঁড়ে ফেলেছিলাম, সেগুলোও জোড়া লাগাবার প্রয়োজন
পড়বে পড়ুন
কবিতা | ৩ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৫১ বার দেখা | ১০৬ শব্দ
বিজ্ঞাপন
দুটো ডলারের জন্যে তুমি হাত
পাতছো, কর্পোরেট কচ্ছপের কাছে-
মাত্র কয়েকশ’ ডলারের জন্যে,
তুমি সারমেয় হয়ে বসে আছো
ভাড়াটে ইমিগ্রেশন দালালের পায়ের কিনারে
মাঝে মাঝে হয়ে যাচ্ছো
মুরগী বিক্রেতার খামারী ফড়িয়া! আর যাকে গলা টিপে হত্যা করতে
চাইছো,
তার কাছ থেকেও ভিক্ষে করে চেয়ে নিচ্ছো ফুলপেজ বিজ্ঞাপন। কী অদ্ভূত সরীসৃপ আজ জড়িয়ে
ধরেছে পড়ুন
অন্যান্য | ১টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৫১ বার দেখা | ৯৮ শব্দ
মাদুলী ও বৃক্ষমাটি
মাদুলী ও বৃক্ষমাটি
মাটির নীচ থেকে পাওয়া মাদুলী’টি হাতে নিয়ে দেখি
তাতে কারো নাম লেখা। দেখি-এটি একদিন যে কারও
গলায় ছিল, সেই কন্ঠদাগও লেগে আছে রূপোর গায়ে। আমি বৃক্ষের শিথান থেকে পৈথানে যাবার জন্য উঠে
দাঁড়াই। এ বৃক্ষটি গতরাতেই কেটে গেছে কেউ! তার
প্রশাখাগুলো সাক্ষী দিচ্ছে, এই বন পড়ুন
কবিতা | ৩ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৬৬ বার দেখা | ৮৭ শব্দ ১টি ছবি
আমার জীবনের ভেতর
আমার জীবনের ভেতর
অনেকগুলো জীবন লুকিয়ে থাকে আমার জীবনের ভেতর
অনেকগুলো সবুজ চারা, জাগিয়ে রাখে এই নবীন চর
অনেকগুলো পাখি নির্বিঘ্নে পালক ফেলে ফেলে
ঢুকে পড়ে অরণ্যে, আশ্বিনের মেঘজোসনাজলে। যায় কোথায় তারা ! কে লিখে ওড়ার ইতিহাস
কিংবা যারা আজীবন পথে পথে, থাকে মায়াদাস
তাদের ছায়া কি সাথে যায় পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৬১ বার দেখা | ৭৫ শব্দ ১টি ছবি
তবে কথা হোক
তবে কথা হোক
কথা হোক বনের আলোতে
জোসনায়-ভেজা চুলের স্মৃতি শুকাতে শুকাতে
বেদনায়,
বৃষ্টির লালিমায় মেঘ যেমন মুখ লুকোয়-
পরিণত ভোরগুলো গেয়ে যায় জীবনের জয়। কথার আড়ালে থাকুক, অনেক কথার পাহারা
নিতে নিতে বর্ণময় নিশ্বাস-
জলের সমান্তরালে জল
ফুলের সমান্তরালে ফুল
সাজিয়ে আসুক কাছে,
জ্যোৎস্নাগন্ধ পেতে চায় যারা। কথা হোক, রাত্রির বাহুতে পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৬৪ বার দেখা | ৪৬ শব্দ ১টি ছবি
অন্যদিন ধূসর পাহাড়ে
এখানে কোনো সবুজই থাকবে না-
এখানে থাকবে না কোনো আগুন,
আগুনের উত্তাপ,
মানুষের প্রেম,
চুমুর দৃশ্য,
সবুজের আলিঙ্গন,
থাকবে না হাত ধরে গারো মেয়েদের মিছিল। কিছুই থাকবে না অবশেষে। একটি আলখেল্লা
শুধুই হাত বুলাতে বুলাতে দখল করে নেবে সব
হ্যাঁ- সব।
শিশুদের হস্তরেখা, গাভীর ওলানের দুধ,
বনফুলের পরাগ, যাত্রীর বাইসাইকেল
ফেরিঅলা’র হাতের সংবাদপত্র
সাংবাদিকের হাতের ক্যামেরা কেড়ে নিতে পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৬৪ বার দেখা | ৭৮ শব্দ
ঘর কিংবা মাটির মমত্ব
কতদূর পরিণত ঘর, কতদূর নীল হাড়ের অস্তিত্ব
তা খুঁজতে খুঁজতে একদিন মধ্যযৌবনের মুখোমুখি
দাঁড়াই। দেখি একটি কালোচিল গলা বাড়িয়ে দেখছে
আমাকে। দেখছে বনের ভেতরের হলুদ ফুল— আর
তরুলতাকে জড়িয়ে ধরা মাটির মমত্ব। মাঝে মাঝে
চোখ ঘুরিয়ে দেখছে— বহুদিন পর এই লোকালয়ে
বৈশাখি ঝড় কীভাবে তছনছ করে দিয়েছে সকাল।
কতদূর সুর্যের ঝিলিক, পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৭২ বার দেখা | ৭১ শব্দ