দাউদুল ইসলাম-এর ব্লগ

সব সময় নিজেকে বলি-
মানুষ হবি যদি-
অন্ধকার ঘরে যখন একা থাকবি তখন নিজেকে জিজ্ঞেস করে নিস তুই কতটা মানুষ।
কতটা তোর সভ্যতা
কতটা তোর ভদ্রতা!
স্নান ঘরে যখন একা শাওয়ারের নিচে দাঁড়াস-
তখন নিজেকে জিজ্ঞেস করিস কত টা আছে তোর মনুষত্বের রুচি!
জিজ্ঞেস করিস কতটা তুই ভদ্র, সভ্য!

দায় স্বীকার
দায় স্বীকার
আমি নির্বোধ
মূর্খ
পিপাসাক্রান্ত নাদান!
তুমি চাইলেই
নিতে পারো শোধ
ক্ষমাও
দিতে পারো করুণা দান। আমি হীনবল
পাপিষ্ঠ
লঙ্ঘন করেছি সীমানা প্রাচীর!
তুমি সর্বোত্তম
করতে পারো কুক্ষিগত
মুক্তও
দয়ার আধার হতে পারো অধীর পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | ২৩ বার দেখা | ২৮ শব্দ ১টি ছবি
রঙ্গমঞ্চের কালো পর্দা
রঙ্গমঞ্চের কালো পর্দা
সহস্র বিষণ্ণ রাত পাড়ি দিয়ে
বাগানের অজস্র ফুল মাড়িয়ে বপন হয় একটি স্বপন!
সেই স্বপন ভাংতে কতক্ষণ?
একটি স্বপ্নের আয়োজনে বিভাজিত আপন -পর, মিত্র- দুশমন
যোজন বিয়োজনের নির্মম অধ্যায় পেরিয়ে, পৃথিবীর তাবৎ মোহ ত্যাগ!
দিকভ্রান্ত পাখির ভাগ্য নির্ভর ডানা মেলে উড়াল দেয়া অ-দিগন্ত পথে!
সেই স্বপন পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | ২৩ বার দেখা | ১৫৯ শব্দ ১টি ছবি
দিনলিপি
দিনলিপি
মন মন্দিরে
আজন্ম সন্ন্যাসের বাস
নির্ঘুম
দীঘল রজনী — ভবঘুরে দিবস
রোজ ফোটে ঘাস ফুলের আদলে
রোজ
ঝরে যায়
রোজ কাঁদে মন
বুকফাটা কটকটে তৃষ্ণায়! ঘোর তপস্যায়
পেরুচ্ছি কণ্টকময় পথ
উপেক্ষা করে
জগত সংসারের তাবৎ নিয়ম নীতি
মোহগ্রস্ত দিনলিপি শেষে
ফিরি
নিরবতায়, অশ্রুত কবিতায়। পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | ৮০ বার দেখা | ৩৪ শব্দ ১টি ছবি
নৈবেদ্য বিলাস
নৈবেদ্য বিলাস
ভুলে যাই
দমের পরতে পরতে তলিয়ে দিই উদ্বেগ
হারিয়ে যেতে দিই স্বপ্ন, বিপুলা আবেগ
দূরে বহুদূরে
সীমানা ছাড়ায়ে উড়িয়ে দিই দৃষ্টি
নামিয়ে আনি
মেঘের গভীরে লুকানো বৃষ্টি! প্রাণের উদ্যানে সবুজ মখমল
পুস্পিতার শিথান
নিঝুম মস্তকে
এঁকেবেকে বয়ে চলে নদী
কলকল ধ্বনি…
শুনি
পরিযায়ীর গান, নৃত্য মুখর ধ্যানী মুনি
তলাচ্ছি
ঝড়াচ্ছি
সুরের লহরে
ছন্দের জঠরে…
বিমোহিত ঘূর্ণিপাক রূপোলী হাতছানি! আহ… পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | ৪৯ বার দেখা | ৮৯ শব্দ ১টি ছবি
চল... বৃষ্টি মোহন জোছনায় নামি
চল... বৃষ্টি মোহন জোছনায় নামি
বৃষ্টি মোহন জোছনায় নামি
চলো
চোখের অতলে
টলকে উঠা নেশার মাদকতায়
চলো ভিজি,
যৌবনের উচ্ছল সম্মোহনে
চলো দু’জনে মিলে বৃষ্টি চুমি ! দেখো
শিউলি ঝরা উঠোনে বুদ বুদ নৃত্য
রতি মত্ত পতঙ্গের মত
মুঠো মুঠো জোছনা
আর
বৃষ্টির অদ্ভুত আলিঙ্গন! চলো ভিজিয়ে নিই
আগুনের হল্লামাখা বহুদিনের পুরনো দহন
ভিজিয়ে নিই বুকের শ্মশান,
উতলা চপলে কর্দমাক্ত জলে পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | ৪৫ বার দেখা | ৯৩ শব্দ ১টি ছবি
এটি কবিতা নয়
এটি কবিতা নয়
এটি কবিতা নয়
এই যে অক্ষর গুলো, শব্দগুলো
এ সবিই নিভৃতের কান্না
কালিমাময় বেদনা
অশ্রুতে কখনো কবিতা হয়না
এই যে দাড়ি কমা, সেমিকোলন
এসবিই দীর্ঘশ্বাসের অনুকম্পা ; মৌন প্রস্তরখণ্ডের আদিম আঘাত
মৃতের মতো শীতল
বৃষ্টিস্নাত পরিত্যক্ত ঝর্ণা প্রপাত। আর যাই হোক
এসব কখনোই পড়ুন
কবিতা | | ১টি মন্তব্য | ২৬ বার দেখা | ১০২ শব্দ ১টি ছবি
সিক্ত হব অমৃত সুরায়
সিক্ত হব অমৃত সুরায়
তুমি আরো কিছুদিন দূরে থাকো
আমি একটু বিরহে কাতর হয়ে নিই
আর একটু জ্বালাময়ী আকাঙ্ক্ষায়
হৃদয় খণ্ড বিখণ্ড হোক- –তারপর আরো কিছু কাল পর তুমি এসো
লালচে কালো শাড়ীটা পড়ে
মেকী হাতার ব্লাউজটার সাথে ম্যাচিং করে
চুল গুলো নরম খোপায় বেঁধে
জানো- তোমার খোপার নিচে খোলা পিঠ টুকু
যেনো পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | ২৯ বার দেখা | ১৫১ শব্দ ১টি ছবি
দেবী ও কবি ৩৭ (আজন্ম তপস্যার কথা)
দেবী ও কবি ৩৭ (আজন্ম তপস্যার কথা)
কবি,
তোমাকে পেয়েছি আমার আজন্ম তপস্যায়,
পেয়েছি জীবনের ঘোর অমানিশায় নিভু নিভু যখন জীর্ণ প্রদীপ;
তোমাকে পেয়েছি প্রাণের বিদীর্ণ চাতালে যখন বুভুক্ষুর আর্তনাদ
যখন বিদগ্ধ শ্মশানে পোড়মাটি ভেদ করে জেগে উঠল প্রেতাত্মা
দিগন্ত ছেদ করে যখন অবিরত বজ্রনিনাদ হলো উন্মাদ! তখন-
তুমি বিষাদের ক্লেদে ঢেলে দিলে পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | ১৭২৭ বার দেখা | ১১৬ শব্দ ১টি ছবি
মহা মহিমের চরণে
মহা মহিমের চরণে
মগ্নধ্যানে অমৃতের নিশিভোগ
জ্যোৎস্নার উঠোনে হাওয়াইনূপুর কলতান
মদিরা পূর্ণ সম্ভোগে
ছুঁয়ে যায় দ্রবীভূত রাগ নৃত্য মুদ্রায় অন্তরাত্মায়! বাল্মিকীর ঠোঁটে নির্বাণ তৃপ্তি
পথের বাঁকে চেয়ে থাকি নতুন দিনের আগমনে
এই তো
আজানের ধ্বনি মধুময় বার্তা দিয়ে গেলো দেরী করা উচিত নয়!
কৃতজ্ঞের শির নত করো মহা মহিমের পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | ৪৮ বার দেখা | ৪১ শব্দ ১টি ছবি
অঞ্জলি লহো হে কবি...
অঞ্জলি লহো হে কবি...
যেদিন আমি হারিয়ে যাব, বুঝবে সেদিন বুঝবে, অস্তপারের সন্ধ্যাতারায় আমার খবর পুছবে – কাজী নজরুল ইসলাম (মে ২৫, ১৮৯৯ – আগস্ট ২৯, ১৯৭৬), (জ্যৈষ্ঠ ১১, ১৩০৬ – ভাদ্র ১৪, ১৩৮৩ বঙ্গাব্দ), অগ্রণী বাঙালি পড়ুন
জীবন, ব্যক্তিত্ব | ১টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৫০ বার দেখা | ৪৪২ শব্দ ৪টি ছবি
বন্ধুহীন
বন্ধুহীন
বলেছো বন্ধু মুখে
ছিলেনা
দুঃখে কভু
ছিলে শুধু সুখে! বলেছো আপন
দিয়েছো জ্বালা
নিয়েছো মালা
দাওনি তবু মন। বলেছো বন্ধু
দেয়ার বেলায় বিন্দু দিয়ে
নিয়েছো কেড়ে সর্ব সিন্দু! দিন শেষে
নিজেকে পেলাম একা
অন্তহীন প্রান্তরে
বন্ধু বলে নেই কেউ
সর্ব শ্রান্তির অন্ধকারে! পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৫৫ বার দেখা | ৩৫ শব্দ ১টি ছবি
অন্তিম দৃশ্যাবলী
অন্তিম দৃশ্যাবলী
শুভ্রবসনে নিথর দেহ
কফিনে শুয়ে আছে লোকটি
না
তিনি নিজের ইচ্ছেয় শোয় নি
তাকে শোয়ানো হয়েছে,
তিনি এখন লোক নয়, মৃত্যু তাকে লোক থেকে লাশ বানিয়ে দিয়েছে
লাশের ইচ্ছের কোন সুযোগ নাই
বলা উচিত লাশটি রাখা আছে কফিনে
যিনি একজন মানুষ ছিলেন, অথবা পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৮২ বার দেখা | ৩৯৯ শব্দ ১টি ছবি
দেবী ও কবি ১০
দেবী ও কবি ১০
নিরাকার দহনে জ্বলছে কবি, নীল জলের উপর টলমলে প্রতিচ্ছবি
শত সহস্র প্রশ্নের তোড়ে জর্জরিত বিবেকের সাথে করছে অনর্গল বোঝাপড়া
দেবীর মুখোমুখি হতে আজ তার বড্ড দ্বিধা! জীবনের আর যৌবনের ঊর্ধ্বে যে দাবী
কবির সাধ্যের সীমানায় সেই আশা শক্তি নিতান্তই অপ্রতুল ফিরে যাবার সমস্ত পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৫৫ বার দেখা | ৩২৩ শব্দ ১টি ছবি
আত্মহুতি
আত্মহুতি
আমি চলে যাচ্ছি প্রস্থানের পথ ধরে, নিজেকে নিয়ে যাচ্ছি বাধ্যতামূলক অবসরে
তুমি থাকো দিগ্বিজয়ের নেশায় বুদ হয়ে আরো কিছু স্বপ্ন আঁকো। তুমি একা নও জৌলুশ ভরা জলসায় ; তোমাকে রেখে যাচ্ছি ভীড়ের নিভৃতে!
অনেকেই ফিরে গেছে আঁধার বনে, কেউ পড়ুন
কবিতা | | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৬৫ বার দেখা | ১৪১ শব্দ ১টি ছবি
ত্রিরত্ন
ত্রিরত্ন
(ক)
তোমার আত্মা হতে যেই প্রতিধ্বনি শুনি
আমি সেই সুর জানি
আমি চিনি তার রাগ, তাল
মৃদঙ্গ তালে আমি নাচি নিমগ্ন মাতাল। (খ)
তোমার আত্মার সুরে যাদু আছে
তোমার আত্মার সুর শুনতে শুনতে আমি কবি হয়ে যাই
জানিনা সেই আত্মায় এই সুখ আমার সইবে কিনা। (গ)
তোমার শিশির ভেজা বারান্দায় পড়ুন
কবিতা | ৩ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৬৬ বার দেখা | ৫৯ শব্দ ১টি ছবি