প্রভাবতী

বাজে নিহিত গর্জন; মেঘহীনা বাতাস যেমন, অকারণে মরে পড়ে থাকে মাকড়সার ফাঁদে! নীচে ঊষ্ণ রাজপথ ডুকরে ডুকরে কাঁদে, চিরঞ্জীব বনস্পতি ছুড়ে ফেলে অমরত্বের থলি, মধ্যরাতে ছেড়ে গিয়েছে আমাদের প্রিয় গলি! এখন অনির্বাণ শিখা তার দিচ্ছে অবশিষ্ট দহন, তুমি নাকি ছেড়ে যাবে এই প্রাক্তন শহর! একটা অদৃশ্য নদী এসেছিল ময়ূরাক্ষী চোখে, বলেছে সে এইসব গোপন খবর! … Continue reading “প্রভাবতী”

ভালোবাসার আরেক নাম স্বপ্ন

ওগো প্রেয়সী, ভালোবেসে সৃষ্টিকর্তা সৃজিয়েছে এই ধরা। ভালোবেসে কবি লেখে কবিতা, শিল্প আঁকেন কত শত ছবি। যেদিন তোমার হাত আমি ধরেছি সেইদিন থেকে আমি খুঁজে পেয়েছি অজস্র স্বপ্ন তোমার স্পর্শ আমার হৃদয়ে সুপ্ত স্বপ্নগুলো আজ জাগ্রত হয়েছিল। আমি তোমায় কেন প্রপোজ করেছিলাম জানো, কারণ আমি তো তোমার চোখে রঙিন স্বপ্ন দেখেছিলাম, তুমি ছিলে স্বাপ্নিক বলে … Continue reading “ভালোবাসার আরেক নাম স্বপ্ন”

ফাগুন মন বৃষ্টির অপেক্ষায়

ফাগুন মন বৃষ্টির অপেক্ষায়

আজও এক আকাশ মেঘ মহলে ঝড়ো বাতাস ছিল অনুভব করার মতো শুধু বৃষ্টি ছিল না, যদি এমন হয় কখনো টিপটিপ বৃষ্টি, কয়েক ফোঁটা বৃষ্টি বৃষ্টির ফোঁটায় বকুল ঘ্রাণ অবাক করেছে আমাকে, ফাগুন বেলা যায় যে বয়ে ভাললাগা স্পর্শ করেছে এই মনে। আষাঢ়ের প্রথম সকালের বৃষ্টি রিমঝিম বৃষ্টির ফোঁটায় কদম ঘ্রাণ অবাক করেছে আমাকে, মেঘলা বিকেল … Continue reading “ফাগুন মন বৃষ্টির অপেক্ষায়”

সমুদ্রে নুন খসে পড়ে

তোমাদের শহুরে কাগজে একটা কবিতা ছাপা হয়েছিল ভোরবেলা বারান্দায় দাঁড়ায়ে নীরব ঋতুতে পাঠ করি, শ্রমণ- একটা অক্ষর দুকদম টেনে দেখি পত্রিকার দেয়ালে ঝুলানো অল্প মজুরির ক্ষীয়মাণ দেহ-মুখ মুথাঘাসের মতো বিরান মাঠে শুয়ে আছে অশ্রুর ফোটা থেকে অধিক রক্ত, ঋতুর দিকে তাকালে মড়ক, অগ্নিগর্ভ, দীর্ঘঘুম ভাব মৃত্যু এসবে জমা হচ্ছে বন্দোবস্তকৃত প্রতিশোধের ঘটনা, প্রেম-প্রতিনিধিত্ব!

প্রচেতা

(১) এইতো সেদিন মাঘী পূর্ণিমার রাতে, তখন বুদ্ধের মুখে মাখা ছিল হাসি, জোয়ারের মতো রাশি রাশি! নাফনদী ধরে ভাসছিল অবিশ্রান্ত কয়েকশ ফানুস, হালকা আলোয় মিশে ছিল অন্ধকারে বেনামী মানুষ! বলেছিলে ফানুসের মতো বলেছিলে জোয়ারের মতো ভেসে যাবে ঠিক! কোথায় ভাসবে বলোতো, প্রশান্ত সাগরে? নাকি উত্তর সাগরে? কোথায় ভাসবে? যেখানে তাহিতি দ্বীপে পুরাতন চাঁদ স্নান করে … Continue reading “প্রচেতা”

আলিঙ্গন

দৃপ্ত প্রহরে পল্লবঘন বাসন্তী লতার নিচে, দীর্ঘ প্রতীক্ষা, প্রিয়জনে একটু আলিঙ্গনের জন্য। কখন আসবে সেই কাঙ্ক্ষিত প্রিয়জন, মনের মাধুর্য মিশিয়ে কখন করবে আলিঙ্গন, শুধু সেই প্রতীক্ষা। কত জন এলো গেল এই পদ্ম দীঘির ধারে, আর কত জনই বা আসবে, ঐ পদ্ম দীঘির জলের ধারে দাঁড়িয়ে থেকে আলিঙ্গনের অপেক্ষায় বিরহ অনলে বুকে নিয়ে আর কত জনই … Continue reading “আলিঙ্গন”

নির্বাসিত জীবন

আমায় যদি গো তোমরা নির্বাসন দাও, তবে দিয়ে ঐ হিজলতলীর দ্বীপে, একাকি নির্জনে বসে থাকব প্রকৃতির সাথে, বসন্তের দিনে পত্র ঝরা পলাশ বৃক্ষের নিচে। বসন্তে কোকিলের সাথে মনের অভিলাষে গান গাইব। বিকালে লুকোচুরি খেলব ঐ গগনের কালো মেঘের সাথে, নির্বাসিত জীবনে একাকিত্বের জন্য যদি মনে বিষন্নতা আসে, তাহলে সন্ধ্যা বেলায় পাহাড় পাদদেশে বসে শুনব, ঝাঁকে … Continue reading “নির্বাসিত জীবন”

ভালবাসা

এই যে আমি মারা যাচ্ছি এই যে ফুলের ডালি নিয়ে দাঁড়িয়ে আছ আমার নাকে সুবাস পৌঁছাচ্ছে না ইতোমধ্যে মারা গেছি। ফুল নিয়ে আসবে জানতে পারলে আরো কিচ্ছুক্ষণ যুদ্ধ করতাম। আমার জন্য কারো বুকের অতলে কান্না আছে এই বোধ যুদ্ধের শক্তি যোগাত। তোমার কান্না অসময়ে এল অহেতুক খরচ হল কিছু কড়ি, পুষ্প বিলাস কোন কাজে আসলো … Continue reading “ভালবাসা”

প্রলয়ঙ্করী

আমার তীব্র জলোচ্ছাসে তোমার বিতাড়িত উচ্ছ্বাসে, এই রাগিণী সোহাগী ঘর ভয়ে কাঁপে থরথর! নন্দিত অমৃতে প্রত্যয়ী পিতা বাঁচাতে চেয়েছিল মৃতে, সেই দাপুটে ঘোড়ার বিশ্বাস কেন দিচ্ছেনা আশ্বাস? যা ভাবতে চাইছ ভাব আমি না হয় মহাসমুদ্রই হবো, রুপালী আইশে করাতের সাথে সূর্য্যকে গিলে খাবো! আমার মিথ্যারা জড়সড়, তুমি যতোই জড়িয়ে ধরো, প্রেমের হিংস্র শপথ, ঢেকে রাখে … Continue reading “প্রলয়ঙ্করী”

হেসে খেলে আবার রঙিন

হেসে খেলে আবার রঙিন

নেই আনন্দ নেই যে হর্ষ এসেছে ফের নতুন বর্ষ; চারিদিকে করোনার ডর আসে কভু বৈশাখী ঝড়। মাস্কটি পরে সবাই চলে রাস্তা ঘাটে দলে দলে। মুখ সকলের কী বিমর্ষ এসেছে ফের নতুন বর্ষ; আম্র কানন গন্ধে ভরা, মৌমৌ গন্ধ আকুল করা। গা ছুঁয়ো না, রহো দূরে একি দশা দেশটি জুড়ে। লকডাউনে দেশটি অচল খুশি সবার হয় … Continue reading “হেসে খেলে আবার রঙিন”