ফেব্রুয়ারী ২০২১ বিভাগের সব লেখা

পাপ
পাপ
পাপ!
বাপরে বাপ! এ-তো এক অভিশাপ!
পাপে হয় সাজা, পায়না তো মাপ!
পাপ!
যেন বিষাক্ত কালসাপ! সীমা ছাড়ালে পাপ!
সাজা হবেই হবে, যদিও হয় পাপের বাপ!
পাপ!
কেউ পায়নি মাপ, যদিও হয় বাপের বাপ!
পাপে ক্ষমা বুঝে-না, তাই করেনা মাপ! পড়ুন
কবিতা | ৯ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১৬৫ বার দেখা | ৩২ শব্দ ১টি ছবি
মাতৃস্নেহ
মাতৃস্নেহের কি তুলনা আছে?
সেই স্নেহকে মিথ্যা প্রমাণ করার জন্য
নিন্দুক ঘোরে মায়ের পাছে পাছে। ওরে নিন্দুক একটু এগিয়ে এসে শোন
যদি মাতৃস্নেহ মিথ্যা প্রমাণ করতে পারস
স্বপ্নভরা পৃথিবী দেব আরো দেব রাজকুমারী বোন। এই পৃথিবীর পড়ুন
কবিতা | ৫ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৪৯৫ বার দেখা | ১৭২ শব্দ
তবুও কোথাও কেউ নেই
কোথাও কেউ নেই
তবু্ও
কেউ কেউ থাকে
অনুভবে, অস্তিত্বে,
কেউ কেউ থাকে আশা জাগানিয়া।
নিভু নিভু প্রদীপ
পূনর্বার জ্বলে উঠতে
আচমকা আবির্ভূত হয়
অমূল্য জ্বালানি হয়েও কেউ কেউ।
কেউ কেউ পাশে থাকে
সাহস হয়ে,
অদম্য শক্তি যোগায়
ঘুরে দাঁড়াবার প্রত্যয়ে।
নিঃস্বার্থ ঢাল হয়েও
পাশে থেকে, সাথে রেখে
বাঁচিয়ে রাখে শ্বাস কেউ কেউ। তবুও যেন কোথাও কেউ নেই। পড়ুন
কবিতা | | ৮ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৪১৪ বার দেখা | ৪৩ শব্দ
আলোহীন জগত
আলোহীন জগত
গরিবের সন্তান বড় হয় এতিম খানায়
বড় লোকের মা-বাপ মরে আশ্রয় কেন্দ্রে।
মাওলা এ কেমন জগত বানাইলা বুঝি না
বুঝি না মাওলা তোমার এ কেমন খেলা। ব্যথা পাবো বলে বাপে কোন দিন চিমটি কাটে নাই
সে পড়ুন
কবিতা | ৫ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ২২০ বার দেখা | ১৩৩ শব্দ ২টি ছবি
গহন কুসুম কুঞ্জ মাঝে
গহন কুসুম কুঞ্জ মাঝে
কখনো দেখেছ রাতের তারাদের বদলে যাওয়া? কখনো বদলে যেতে দেখেছো আকাশের চাঁদ কে? কিংবা চলতে ফিরতে কখনো খেয়াল করেছো চারপাশের দৃশ্যপটগুলো কিভাবে বদলে যায়? সন্ধ্যায় আগে পাশের বাড়ির আমগাছে রোজ কত পাখি এসে বসতো। কত পাখি বাসা বানাতো, সংসার পাততো, পড়ুন
জীবন | ৩ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১১৯২ বার দেখা | ২৩৮ শব্দ ১টি ছবি
ভালো থাকা না থাকা
ভালো থাকা না থাকা
ভালো থাকা না থাকা বলেছিলে, ভালো থেকো।
কথা দিয়েছিলাম ভালো থাকব। দুপুরের টানা ভাতঘুম শেষ হলে
ফুটপাথ গা ঝাড়া দিয়ে চলতে শুরু করলে
বসে থাকা অলস শালিখ টাল খায়
ডানা ঝাপটিয়ে উড়ে যায় পতপত। ভাবনারা আজও ব্যালেন্স শেখেনি,
হাঁটতে হাঁটতে জিভ গলা শুকালেই
মরুভূমি উদয় হয় রসালো শহরেই। যতই দিনরাত্রির পড়ুন
কবিতা | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১৪৮১ বার দেখা | ৬৩ শব্দ ১টি ছবি
মৌ চাক
মৌ চাক
প্রায় প্রতিদিন লোভ লাগে
মৌ চাকে
হস্তক্ষেপ করে চমকে দিই নৈসর্গের উদ্যান!
সর্বদা মিসমিস করা ছোঁয়ার স্নায়ু,
অহর্নিশ
জাগিয়ে রাখে অন্তস্থ নির্বাণ
আস্ত পাহাড় টলিয়ে দেয়ার উত্তেজনায়।
তোমাকে দেখি
অনুপম উৎকর্ষে- গানে ও গমনে,
মনোরম বাগানের স্ফুটিত ফুলের সুষমায়।
আমারও মনে উৎফুল্ল জাগে
চরম!
লোভ লাগে টাটকা মধু সূদনে
একবার আপাদমস্তক মাতাল হই!
চমকে পড়ুন
কবিতা | | ৩ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১৮০১ বার দেখা | ৫১ শব্দ ১টি ছবি
আমিও একদিন বসন্ত হবো
তোমাকে আমার ভালো লাগে; তারচেয়েও বেশি সঠিক “ভালোবাসি”
ভালোবাসি, তবে তোমাকে তা বলা হবে না কোনো দিনও
ভালোবাসি বলেই সম্মোহিত করে ছিনিয়ে নিতে চাই না।
যার গোলাপ ভালো লাগে সে তো গোলাপকে ছিঁড়ে নিয়ে যায়
যে গোলাপ ভালোবাসে সে তো গোলাপের গাছে পানি ঝরিয়ে দেয়
ভালোবাসি বলেই পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১৫৯ বার দেখা | ১১৬ শব্দ
বসন্ত কবিতা
বসন্ত কবিতা
হাঁটতে- হাঁটতে উপলব্ধি করলাম
সেই বসন্ত হাওয়া দোলে- দোলে গেলো-
কিছুতেই আলিঙ্গন করতে পারলাম না!
দুঃখটা ওখানেই- সেতো এতটুকু বুঝল না-
ফিরেও তাকাল না, উড়া বসন্তের আকাশ;
এখন চলতে- চলতে বসন্ত একটু হাসে উঠে মুচকি হাসের আড়ালে দাঁত ঝিলিক মারে
এই না হলো বসন্ত জুড়ে চোরা বাতাস;
অনূভবে পড়ুন
কবিতা | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১১৬৩ বার দেখা | ৭০ শব্দ ১টি ছবি
গল্পঃ চরিত্রহীনা
গল্পঃ চরিত্রহীনা
মহুয়া খুব গুছিয়ে ঠোঁটের রংটা ঘষে নিলো। চোখের কাজল,কপালের টিপ,মুখের রং আগেই মাখা হয়ে গেছে। ঠোঁট যেহেতু আগেই আঁকা ছিলো তাই শুধু রংটা লাগিয়ে নিলো। ব্যাস। আজ আর খোঁপা করেনি সে। সাধারণ বেনি করেছে। লাল হলুদ শাড়িতে আজ তাকে কনে পড়ুন
গল্প | | ১টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১৪২৪ বার দেখা | ২৪১৪ শব্দ ১টি ছবি
ভাষার জন্য
ভাষার জন্য
বাংলা আমার মায়ের ভাষা
জনম থেকে জানি,
সেই ভাষাতে হাত দিল ওরা
হায়েনা পাকিস্তানী। বাংলা মায়ের দামাল ছেলে
ভয় করেনি কভু,
হাসতে হাসতে ভাষার জন্য
জীবন দিলেন তবু। সংশপ্তক ছিলেন তারা পড়ুন
কবিতা | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১০৯ বার দেখা | ৮৩ শব্দ ১টি ছবি
ধূসর গোধূলি
ভুলের বনে ফুল ফুটাতে চেয়েছিলাম
ভুলের আঁধারে আমি হারিয়ে গেলাম
ভুল করে ছিলাম আমি তোমায় ভালোবেসে
এখন আমার দিন রজনী কাটে কেঁদে কেঁদে।
বুকের জমানো ব্যথা গুমরে কাঁদে
আঁখি জলে ভেসে যায় ঝর্ণা হয়ে।
ভুলের বালুচরে বেঁধে ছিলাম বাসা
অচেনা মরুর ঝড়ে ভেঙ্গে দিল আশা
কেন যে এমন হলো কেউ জানে পড়ুন
কবিতা | ৮ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১৪৩৩ বার দেখা | ৭৯ শব্দ
জাগো চরবাসী জাগো
জাগো চরবাসী জাগো প্রতিদিন হতাশার কালো চিল আমার হৃদয়ে ডানা ঝাপটে চলে যায়। কিন্তু আমাকে ধরতে পারে না। একদিন ছিল।
কঠিন সে দিন।
মঞ্চে স্বরচিত কবিতা আবৃতি করতে হবে বলে ছুটে যেতাম ধ্যাধধেরে ছ্যাঙার চরে।
গিয়ে দেখতাম যে ছেলেটা আমার কবিতার ভক্ত সে আয়োজকদের সাথে ঝগড়া পড়ুন
অন্যান্য | ৭ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১৩৯১ বার দেখা | ১৬১ শব্দ
আলো আর আঁধারে
আলো আর আঁধারে
পূর্বের সূর্য পশ্চিমে পড়ছে হেলে,
আলো তার নিভু নিভু–
যেন রাতের আঁধার দিয়েছে ঢেলে!
সন্ধ্যায় নেমেছে রাতের কালো আঁধার,
নেই জোনাকির আলো–
বিজ্ঞানের কারিশমায় আলো-আঁধারে একাকার! ছবি শীতলক্ষ্যা নদীর মাঝ থেকে পূর্বপাড়। পড়ুন
কবিতা | ৩ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১৭২ বার দেখা | ২৭ শব্দ ১টি ছবি
হানিবি
রজনীরে বহুবার বলেছি দিওনা বিরহ
আমি দিনকাতর মানুষ
আমি ফুল শুঁকি প্রাণের ঘ্রাণে
রুটি আর মধু সহযোগে
আমি জলের উৎসে দাঁড়াই
মধু থেকে করি মোমকে আলাদা আর
নিজেই গলে যেতে থাকি
ভেতরকার সলতে থেকে মুহুর্মুহু জ্বলে দাবানল রজনীকে বলি বিরহ দিওনা
অথচ সে যেন পড়ুন
কবিতা | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১৪৯ বার দেখা | ৮৪ শব্দ