ডিসেম্বর ১২, ২০২১ বিভাগের সব লেখা

জীবন চক্র
জীবন চক্র
দু’চারটে চুলের বয়স হয়েছে
মাথাও মাঝে মাঝে ঝিমঝিম করে
পা দুটো ব্যাথার সাথে সখ্যতায় মজেছে
গোঁফ-দাঁড়িও সাদা রঙে হলি খেলছে
বয়সটা ধীরে ধীরে হারিয়ে যাচ্ছে সময়ের চিলেকৌঠায়, বউ-বাচ্চা আর সংসারের টানাটানিতে
রাতদিন পরিশ্রম করে
দু’চার পয়সার পিছনে ছুটতে ছুটতে
কবে যে আসলাম সময়কে পিছনে ফেলে
টেরই পেলাম পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১৯৬ বার দেখা | ৭৩ শব্দ ১টি ছবি
আলেম ভার্সেস আলেম
এখন ওয়াজের মৌসুম শুরু হয়ে গেছে, গ্রাম-গঞ্জ, শহরের জায়গায় জায়গায় ওয়াজের নামে কিছু সুরওয়ালা গায়কের আবির্ভাব হবে, এদের বয়কটের উপযুক্ত সময় এখনই। ধর্ম সম্পর্কে জানার জন্য ওয়াজ মাহফিলে যাওয়ার আগে যার ওয়াজ শুনবেন তাকে জানুন। খোঁজ নিন তার জ্ঞানের পরিধি কতটুকু তারপর যান, অমুক পড়ুন
প্রবন্ধ, সমাজ | , | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১৬১ বার দেখা | ৬৮৮ শব্দ
চন্দ্রাহত
চন্দ্রাহত প্রতিটি উড়ালের আগে পাখিকেও শিখতে হয় আকাশের ভাষা। শিল্পিত আঁচড়ের টানে
আঁকা হোক বা না হোক নাম
কি আসে যায়?
আকাশে কেউ লিখে হা-হুতাশ,
জলের গোপনে হাত রেখে
কেউ খোঁজে পাথরের নুড়ি। স্মৃতি থেকে তুলে আনছি কেবলই খড়কুটো;
যদি বাসা বোনা যেতো কোন
পাখির আদলে! বালি-পাথরের হৃৎপিন্ডে রক্তক্ষরণ হচ্ছে,
লুনাটিক হয় কেন কল্পবিলাসী মানুষ? পড়ুন
কবিতা | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৯৩৯ বার দেখা | ৪৩ শব্দ
শূন্য পৃথিবী
ঘেন্নার আকাশ
আমরা বসে তার ছায়ায়
পাপীরা হাঁটে
চারদিকে আগুনের ঘ্রাণ বড় হচ্ছি
বোকা যুবকের মতো
ঈশ্বর! বেরিয়ে আসুন
গুহামুখ বড় অন্ধকার ফুল! ফুল ভর্তি পৃথিবী
তবু বৃথা যায় রাতপ্রার্থনা
জল-জন্মের গান
শুধু বোকারাই বাঁচতে জানে জ্বলছে -সোনালী লণ্ঠন
শুধুমাত্র মদের গ্লাসই চির সত্য নয়
একটা নগ্ন হাত ডাক দেয়-
শূন্য! শূন্য পৃথিবীর ভেতর। পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১২৩ বার দেখা | ৩৯ শব্দ
মানব জীবন
মানব জীবনে কিছু রোগ ধীরে ধীরে শরীরে বসতি স্থাপন করে যেমন স্লো পয়জন। কিছু রোগ তাদের কর্ম দ্বারা শরীরকে আবৃত করে। অবশেষে রোগটি শরীরকে গ্রাস করতে থাকে পরিণত মৃত্যুর দিকে নিয়ে যায়। আমাদের শারীরিক অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ নড়াচড়া থেকে অচল হয়ে পড়লে, জীবন থেকে ফেলে আসা কিম্বা পড়ুন
জীবন | ১টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১০৩ বার দেখা | ১৮৩ শব্দ
অপর পৃষ্ঠা
প্রতিদিন একই পৃষ্ঠা বারবার উল্টাই
এক পা, দুই পা করে জলের উপর হাঁটি
পা ডুবে কি ডুবে না সেইসব বহুতদূর
একই পৃষ্ঠায় শুরুতে যেমন ছিলাম
এখনো কিছুতেই কাটছে সেই ঘোর! অথচ কত না বিস্তৃত সাগর নদী হয়
কত না সংখ্যা অংকের প্রতিনিধি হয়
তবে আমার কেন কাটে না পৃষ্ঠার ঘোর
যে ছিল পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১১১ বার দেখা | ৬৩ শব্দ
সেই মহাপুরুষ
নগরের মানুষের ব্যস্ততা বড় বেশি
তারা এদিক যায়; সেদিকে যায়
অকারণ দিক-বিদিক ঘুরে বেড়ায়।
তাদের হাতে অফুরন্ত সময়
তারা গল্পগুজব, আড্ডায়
সময়কে অসময়ে পর্যবসিত করে। নগরের মানুষেরা গায়ে হাওয়া
লাগিয়ে বেড়ায়। বাজারে, চায়ের
দোকানে; অহেতুক হাওয়া কথা বলে
বাতাস উত্তপ্ত করে। ঈশানের কোনে
কালো মেঘ জমা হচ্ছে। দেখা যাচ্ছে
ঝড়ের পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১৬২ বার দেখা | ১৪৬ শব্দ
ফিদেলের জন্য পদ্মমালা ♦
বুকপকেটে আমরা যে রক্তজবা লুকিয়ে রাখতাম-
তা অনেকেরই নজর কাড়তো না। কিংবা যে সূর্যকে
বশ্য বানাবো বলে কোমরে ঝুলিয়ে রাখতাম কোমল ইস্পাত,
তা ও বার বার থেকে যেত রোদের অগোচরে,
অথচ ঢাকার রাজপথ কিংবা বলিভিয়ার জঙ্গল
সবই ছিল আমাদের নখদর্পণে, ছিল লালকালিতে
আঁকা ঝড়ের রোডম্যাপ। আমরা হামাগুড়ি জানতাম ঠিকই, কিন্তু মুছে
ফেলেছিলাম পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ২৮৪ বার দেখা | ১১৬ শব্দ
মন মাঝি
৪৪/৪৪/৪১ স্বরবৃত্ত নায়ের মাঝি গাঁয়ের মেয়ে
সবাই তাকে দেখে চেয়ে
প্রেম বিরহে মন,
জোয়ার আসে ভাটার টানে
সুখের উল্লাস দুঃখের গানে
ভাবে প্রতিক্ষণ। পাখির গানে মুগ্ধ করে
শক্ত হাতে হালটা ধরে,
করে না তো লাজ,
আসবে কবে মনের মানুষ
তার খোঁজেতো উড়ায় ফানুস
এটাই যে তার কাজ। মনের মধ্যে সুজন পড়ুন
কবিতা, ছড়া ও পদ্য | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১০৬ বার দেখা | ৬২ শব্দ