নভেম্বর ৫, ২০২১ বিভাগের সব লেখা

মরসুমি
মরসুমি ফুলের বাগান দিয়ে
মেয়েটির যাওয়া আসা।
দূরে সাতকাহনের পাড়া,
চত্ত্বর ভরা ঝুমকোলতার টিপ্,
বালুকাবেলায় পড়ন্ত আলো। রাস্তার দু’ধারে মোরগফুলের ঝাঁক
আলো নিভু নিভু হয়ে আসে,
মেয়েটির ত্র্যস্ত পায়ে নূপুরের নিক্কণ।
ভেসে আসে শঙ্খের আওয়াজ
সে বাড়ির পথে ক্রমশ মিলিয়ে যায়। পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৫২ বার দেখা | ৩২ শব্দ
গল্পঃ গল্প উৎপাদন
”গল্প লেখা মোটেও কঠিন নয়, পুরস্কারের জন্য গল্প লেখা তো আরও সহজ। কলম আর এ ফোর সাইজের দুটো কাগজ নাও, ফরমুলা শিখিয়ে দিচ্ছি’ বলে নোমান থামে, প্যাকেট থেকে সিগারেট বের করে ধরায়, লম্বা একটা টান দিয়ে মাছের খাবি খাওয়ার মত করে ধোঁয়া ছেড়ে হাওয়ায় পড়ুন
গল্প | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৬১ বার দেখা | ২২৬৭ শব্দ
ক্যাটায়ারের ক্যাটগুলো ♣
ক্যাটায়ারের ক্যাটগুলো ♣ দারোয়ানরা তাহার ঘাড় ধরিয়া বাহির করিয়া
দিতে দিতে বলিল, তুমি তাড়াতাড়ি চলিয়া যাও।
‘আই এম দ্যা গ্রেট, আই এম দ্যা গ্রেট বলিতে বলিতে
সে বাহির হইলো। এবং বলিল, তাহারা আমার হাতে
ধরে নাই। পিটাইতে পারিত। তাহাও করে নাই। বরং
সম্মানের সাথেই বাহির করিয়া দিয়াছে। অথচ এই সিনারিও পড়ুন
অন্যান্য | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ২৭৪ বার দেখা | ১৯০ শব্দ
তাদের যৌথ জীবন
দেবী দক্ষিণের চরণে অর্ঘ্য ঢেলে
নিঃস্ব হয়েছিল মিস্ত্রাল
তার কি কোন দুঃখ ছিল!
নিজেকে উজাড় করে
ফকির হওয়া, এও কি নিজস্ব বাঞ্ছা! দক্ষিণের জানালায় যাবতীয় সুখ;
দখিন বাতাসে মন জুড়িয়ে যায়,
দক্ষিণ প্রতিভাত হলে মিস্ত্রাল জেগে উঠে।
সংসারের একঘেয়েমি মৃত্যু নিয়ে এলে;
দক্ষিণের এক চিলতে হাসি
টেনে নিয়ে পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৭৭ বার দেখা | ৭৭ শব্দ
খড়ির ভাগ্য
খড়ির ভাগ্য
বাড়িতে আগে দেখেনি তাকে,
সে কেগো মা, জিজ্ঞাসি মাকে।
এ কি, মানুষের নাম, ‘খড়ি’ ?
তোর কি তাতে, জ্বালায় মরি। মা যে বিরক্ত, করি প্রস্থান,
ভাবি, আমারই নেই জ্ঞান।
চাঁদ দেখি, বসি জানালেতে,
মা পাঠালে দুধ, খড়ির হাতে। খাবে এ তুমি, বলি আমি হেসে,
মুখখানি তার হলো ফ্যাকাসে।
জোর করে পড়ুন
ছড়া ও পদ্য | ১টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৪৬ বার দেখা | ১২৯ শব্দ ১টি ছবি
কিছু আচ্ছাদন থাক
কিছু আচ্ছাদন থাক প্যাস্টেল পটচিত্রে মোড়ে যাক
দেয়ালের বুদবুদ ওঠা নোনাক্ষতগুলো। বেজে যাক যুথবদ্ধ নান্দনিক শব্দের ম্যাজিক
উঠুক করতালে ঝমাঝম ধ্বনি
চকচকে ব্লেডের ধারে কাটা আঙ্গুলের ডগা
ধ্রুপদী তালের কিছু রাগরংয়ে ঢাকা পড়ে থাক।
শোণিতস্রোতের ফল্গু বয়ে যাক গোপনে গোপনে। প্যাডলকে হাত রেখে চাবি খুঁজে না পাওয়ার মতো
অনুচ্চারে আটকে যাওয়া কথাগুলো
বাতিল পড়ুন
সাহিত্য | ১টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৪৯৪ বার দেখা | ১০৩ শব্দ
নারী, আজো বন্দী
ভগবান কেমন করে গড়েছেন
আমায় অথবা তোমায়,
সে খবর আমার জানা নাই,
সে খবরে আমার কোনদিন ছিলো না মন,
তবে দশ মাস কষ্টের গর্ভধারণ,
খেয়ে না খেয়ে সৃষ্টির লালন পালন,
এ শুধু তোমাতেই পাই, নারী,
মা আমার, গর্ভধারিণী মা। সৃষ্টির উষা লগ্নে বীজ থেকে গাছ,
মাটির পড়ুন
কবিতা | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১৮০ বার দেখা | ১৩১ শব্দ
আপন ঘর
আপন ঘর
আপন কুটির ছোটো হলে
আপনজনে রয়,
মন আনন্দে নেচে গেয়ে
থাকে নাকো ভয়। আপন কুটির খড়ের ছাওনি
রয়েছে মোর সব,
সেথায় আছে স্বাধীনতা
নাহি কলরব। ইট পাথরের দালান দিলাম
সুখ যে তাতে নাই,
এমন প্রাসাদ থাকার চেয়ে
নাহি ভালো ভাই। চড়ুই পাখির মতো পরের
ঘরে থাকা সুখ,
বাবুইপাখির আপন বাসায়
সহ্য করে দুখ। আপন হাতের তৈরি পড়ুন
কবিতা, ছড়া ও পদ্য | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৭৬ বার দেখা | ৪৮ শব্দ ১টি ছবি
এক ঘড়া বিশুদ্ধ প্রেমে সাত সমুদ্র তের নদী ডুবে গেছে
এক ঘড়া বিশুদ্ধ প্রেমে সাত সমুদ্র তের নদী ডুবে গেছে
সেদিন কৃষ্ণচূড়া স্বপ্ন ঘুম ভেঙ্গে নিঃশব্দ কবাঞ্চ ভোরের ঠোঁটে
দেখি’নি ঘাস বুকে
এক ফোঁটা শিশির
অন্তহীন ভোরের নীড় ছেড়ে ভয়ার্ত শীতেরা রোদ
পোহাতে গেছে,
পৃথিবীর ভূগর্ভে বেড়ে ওঠা দারুচিনি দ্বীপে
অভিমানী শিশির জমে গেছে ঘাস ঠোঁটে
চোখে পড়েনি –
আমি দূর থেকেই অচেনা শহরটাকে দেখেছি
শিশিরের চেয়ে ও নীরব পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১৬৯ বার দেখা | ৬৪৩ শব্দ ১টি ছবি