জুলাই ৭, ২০২০ বিভাগের সব লেখা

চলে যেতে হবে
চলে যেতে হবে
==============================♣
অনেক দিনের চেনা মানুষ গুলো
ঠিক যেন শুকনো পাতার মতো
টুপ টাপ ঝরে পরে সম্পর্ক্য এর বাঁধন ছিঁড়ে। প্রতিটি চৈত্র দিনের শেষে সন্ধ্যা নামে
ক্লান্ত পায়ে হেঁটে আসা বালকের মত। আকাঙ্খার নদী পথ ভুল করে
আমার কবিতার পাতায় ভিন্ন স্রোতে
সমুদ্রের পা ছুঁয়ে চলে যায়। সৌরভিত সুখ অজানা পড়ুন
কবিতা | ৩ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৭৫৬ বার দেখা | ১৪০ শব্দ ১টি ছবি
আমার গাঁয়ের মাটি সোনা সম খাঁটি গাঁ আমার মাটি আমার (তৃতীয় পর্ব)
আমার গাঁয়ের মাটি সোনা সম খাঁটি
গাঁ আমার মাটি আমার (তৃতীয় পর্ব)
কলমে-লক্ষ্মণ ভাণ্ডারী গাঁয়ের মাটি পবিত্র খাঁটি
এই গাঁয়ে করি বাস,
এই মাটিতে ফসল ফলে
সুখে থাকি বারো মাস। গাঁয়ের মায়া সবুজ ছায়া
পাখি ডাকে গাছে গাছে,
বহিছে সদা অজয় নদী
আমার গাঁয়ের কাছে। দিঘির জলে পড়ুন
কবিতা | ৩ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১১২ বার দেখা | ৭৭ শব্দ ১টি ছবি
রঙ
রঙ
আকাশের রঙ দেখতে খুব ইচ্ছা হয়!
কিন্তু শূন্যতা চারধার- তবুও আকাশ
ভাসছে –ভাসছে যত রঙ ছড়িয়ে;
ঠিক দৃষ্টির সীমানায়! ধরতে চাই পারি না-
কারণ কল্পনায় যেনো ওতো শক্তি নাই; অথচ প্রতিনিয়ত রঙ পরিবর্তন হচ্ছে
আমরা আকাশটাকে বুঝি না, চেষ্টাও করি না
যত অসুখের ভান করে ভাবতে পড়ুন
কবিতা | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১৬৫৮ বার দেখা | ৫৮ শব্দ ১টি ছবি
আমাকে যেতে দাও
_______আমাকে যেতে দাও স্বাধীনতা আজ, বিমর্ষ যন্ত্রণা! মুক্তির আশফলন
মৃত্যুর মরীচিকা যেন;
কদর্য লেহনে, ঘুরে বেড়ায় দেশ হতে দেশান্তর
প্রেম আজ মৃত্যুর শোক গাঁথা, অশ্রুজল
অবিরাম ভিজে! মৃত্তিকা পান করে শোষণে। আমাকে যেতে দাও, সেই মৃত্যুর মিছিলে
শবদেহ আর সাদা কাফনে!
মুক্তির স্বাদ; অতল তলে হারিয়ে যাক, লুকিয়ে যাক
ডুবে যাক অপর পড়ুন
কবিতা | | ৫ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১৯৮৪ বার দেখা | ৬৬ শব্দ
রাস্তা
রাস্তা
নুড়িগুলো সরে গেলে
পড়ে থাকে লালরঙা
রাস্তার কঙ্কাল:
দুপাশের রোয়া ধান
আল বিভাজনের
সাম্প্রদায়িক মনোভাবে
অবসন্ন, ক্লান্ত:
একখান রুটি চেয়ে
চাষাভুষো ছেলে
ছুটে যায় ক্রমাগত
দেহবেচা রমনী ছায়ায়:
বাপ তার মরেছে
ঋণের দায়ে গতসনে:
কোনো ঘাস কুটিপাটি
অমল হাসিতে
কোনো ঘাস খড় হয়ে
অকাল স্বর্গবাসী:
রাস্তাটা ছুটে গেছে
শহরের কানা গলি খোঁজে
ছড়ানো অঢেল নাকি
ফুটপাতে আলোর পেছনে। পড়ুন
কবিতা | ৩ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১৮৭৬ বার দেখা | ৪০ শব্দ ১টি ছবি
ইকোনো মুখের নৈঃশব্দ্য
বহুদিন পরে নির্লিপ্ত নীরবতা ভেঙে
জিরাফের মতো দাঁড়ানো
চিরায়ত হরিণ ঋতুর ধূসর জাগানো ব্রক্ষ্মপুত্র মন তরঙ্গ শুনেছ? কিংবা রু রু সুর
ডিগবাজি মালটা রোদের কোলাজ
ক্রমশ চলে, গহীন স্পর্শের ভেতর;
কয়েক পর্ব শেষে
একটা ইকোনো মুখের নৈঃশব্দ্য দেখা যায় দূর ট্রেন হাওয়া কেটে কেটে
অদৃশ্য ধারাপতনে একটা আষাঢ়
ভাগ করে বনবিহারী গাছ
সাঁতার কেটে চলেছে আউশের সুবাস
ঘুমোয়নি পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১৮৫ বার দেখা | ৪৭ শব্দ