ছড়া ও পদ্য বিভাগের সব লেখা

দুঃখে-সুখে মিল-বুকে রই
গাছগাছালির ভীড়ে,
রহিম রাম আর আমার বাড়ি ইচ্ছামতির তীরে।
নদীর জলে মদির সুখে সব ভেদাভেদ ভুলে,
সাঁতার কাটি সাম্যগাঁথার ছন্দে তুফান তুলে। ঈদের দাওয়াত পেয়ে,
আয়েস করে সেমাই পায়েস সবাই আসি খেয়ে।
সরস্বতী-দুর্গা-কালী- লক্ষ্মীপুজো এলে,
সবাই মিলে খুশির নীলে বেড়াই ডানা মেলে। বিকেলবেলায় মাঠে,
খেলার মেলায় সুখের ভেলায় সবার সময় কাটে।
হারুণ-হাবিব-সমর-সুজয় দারুণ ভালবেসে,
একসাথে পড়ুন
ছড়া ও পদ্য | ৬ টি মন্তব্য | ১৬১ বার দেখা | ৭৭ শব্দ
একটি শিশু
একটি শিশু
একটি শিশু
অনেক কিছু
সম্ভাবনার কুঁড়ি
ঘুরছে চাকা
ইঁচড়ে পাকা
স্বপ্ন দুচোখ জুড়ি। একটি কুঁড়ি
স্নেহের ঝুড়ি
ফোটবে সুবিমল
নিকষ রাতে
আলোক হাতে
দ্বীপ্তি ঝলমল। নাইরে তুল
একটি ফুল
মায়ার আবেশ পাক
হাঁটতে শেখা
আলোক রেখা
নতুন দিনের ডাক। পড়ুন
ছড়া ও পদ্য | ৬ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৩১৬ বার দেখা | ৩১ শব্দ ১টি ছবি
মুজিব-বন্দনা
মুজিব মানে জাতির পিতা – বন্ধু বাঙালীর,
আপোষবিহীন বিদ্রোহী এক বীর।
মুজিব মানে বাংলাদেশের চিরসবুজ নেতা,
স্বদেশপ্রেমিক – জন্ম স্বাধীনচেতা। মুজিব মানে মায়ের হাসি- বাবার ভালবাসা,
ভাইয়ের -বোনের স্বপ্ন-আলো-আশা।
মুজিব মানে বাঁচতে শেখা- চলতে শেখা পথ,
ভালবেসে মরার সাহস সৎ। মুজিব মানে জল থৈ থৈ নদীর কলতান,
দোয়েল-শ্যামা হাজার পাখির গান।
মুজিব মানে সবুজ-শ্যামল বাংলাদেশের মাঠ,
শাপলা-ঝিল আর পদ্মদিঘির ঘাট। মুজিব মানে শারদ-রাতের চাঁদের মধুর হাসি,
কবির কলম – কাব্য-ছড়ার রাশি।
মুজিব পড়ুন
ছড়া ও পদ্য | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১১৮ বার দেখা | ৭৫ শব্দ
জীবনখানা নয়তো স্বাধীন
ইচ্ছেমতন ঘুরবো এবং
উড়বো পাখির মত,
পুড়বো একা
জ্বালিয়ে আপন ক্ষত। কিন্তু আমি নইতো স্বাধীন
বাঁধহীনও নই মোটে,
ফিরতে হবে
সেই পরাধীন গোঠে। পথ চেয়ে মা থাকেন চেয়ে
আঁকেন চোখে আলোই,
ফিরবে বাড়ি
ছেলে ভালোয় ভালোয়। রোগশয্যায় শুয়ে বাবাও
বোজেন না দুই আঁখি,
খোঁজেন শুধু-
খোকন, এলি নাকি? ছোট্টবোনের মনের কোণেও
কোন সে চপলতা?
ফিরলে বাড়ি
শান্ত মধুরতা। কাজের ফাঁকে বউয়ের মনও
ক্ষণ গুনে যায় পড়ুন
ছড়া ও পদ্য | ৯ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১৭৩ বার দেখা | ৮৩ শব্দ
কবি-র বাড়ী
কবি-র বাড়ী
দিনটি ছিলো শুক্র বার
অফিস ছিলো বন্ধ,
বন্ধু বল্ল-চল কবি,র বাড়ী ?
বলিসনি তো মন্দ ! পড়ুন
ছড়া ও পদ্য | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১৮৪ বার দেখা | ২৫০ শব্দ ১টি ছবি
কার গোরুটা!
কার গোরুটা !
কার গোরুটা কত্ত বড়
কার গোরুটা দামী
কার গোরুটা শান্ত শুবোধ
জিব দিয়ে দেয় হামি । কার গোরুটা ওজন ভারী
কার গোরুটা ষাঁড়
কার গোরুটা দামে কত
শোধাচ্ছ বারবার । দড়ি হাতে দর্পে হেঁটে
শাটের কলার ঝাকাও
হাবেভাবে লাটটি তুমি
গোঁফটা পড়ুন
ছড়া ও পদ্য | ৫ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ২৬৫ বার দেখা | ৮০ শব্দ ১টি ছবি
উদ্ভুতুরে
উদ্ভুতুরে
চায়ের কাপে গোঁত্তা খেয়ে
সকাল বেলায় শিববাবু
খালি গলায় গান ধরলেন
ভাত নয় আজ দাও সাবু!
সে কি কথা! গিন্নী বলেন
কেমনতর ভীমরতি!
সাধ করে কেউ সাবু খায়?
এ কেমন ছন্ন মতি!
ওঠো এবার বেলা হলো
বেরিয়ে পড় বাজারে,
পকেট ভরো নতুন নোটে
শ কিম্বা হাজারে।
ইলিশ নাকি শস্তা এখন
খাচ্ছে সবাই পাড়ার পড়ুন
ছড়া ও পদ্য | ৩ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১২৩ বার দেখা | ২০০ শব্দ ১টি ছবি
কর্তৃপক্ষ
প্রতিদিন যাদের বরণ করিতে
মালাপড়াতে যাই হিথ্র
যুগেযুগে তারা প্রমাণ করিয়াছে
আমাদের নয় তারা মিত্র! পদের লোভী কিছু লোকেদেরও
কান্দে করিয়া ছোয়ার
উন্নয়নের মিথ্যার বুলিগুলে
চায়েরকাপে তুলে –জোয়ার। বিমান বন্দরে হত্যা গুমের
প্রমাণ আছে অহরহ
বিচারের বানী নিভৃতে কাঁদে
বলে তারা সহসহ। দাবী তুলিয়া দাবী রাখিয়া
হয়েগেছি তেঁতা ভুতা
আবার যখন হিথ্র নামিবে হে
ফুল নয় দেবো শুধু জুতা। পড়ুন
ছড়া ও পদ্য | ৫ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৭৫ বার দেখা | ৪৪ শব্দ
পৃথিবীটা গোল
পৃথিবীটা গোল
সত্যি এই সুন্দর পৃথিবীটা গোল!
তাইতো দেখছি সবখানে এতো গণ্ডগোল!
জাগায় জাগায় লেগে আছে হট্টগোল!
দেশ জুড়ে শুনি দুর্নীতিবাজদের শোরগোল! গোল না হয়ে যদি হতো চারকোণা
তাহলেই মানুষের কান্না শোনা যেতো না
ধর্ষণ বলাৎকারের মতো ঘটনা ঘটতো না
দুর্নীতিবাজরা লুটপাট করতে পারতো পড়ুন
ছড়া ও পদ্য | ৬ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১০২ বার দেখা | ৩৭ শব্দ ১টি ছবি
দেওয়া নেওয়া
দেওয়া নেওয়া
প্রেমিকারা চুমু দেয় বউ মুখ ঝামটা
ছাত্ররা গ্রামে দেয় কলা মুলো আম টা।
ব্যবসায়ী তোলা দেয় রকবাজ খিস্তি
গরমে বৃষ্টি দেয় চাষীদের স্বস্তি।
অফিসের বস দেয় শাস্তির ধমকি
ভোট এলে নেতা দেয় তারাবাজী ফুলকি।
সরকার বাঁশ দেয় হরঘড়ি বাজেটে
পুজো এলে ছাড় দেয় ফ্লিপকার্ট গ্যাজেটে।
কবিরা কবিতা পড়ুন
ছড়া ও পদ্য | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১৭১ বার দেখা | ১১৫ শব্দ ১টি ছবি
সউমিত্তিরের ছড়া-জবানবন্দী
সউমিত্তিরের ছড়া-জবানবন্দী
দেখতে পেলুম বক্সে গিয়ে
চিন্তা সবার হ্যাকার নিয়ে।
ওয়াল নাকি চুরি যাবে
আমার নামে পর্ণো হবে।
বিটকেল ওই বদমাশেরা
উড়িয়ে দেবে আমার সেরা।
বক্সে ঢুকে গালি দেবে
সউমিত্তির কুনাম হবে।
ভাই ও বহিন বন্ধুলোগ
ভাববে আমি খারাপ লোগ।
কিন্তু আমিই জানব না
কার কাজ তাই বুঝবো না।
এমন হলে হো সাবধান
খবর কর পড়ুন
ছড়া ও পদ্য | ৩ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৪৩৬ বার দেখা | ৫৪ শব্দ ১টি ছবি
কিচ্ছু ভালো লাগছে না
কিচ্ছু ভাল লাগছে না আর
কিচ্ছু ভাল লাগছে না,
মন খারাপের ক্ষণটা যেন
কোনোমতেই ভাগছে না। চোখের রঙে সংগোপনে
স্বপ্ন-ছবি আঁকছে না।
রূপকথারা চুপ হলো কি?
অরূপলোকে ডাকছে না! হৃদয়পুর আজ নিদয় বুঝি?
যাচ্ছে তাকে কই চেনা?
বুকের ভেতর সুখের ধারায়
উছল নদী বইছে না। গন্ধ মেখে ছন্দরা আর
আগের মত আসছে না,
নৃত্য-তালে প্রাণের ডালে
ছড়ার ফুলও হাসছে পড়ুন
ছড়া ও পদ্য | ৩ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১৭১ বার দেখা | ৫৮ শব্দ
গুহাবাসী
আমরা কয়টি পরাণী, ভয়টি
জড়িয়ে ছোট্ট
দু’হাতে-
গৃহমাঝে নয় আছি মনে হয়
আদিমযুগের পড়ুন
ছড়া ও পদ্য | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ২৯১ বার দেখা | ২৫০ শব্দ
করোনায় করণীয়
পরবো মুখে মাস্ক
এটাই প্রথম টাস্ক,
হাত ধুবো ঘন ঘন
জীবাণু পালায় যেন,
গ্লাভস পরবো হাতে
সংক্রমণ না হয় যাতে,
রাখবো বজায় দুরত্ব
দিতে হবে এর গুরুত্ব,
ঘরের বাহির হবোনা
করবো জয় করোনা। পড়ুন
ছড়া ও পদ্য | | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ২১৫ বার দেখা | ২৫ শব্দ
বাঁকা চাঁদ [শিশুতোষ ছড়া]
বাঁকা চাঁদ [শিশুতোষ ছড়া]
ও বাঁকা চাঁদ ও বাঁকা চাঁদ,
আয়না খোকার বাড়ি।
তুই না এলে খোকন সোনা,
নেবে ঠিক আড়ি। তোকে দেখে খোকন হাসে,
আদরে ডাকে মামা।
তুই কেন পরিসনি বলতো
একটা কোন জামা। ও বাঁকা চাঁদ ও বাঁকা চাঁদ,
কতো ই না রূপ তোর।
তোর রূপের আলোক পড়ুন
ছড়া ও পদ্য | | ৮ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১৯৬ বার দেখা | ৬৪ শব্দ ১টি ছবি