ইচ্ছে করে পর্ব-২

স্বরবৃত্ত ছন্দঃ ৪+৪/৪+২ মাগো আমার ইচ্ছে করে পাখির সাথে গাইতে। মাঝির মতো তরী নিয়ে মনের সুখে বাইতে। মাগো আমার ইচ্ছে করে বিধুর মতো হাসতে, রোজ প্রভাতে পাখির সাথে ভীষণ ভাবে নাচতে। মাগো আমার ইচ্ছে করে ফুলের মতো ফুটতে, নদীর মতো ইচ্ছে খুশি সাগর প্রাণে ছুটতে। মাগো আমার ইচ্ছে করে বৃষ্টি হয়ে ঝরতে, শিশির হয়ে ঘাসের … Continue reading “ইচ্ছে করে পর্ব-২”

ইচ্ছে করে

স্বরবৃত্ত ছন্দঃ ৪+৪/৪+২ ঐ দেখো মা আকাশে তে উড়ছে কত ঘুড়ি, ইচ্ছে করে তেমন করে আমিও যেন উড়ি। নীল আকাশ ছোঁয়ার জন্য মনে কত আশা, পাখির সাথে গাইতে আমার জাগে মনে ভাষা। ছায়ার সাথে ইচ্ছে করে লুকোচুরি খেলতে, আকাশে তে পাখির মতো মুক্ত ডানা মেলতে। রচনাকালঃ ০৮/০৬/২০২১

পরচর্চা

বড় ছেলে হাবা-গুবা মায়ের মত কালো-শোভা। তার পরেরটা ল্যাংড়া সভাবে জাত চ্যাংরা… একটা যে রাত কানা কারো নাই তা জানা ! যেই ছেলের নাম গাজী আস্ত একটা পাজি। ছোট ছেলে লাল্টুস বাপের মতই পাল্টুস।

কদম কেয়া

স্বরবৃত্ত ছন্দঃ ৪+৪/৪+১ ওরে খোকা, ওরে খুকি দেখবি তোরা আয়, কদম গাছে কেয়া গাছে ফুল ধরেছে হায়। ফুলের সাথে পাখির সাথে ভ্রমর গাইছে গান, ওরে খোকা ওরে খুকি শুন ফেলে কান। কদমের সাথে কেয়া ফুলের মধুর হাসি হয় খোকা খুকি মন খুশিতে নদে নৌকা বয়। কদম কেয়া তুলে এনে নানা খেলা হয় বর্ষারাণী কদম কেয়া … Continue reading “কদম কেয়া”

কাঁঠাল

কাঁঠাল

ঐযে গাছে ঝুলে আছে এত্তো এত্তো কাঁঠালও খাইতে ভীষণ মজা হলেও খুলতে বড্ড আঠালো! লটকে থাকা কাঁঠাল গুলো একটাও যে আমার নয় অন্যের কাঁঠাল দেখেদেখে এই মনে আর কত সয়। শর্সে তেলে হাত মেখে রই তাতে মোটেই ক্লান্তনা। গাছে কাঁঠাল গোঁফে তেল দেখেই মনের শান্তনা। যাদের আছে কাঁঠাল গাছ পেট ভরে যেন সবাই খায় গরীব-দুঃখি … Continue reading “কাঁঠাল”

খোকা – খুকি

খোকা - খুকি

আয় খোকা, আয় খুকি নাইতে মোরা যাই, নাইতে গিয়ে মোরা সবাই শাপলা শালুক পাই। শাপলা শালুক তুলে মোরা খেলব নানা খেলা, বিকেল হলে সবাই মিলে কাননে বসব মেলা। বিকেলে প্রজাপতি দলের সাথে ছুটব মোরা ক’জন, বিদীর্ণ প্রহরে পল্লব ঘনে ডালে পাখি করে কুজন। গোধূলি লগ্নে লুকোচুরি পড়তে বসা ফাঁকা, খেতে গেলে মামুনির কাছে শুনতে হবে … Continue reading “খোকা – খুকি”

বৃষ্টি পর্ব -২

বৃষ্টি পর্ব -২

টাপুর টুপুর পড়ে বৃষ্টি দেয়ার একটু ডাক, পুকুর ডোবাতে সদা চলে সোনা ব্যাঙের হাঁক। সোনা ব্যাঙ, কুনোব্যাঙ ব্যাঙের নানা জাত, লাফালাফি করে তারা ছোট্ট দু’টা হাত। দেয়ার ডাকে ময়ূর নাচে ঐ না ঘরের কোণে, গাছ পালা সব ভেঙে শেষ ঐ না গহিন বনে। বৃষ্টির পর রংধনুর সপ্ত রঙ আকাশ থেকে পড়ে, তা দেখার জন্য শিশুরা … Continue reading “বৃষ্টি পর্ব -২”

মামার বাড়ি

মামার বাড়ি

আমি আর খুকি মিলে যাব মামার বাড়ি, আছে আমার মামার বাড়ি মস্ত মধুর হাড়ি। মামার বাড়ি যেয়ে আমরা খেলব নানা খেলা, আম জাম ডুমুর ফলের হরেকরকম মেলা। ফলের সমাহার মামার বাড়ি খেয়ে জুড়াবে প্রাণ, নিত্য বিকেলে গেয়ে বেড়াব হর্ষে করে গান। কাজিনদের সঙ্গে রাত্রি বেলা করব নানা গল্প, হৈ হৈহল্লা করলে মামা বকা দেবে অল্প। … Continue reading “মামার বাড়ি”

বৃষ্টি

নীল আকাশে মেঘমালা জমেছে নেই কো তার শেষ, অভিলাষ হল ঘুরে বেড়ায় নানান রঙের বেশ। টাপুর টুপুর পড়ে বৃষ্টি ঝুমঝুম তার রুপ, বজ্রের শব্দে লুকায় সবাই কেউ দেবে না ডুব। বৃষ্টির পর রংধনু রং ফ্যালে নীল দীঘির ঐ ধারে তরুলতা নব সাজে সজ্জিত হয়ে পথের ধারে ধারে। বৃষ্টি শেষে বর্ষাকালে নদে থৈথৈ করে জলে, কদম … Continue reading “বৃষ্টি”

অভিবাদন হে প্রেমের বেদনা

অভিবাদন হে প্রেমের বেদনা

[কবি পারভীন শাকির] অভিবাদন তোমায় হে প্রেমের বেদনা আহমাদ মাগফুর কখনো থেমেছি কখনো চলেছি হারিয়েছি কভু পথ এভাবেই হায় কেটেছে জীবন সয়ে শত যুলমত। স্বপনে বা জেগে যেখানেই তার হয়ে গেছি মুখোমুখি দুচোখ নামিয়ে চুপচাপ আমি পাশ কেটে চলে গেছি। আমার বইয়ের প্রিয় কবিতারা হারিয়েছে আজ সব তোমার চোখের, চুলের, রূপের- স্তুতি করে কলরব। মনেপড়ে … Continue reading “অভিবাদন হে প্রেমের বেদনা”