কবিতা বিভাগের সব লেখা

বজ্রমাখা হরফ
বজ্রমাখা হরফ
কবে পাবো অমৃতের দেখা
কবে যাবো বাড়ি
কবে হবে নৃ হৃদ্য-কবিতার লেখা
পৌঁছুবো গন্তব্যে- মহাকাল ছাড়ি। কবে জ্বলবে প্রদীপ- উজ্জ্বল বহ্নি শিখা
নির্জীব চরণে কবে জাগবে- নৃত্য স্পন্দন;
মদিরা নদীর শাখা-প্রশাখা
কবে পাবো শৈল প্রপাত, কস্তূরী চাঁদ
বিহঙ্গের মনে তীব্র আলোড়ন কবে আসবে নিবিড় ভোর
শিশির শব্দের মূর্ছনা- স্বর্ণ রেখা
ঠুমরীর পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৩৭ বার দেখা | ৫২ শব্দ ১টি ছবি
একটি ফুলের জন্য
বীর বাঙালি অস্ত্র নিলো
একটি ফুলের জন্য
শিউলি, জবা, বকুল নয়
এই ফুলটি অন্য। লক্ষ লক্ষ প্রাণ যে গেলো
ইজ্জত দিল বোন
হাজার হাজার গণ কবর
বলছে কথা শোন। সাগর সাগর রক্ত গেলো
সবাই কি জানে জানে
সেসব কথাই বলছে ওরা
ওদের কানে কানে। এই ফুলটি এমনি এমনি
আসে নাইরে ভাই
দেশ বিরোধী পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৩৪ বার দেখা | ৪৮ শব্দ
ছায়ামনে, মেঘের সংসার
ভেসেছিলাম একক সায়রে, সাথে নিয়ে পিতল বরণ মেঘ
নিধুয়া নদীর বাঁকে জমে থাকা বিরহ অপার
বলেছিলো সাথে যাবে, যদি যাই হিজল জমিনে
হতে পারে দেখাদেখি— ছায়ামনে, মেঘের সংসার। আঁকড়ে যে জন থাকে ভিটেজল, ঢেউয়ের আকর
টেনে নেয় কাছে ঝড়, বসন্তের অরূপ মহিমা
বীমাহীন জীবনের যতসব লেন-দেন সেরে
অতিক্রম করে যায় পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৪১ বার দেখা | ৫৯ শব্দ
প্রেম
পৃথিবীর সব লজ্জা
রিয়াকে ঘিরে রেখেছ, সে এখনো
লেপের নীচে। মাথা বের করে
ঘরের আলো দেখতেও লজ্জিত
হচ্ছে। সাতটা বেজে গেছে;
ক্লাসে যেতে হবে, কিন্তু সবাইকে মুখ
দেখাবে কেমন করে! ভীষণ ভাললাগায় তার বুক
ধুকপুক করছে। এই অনুভূতি
আগে কখনো হয়নি। লজ্জা এবং
ভাললাগার যৌথ অনুভূতির
নাম প্রেম। রিয়া প্রেমে পড়েছে।
ভোরের আলো ফোটার আগেই
এসেছে কাঙ্ক্ষিত পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৪৪ বার দেখা | ৫৪ শব্দ
যে দিন চলে যাব
যে দিন চলে যাব
যে দিন আমি চলে যাব
রবোনা এ দুনিয়াতে,
রেখে যাব না কোনকিছু
দিতে প্রিয়জনদেরকে।
রেখে যাব না কোন স্মৃতি
কারও চোখের পাতাতে,
আমি চাই না কারও দুঃখ–কষ্ট
চাইনা কাউকে কাঁদাতে। যে দিন আমি হারিয়ে যাব,
পাবেনা কেউ আমাকে
আমি তো হারাবো না তাদের
হারাবো না আমি কাউকে।
যে দিন তোমরা আমায় ভুলে পড়ুন
কবিতা, ছড়া ও পদ্য | , , | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৩২ বার দেখা | ৬৬ শব্দ ১টি ছবি
তুষারপাতের আগে
জমে যাচ্ছি, প্রগাঢ় শ্বাসকষ্টের ভেতর। পাতাহীন বৃক্ষের
প্রতিবেশে পাখিরা যেমন মুখ লুকিয়ে রাখে প্রেমিকার
বুকের বা’পাশে। কাঁপছি – পালকে বুনা ভারী কোট
গায়ে দিয়ে, একাকী সড়কে। আমাকে ফেলে রেখেই
চলে যাচ্ছে যাত্রী ভরা বাস। কাজল বরণ রঙ ধারণ করে মাথার উপর,
দাঁড়িয়ে আছে উইকেন্ডের আকাশ।
পৃথিবীর অন্যপ্রান্তে, বিজয়ের ফুলকি হাতে
সাজাচ্ছে ভবিষ্যত, পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৪৪ বার দেখা | ৭৬ শব্দ
যখন মনে অণু প্রবেশ ঘটে
যখন মনে অণু প্রবেশ ঘটে
এত বাঁধ বিধি এত নীতি নিষেধ
কিছু বুঝে উঠার আগেই ঘটে যায় বিভেদ
যতন করে রেখেছি মন
মনই তো আছে কেবল “সাত রাজার গুপ্ত ধন”
মতনে মতনে করে যুবতীর অণু প্রবেশ
কিছু বুঝে উঠার আগেই ঘটে যায় কাণ্ড অবশেষ
দু দণ্ড অবসরে মিটে যায় সময়
যুবতীরা কেউই পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৪১ বার দেখা | ১০৯ শব্দ ১টি ছবি
জীবন
চোখ থেকে
যেন উড়ে গেল সে
পাতার মতোই ক্ষণস্থায়ী
চিরকাল থাকবেন যিনি তার আবাস আকাশে
এখানে মাটিতে মাটিমন নিয়ে
জলস্থল একাকার ভালবাসার জন চিরদিন উচ্চেই থাকেন
চাইলেই কেউ পারবেনা তাকে
টেনে নামাতে
যদি না তিনি নিজে নামেন প্রিয় থেকে প্রিয়তম হয়ে যান
অচিন পুরের শিখন্ডী এক। পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৩৭ বার দেখা | ৩৬ শব্দ
সুখি হবে
সুখি হবে
গোলাপ কিংবা বকুল ফুল
গন্ধ ছড়াবে পাপড়ি ঝরবে-
আর অজানা পথে নিরুদ্দেশ হবে;
হতে হয় কিন্তু পায়ের গোড়ালিতে
শিকল বেঁধে রাখলে কি হবে?
সত্যকারে যখন ঝরে মাটিতে লুটাবে
তখন কি করবে? এভাবে সন্দেহের
চোখে রাখা কিংবা শিকলে বান্ধা
কোন কাজেই আসবে না; তার চেয়ে
কোন ফুলের কলি হও- গন্ধ পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৬৭ বার দেখা | ৫২ শব্দ ১টি ছবি
সফল নারী
স্বরবৃত্ত ছন্দঃ ৪৪/৪১ মুখখানা তার চাঁদের মতো
দীঘল কালো কেশ,
হাসির রেখা দেখে সবাই
বলবে আহা বেশ। ভ্রমর কালো নয়ন দুটি
নেইকো তাতে লাজ,
ছোট্ট পাখির মতো সদা
করে শুধু কাজ। বাবুইপাখির মতো তারই
সুনিপুণ ওই ঘর,
পিপীলিকার মতো মায়া
নাইতো কেউ যে পর। কচি পদ্মের মতো তারই
হৃদয় জুড়ে সুখ পড়ুন
কবিতা, ছড়া ও পদ্য | ১টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৫৮ বার দেখা | ৬৫ শব্দ
জীবন
জীবন
জীবন থেমে যাওয়া গল্পের ঋতুতে
সরিসৃপ বৃক্ষ এঁকেবেঁকে উঠেছে আকাশ চূড়ায়
কিছুটা প্রয়োজন ছিল, নিয়মের বেড়াজালে
আটকে থেকে অনিয়ম ভাঙ্গার। মেঘের উপরে রাজসিক ঈগল
ডানা ঝাপটিয়ে দেখছে সমতল।
শিকার আর শিকারির দঙ্গলে,
নিয়ম আর অনিয়ম ভাঙ্গার লড়াই তো করতেই হয়। দিনের পর দিন বছরের পর বছর
যুগের পর যুগ পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৭৯ বার দেখা | ২২০ শব্দ ১টি ছবি
অনেক আলোর বিধান ঘিরে
শিশিরের সিক্ততা ছড়িয়ে হেমন্ত চলে যায়। ঘোরের
আভা নিয়ে বাঁচে যে রাখাল,তাকে তুমি বন্দি,
বলতেই পারো। অথবা লিখে রাখতে পারো-
জীবিতদের জন্যই জীবন, মৃতের জন্য- শুধু দীর্ঘশ্বাস উত্থানের কাহিনি শুনিয়ে সূর্য ডুবে যায়। তপ্ত দুপুর
ছিল বুকের দুপাশে, তার সাক্ষী শুধুই থাকে নদী
আর প্রিয় পিপাসা- অনেক আলোর বিধান ঘিরে
রচিত পড়ুন
কবিতা | ৩ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৭১ বার দেখা | ৭৪ শব্দ
কালের উচ্চারণ
কালের উচ্চারণ
আমি তো
অতটা বিদ্বান নই
নেই গোলামীর যোগ্য সনদ!
অথবা, উপভোগ্য কোন জোকার নই
সার্কাসের বামুন নই-
আমি কালের উচ্চারণ! এক মহা যুদ্ধ শেষে
মাঘের শীত জড়ানো গোধূলি রঙ মেখে জন্মেছিলাম,
সেদ্ধ ধানের গন্ধে, ক্ষণ জয়ে
মোহন সান্দ্রে মামুলি উল্কা পতনে, অমোঘ উচ্চারণে
কিন্তু- আমি ধ্বনি নই
ধ্বনি- প্রতিধ্বনির পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৭৯ বার দেখা | ৮৬ শব্দ ১টি ছবি
আকাশ আগল খুলেছে
আকাশ আগল খুলেছে
বরফ ভেঙ্গে যে সাদা মেয়েটা
আসছে; তাকে দেখেই
আকাশ আগল খুলেছে।
তার চোখ, নাক, ঠোঁট,
চিবুক এমন মোহনীয় বরফকুচিও লোভ সংবরণ
করতে পারছে না। তাকে
আবৃত করতে রীতিমত প্রতিযোগিতা
শুরু করেছে। বরফের প্রতি
মেয়েটা উদাসীন অথবা
উটকো ঝামেলা মনে করছে। বরফ নিয়ে আমার আদিখ্যেতা
নেই, ঠাণ্ডা বিষয়ক পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৬৪ বার দেখা | ১২৪ শব্দ ১টি ছবি
ঘাঙ্গুরের জল
যদি আবার কোনোদিন আকাশে মেঘ জমে
যদি আবার কোনোদিন সেই মেঘ থেকে বৃষ্টি
ছুঁয়ে দেয় ঘাঙ্গুরের জল,
তবে এসো এই খরদুপুরে কাকভেজা হই! অমসৃণ যতো পথ অনিচ্ছায় দিয়েছি পাড়ি
ঘাঙ্গুরের জলে সেইসব দিনগুলি চলো বিসর্জন
দিই তাড়াতাড়ি!
আমার দিনগুলো এখন অনেক বড়ো, শেষ হতে
চায় না; রাতগুলোও জানি কেমন তরো! ডাকবাক্সে কতোদিন কোনো পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৫৮ বার দেখা | ৬৮ শব্দ