কবিতা বিভাগের সব লেখা

দেবী ও কবি
দেবী ও কবি
নিঃশ্বাসের উত্তাপে হৃদয় বিগলিত উম্মুল সন্তাপ
আদিম হিংস্রতায় বাস্তবতার প্রজ্বলিত রক্ত চক্ষু
জীবনের সিথানে জাত বিজাতের বুভুক্ষু হীনন্মন্যতা ;
প্রাণের নিগৃহীত অণুজীব কষ্ট ক্লেদ মেখে ফিরে আসে
আড়ালের নিন্দুক বার বার হেসে উঠে কটাক্ষে,
মানুষের জগতে মানুষের ভালোবাসা বড় অসহায়! ফুট ফুটে আলোর ধারায় ফেরে পড়ুন
কবিতা | | ২ টি মন্তব্য | ৬৩ বার দেখা | ১০২ শব্দ ১টি ছবি
দ্রোহী তুমি কবি কাজী নজরুল ইসলাম
জীবনধারায় কবি কাজী নজরুল ইসলাম,
অধিকার প্রতিষ্ঠার প্রত্যয়ের প্রতিরূপ। তুমি এসেছিলে জগতে,
দেখাতে বিদ্রোহের প্রেমময়তা। সাম্যের কবি, নিরীহ, নিপীড়িত মানুষের কবি;
শোষকের বিরুদ্ধে বজ্রকন্ঠ তুমি। মানবতার কবি তুমি এসেছিলে,
পথ দেখাতে মানবাত্মার রূপকে। তোমার কবিতার বজ্রকঠিন ভাব,
আধিকারের রাজপথের পথ প্রদর্শকতা। জন্ম হয়েছিল তোমার,
অপশক্তির মূলউৎপাটনে।
তুমি অনুপ্রেরণার উত্তল সমুদ্র ঢেউ। পড়ুন
কবিতা | | ১টি মন্তব্য | ২৭ বার দেখা | ৪০ শব্দ
চেংমাছে লাফে
চেংমাছে লাফে
জলের ঢেউ মনের মাঝে-
কে দেখে- কে দেখে?
সাদা মেঘের আকাশ-
শুধু বৃষ্টি ভিজা মাটি! কৈই মাছে, সাঁতার কাটে
চেং মাছে আরে লাফে; পুকুর ঘাটে সোনালি রোদ
কাতলা মাছের ঝাঁকের পোদ-
চক্ষু জুরাই, দুঃখ সরে না
জোছনা রাতে রঙধনু
মনের মাঝে সাজে- আরে চেং মাছে লাফে। ৯জৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৩ মে ২২ পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | ৩১ বার দেখা | ৩৯ শব্দ ১টি ছবি
সকালের হাওয়ায় এক কাপ চা
সকালের হাওয়ায় এক কাপ চা
কী শান্ত নিরিবিলি পরিবেশ, মিহি হাওয়া
এক টুকরো রোদ্দুর দখল করেছে দখিন দাওয়া,
চা এক কাপ হলে হয় না মন্দ,
মনের খাতায় উড়ে আসুক সুর ছন্দ। অলিখিত কাব্যগুলো জমা পড়ে থাক্ মনে,
প্রেম হয়ে যাক এবেলা চায়ের সনে,
কিচিরমিচির সুরে উদাস এ মন,
চায়ে চুমুক দিলেই দেহে পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | ২৯ বার দেখা | ১২৭ শব্দ ১টি ছবি
অংশ
হাঁসডানার মতো এই যে লম্বা অবসর, রজঃস্বলা
নগরে-উদ্যত এক হৃদয়ে ফেরে আবার প্রত্যন্ত স্বপ্ন
ওই দেখা মাস্টার হাসি,আতঙ্ক; একটু টোকা দেয়-
তোমার নদীপ্রপাত সরাইখানার শিল্পকণা পেঁচিয়ে
ঢাকার দুপুরবেলা আর একাকিনী জলছাপ শাড়ির
মিশকালো পাড় অবতরণ করে, বিস্তীর্ণ নিঃশ্বাস-
এবং সেলাই কলের নিচে সন্ধ্যার স্নিগ্ধ বৃষ্টি শাসিয়ে
সেঁকা রুটির গন্ধ, ভিন্ন বাতাস পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | ২৮ বার দেখা | ৫৮ শব্দ
দ্রাবিড় জীবন
এখন দিন কেমন বদলে গেছে, পোকা-মাকড়ের
ঘর বিলাস; একটা চিকেন গ্রিল ধরে সারাদিন সাড়া
গেছে, মধ্যবর্তী বধ্যভুমি তবুও ফিরে পেয়েছে
কিছু উন্মাদ বৃষ্টি, হয়ত সেও বড়ো কম কথা নয়;
কিছুক্ষণের জন্য হলেও ফিরে পেয়েছিলো দ্রাবিড়
জীবন; মনে মনে আজন্ম নিঃস্ব এই আমিও এখন
নির্বিকার চেয়ে দেখি পোড়ামাটির ক্যালিওগ্রাফি! এমনি করেই বেশ পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | ২৩ বার দেখা | ৭৬ শব্দ
কবিগুরুর পদচিহ্নে
এই জমি খুব পরিচিত আমার। এই নদীর সকল উজানী
ঢেউ- একদিন আমার বুকে রুয়েছিল যে বীজ, আমি যতনে
বৃষ্টি ছড়িয়েছিলাম সেই মনবৃক্ষে। জোড়াসাঁকোর ভোরে
খুব একাকী পড়েছিলাম গন্তব্যের গীতবিতান। এই গান খুব স্বজন আমার। যে প্রেমিকা আমাকে হাত ধরে
নিয়ে গিয়েছিল প্রান্তিক চত্বরে- সেদিন সেখানেও উপস্থিত
ছিলেন একজন রবীন্দ্রনাথ। তিনি পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | ২৮ বার দেখা | ৬৭ শব্দ
একটা খেলার মাঠ খুঁজি!
একটা খেলার মাঠ খুঁজি!
পড়ন্ত বৈকালে, একটা খেলার মাঠ খুঁজে
আমার মনোরথ,
যার একপাশ দিয়ে সর্পের মতো এঁকে-বেঁকে
বহুদূরে গেছে স্বপ্নিল মেঠো পথ। যেখানে নেই সেই কিশোরের দল,
হাতে হাতে মোবাইল নিয়ে আনত মস্তকে
গোপন কোন ছবি দর্শণে ব্যস্ততায় যারা অটল।
নেই হরেক খেলায় কোলাহলরত দুষ্টু মতির পরিবর্তে
বেপরোয়া এক ছাগ,
গড়লেও বাচ্ছারা পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | ৪৭ বার দেখা | ৯৮ শব্দ ১টি ছবি
মেঘাচ্ছন্ন দিনের বিড়ম্বনা
মেঘাচ্ছন্ন দিনের বিড়ম্বনা
মেঘাচ্ছন্ন দিনে মেঘ হৃদয়ের
মেয়েকে জিজ্ঞেস করি
বৃষ্টির খবর। ঈশানে; রাজা প্রলয়
প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন, মেঘের
জবাবের পুর্বেই তিনি
জোরেশোরে এসে পড়লেন। প্রথম ধাক্কায় উড়ে গেল
কদলী বৃক্ষ। দাদাজানের
পুকুরে পাতা ছিল মৎস শিকারির
জাল; রাজা প্রলয় তার বুক
বিদীর্ণ করে পাশের বাড়ির
সফেদা গাছের সাথে কুস্তি
করলেন। আমার প্রেমিকা শরীফা পড়ুন
কবিতা, জীবন | ১টি মন্তব্য | ৪৯ বার দেখা | ৮৭ শব্দ ১টি ছবি
অলীক স্বান্তনা
অলীক স্বান্তনা
প্রগাঢ় ক্লেদাক্ত রাত ভুগে
প্রবেশ করি আরেকটি গ্লানি ভার রাতে
দীর্ঘশ্বাসে চাপা নিগূঢ় অন্ধকারে
উন্মুক্ত করি নিরবতার গিঁট কান্না পেঁচানো কণ্ঠে!
বাতাসের হু হু শব্দের সাথে বৃক্ষের স্পন্দিত আত্মা
একাত্মতা ঘোষণা করে
আমাকে থামাতে চায়, অলীক সান্ত্বনায় পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | ৩২ বার দেখা | ৩৪ শব্দ ১টি ছবি
বাংলার পাট শ্রমিক
বাংলার পাট শ্রমিক
তারা বাংলার পাট শ্রমিক,
শ্রম দিয়ে পায় পারিশ্রমিক,
শরীরের ঘাম ঝরায় দৈনিক,
তারা জীবন যোদ্ধা সৈনিক। তাদের শ্রমের মূল্য যতসামান্য,
তবুও যা পায় তাতেই হয় ধন্য,
বেশি পাবার আশা খুব সামান্য,
আশায় থাকেও না বেশির জন্য। শ্রমজীবীরা পারিশ্রমিক পেলেই খুশি,
সবসময়ই থাকে মুখে পড়ুন
কবিতা | ৪ টি মন্তব্য | ৬৩ বার দেখা | ৫৭ শব্দ ১টি ছবি
অনুবাদ কবিতাঃ দাবানল এবং তুষার
অনুবাদ কবিতাঃ দাবানল এবং তুষার
কেউ বলে পৃথিবী ধ্বংস হবে দাবানলে
কেউ বলে তুষারে
মনের কামনা দিয়ে যা স্বাদ পেয়েছি
আমি আগুনই ধ্বংসের কারণ মনে করি।
কিন্তু আমায় যদি দুবার মরতে হয়,
আমি ঘৃণার পরিচয় যথেষ্ট জানি
তাতে মনে হয় তুষারজনিত ধ্বংস
অত্যন্ত ভয়ানক
এবং যথেষ্ট পৃথিবী বিনাশের জন্য। Fire and Ice
Robert Frost পড়ুন
অনুবাদ | ২ টি মন্তব্য | ৩১ বার দেখা | ৯০ শব্দ ১টি ছবি
বিমূর্ত তেলচিত্র
বিমূর্ত তেলচিত্র
চোখের সামনে যে পেইন্টিংগুলো ঝুলিয়েছ
তোমাকে সে জন্যে ধন্যবাদ
এই যে নদী-ফুল-পাখি-সমুদ্র; অবোধ্য কিচিরমিচির
ভারী চমৎকার চিত্রক্ষমতা তোমার। মানুষ; মানুষগুলোর কান, মাথা, নিতম্ব
কি বিচিত্র! কি অপূর্ব বিভ্রম!
শব্দশীল সব ধাতবের ঊর্ধে এর গন্তব্য
অদেখা মনের ছবি তুমি এঁকেছ এতটাই নিখুঁত। আবারও বলি, ভারী চমৎকার চিত্রদক্ষতা তোমার
লোকে পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | ৪১ বার দেখা | ৪৯ শব্দ ১টি ছবি
অনাগত বসন্তের হাট
একদিন পথ যেখানেই পেতে দেবে নোঙর
সেখানেই আমার ঠিকানা, অতঃপর সেখান
থেকেই আবার শুরু হবে নতুন স্বপ্ন বোনা;
জালি লাউয়ের মাচা বেয়ে একদিন অংকুর
হবে ময়না, টিয়া; বসবে ফুল ও ফসলের
বাসর; রচিত হবে মেদহীন নতুন সভ্যতার
ছায়াপথ, পাখির কাকলিতে মুখরিত হবে
উজান গাঁয়ের মেঠোপথ, সবুজের রোদে
মাখামাখি হবে কবিতার মাঠ, পথ-ঘাট পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | ৪২ বার দেখা | ৮৭ শব্দ
থাকবো বসে একা একা
থাকবো বসে একা একা
থাকবো বসে নিরিবিলি
গোধূলিয়ার পাড়ে,
চাই না বসুক কেউবা এসে
ছুঁয়ে আমার ধারে। মন বিষণ্ণ হলে আমার
ইচ্ছা একলা থাকি,
কাঁদি বসে আপনজনদের
চোখ ‘কে দিয়ে ফাঁকি। দুঃখ বাটি সন্ধ্যার সাথে,
গোধূলী হয় বন্ধু,
প্রকৃতির সাথ থাকলে মনে
শান্তি তেরো সিন্ধু। মন বিষাদে থাকলে পূর্ণ,
ভাল্লাগে না কিছু,
মন্দ সময় অযথাই
নিলো আমার পিছু। গোধূলির রঙ পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | ২৮ বার দেখা | ৬৯ শব্দ ১টি ছবি