বোরহানুল ইসলাম লিটন-এর ব্লগ

কবির জন্ম নওগাঁ জেলাধীন আত্রাই থানার অন্তর্গত কয়েড়া গ্রামের সম্ভ্রন্ত এক মুসলিম পরিবারে। পিতা মরহুম বয়েন উদ্দিন প্রাং ছিলেন সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও মাতা লুৎফুন নেছা গৃহিণী। বর্তমানে কবি একই থানার অধিনস্থ পাঁচুপুর গ্রামে স্থায়ীভাবে বসবাস করছেন। তিনি অনেকটা ‍নিভৃতচারী লেখিয়ে।

ক্যান সে বাজায়! (গীতিকাব্য)
ক্যান সে বাজায়! (গীতিকাব্য)
বসে আমি এই নিরালে
ডাকি তোমায় চোখের জলে
কও তো দয়াল অবিরাম দিন রজনী –
ক্যান সে বাজায় মনের ঘরে খঞ্জনী! মন্দে গড়া অরির সারি
ভেবে সোনা হীরে,
দিয়েও মোরে সাচ্চা কথা
ফেললো শেষে ছিঁড়ে।
রচে অগাধ স্বপ্ন আশা
টানলো যদি বন্ধনী –
ক্যান সে বাজায় মনের ঘরে খঞ্জনী! চুপটি দিয়ে পড়ুন
কবিতা | ৪ টি মন্তব্য | ৬২ বার দেখা | ৬১ শব্দ ১টি ছবি
তুই কিরে ধন দুই জনমের টুনটুনি! (গীতিকাব্য)
তুই কিরে ধন দুই জনমের টুনটুনি! (গীতিকাব্য)
সুর হারা এই বুকের মাঝে
নিত্তি বাজাস ঝুনঝুনি –
তুই কিরে ধন দুই জনমের টুনটুনি! ক্ষণিক দোষে মান না করে
সয়ে বর্ষা খরা,
হাতের কাছেই ছন্দে নাচিস
যায় না তবু ধরা।
না যদি হোস আপনজনা
তোর তালে ক্যান ক্ষণ গুনি –
তুই কিরে ধন দুই জনমের টুনটুনি! নিদ্রা বা হোক পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৭৫ বার দেখা | ৬৩ শব্দ ১টি ছবি
খুঁজলি না রে মন ভোলা! (গীতিকাব্য)
খুঁজলি না রে মন ভোলা! (গীতিকাব্য)
খুঁজলি না রে মন ভোলা তুই
ক্যামনে বাঁচে চাতক পাখির প্রাণ!
সারাজীবন আশায় শুধু চেয়েই গেলি ত্রাণ –
খুঁজলি না রে মন ভোলা তুই
ক্যামনে বাঁচে চাতক পাখির প্রাণ! জীবন ভেবে নিজের বিভব সটান রেখে ঘাড়,
চন্দ্রমা ক্যান জোছনা ঢালে ভাবলি না একবার!
আসতে যেতে তপ্ত বায়ু
চষতো পড়ুন
কবিতা | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৬৩ বার দেখা | ৯১ শব্দ ১টি ছবি
মনটারে আর বানাস্ নে ভুজঙ্গ! (গীতিকাব্য)
মনটারে আর বানাস্ নে ভুজঙ্গ! (গীতিকাব্য)
খেলিস্ নে তুই পথের বাঁকে
ভুলে রে তার সঙ্গ –
মনটারে আর বানাস্ নে ভুজঙ্গ! যুগল চোখের রঙ তামাশা
মোহের সে তো ক্ষণিক আশা
স্বপ্ন নয় কুরঙ্গ –
মনটারে আর বানাস্ নে ভুজঙ্গ! মার্ রে তালা ক্রোধের ঘরে
ধ্যান সাজাতে জ্ঞানের দরে
ফেলে অচল ঢঙ্গ –
মনটারে আর বানাস্ নে পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৭১ বার দেখা | ৫৫ শব্দ ১টি ছবি
তোরে যে মা খুব ভালোবাসি! (গীতিকাব্য)
তোরে যে মা খুব ভালোবাসি! (গীতিকাব্য)
আবার আসবো ফিরে
শ্যামা এ’ নদীর তীরে
সজীব কুঁড়েরই হয়ে বাসি –
তোরে যে মা খুব ভালোবাসি! বাঁধবো বিকেলে যতো তোরই নামে বোল,
হিজলের শাখে খেয়ে মিলেমিশে দোল।
এ’ হৃদয়ে ভাব চষে
গোধূলির বাটে বসে
ব্যাকুলে বাজাবো ফের বাঁশি –
তোরে যে মা খুব ভালোবাসি! হাতছানি দিলে তোরে আষাঢ়ের ঢল,
ভাবিস পড়ুন
কবিতা | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৭১ বার দেখা | ৬৮ শব্দ ১টি ছবি
এক চাঁদের কথা (সনেট)
এক চাঁদের কথা (সনেট)
এ আকাশে চাঁদ ছিলো থালার মতোন
ছড়াতো জ্যোৎস্না রোজ নির্দ্বিধায় হেসে,
দখিনা বাতাস তারে করতো যতন
চকোরের দৃঢ় ধ্যান খুব ভালোবেসে। রূপালী ধারার আশে তরুলতা দুলে
তেষ্টায় গুনতো জেগে অপেক্ষার শ্বাস,
ঊর্মির নাচন দেখে তটিনীর কূলে
শ্বাপদও খুশিতে হতো ডাহুকের দাস। হায় এ কি ভগ্ন দশা সেই পড়ুন
কবিতা | ৬ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১২৩ বার দেখা | ৬৬ শব্দ ১টি ছবি
আর দিও না ফাঁকি! (গীতিকাব্য)
আর দিও না ফাঁকি! (গীতিকাব্য)
ক্যামনে খুঁজি তোমার চরণ
লিপ্সা করে বোধ যে হরণ
ব্যাকুল সাঁঝে তবু আশায় ডাকি –
আর দিও না দয়াল তুমি ফাঁকি! এই তনু মন তোমার গড়া তুমিই বুকের মান,
সুর না দিলে দাসের গলে ক্যামনে শুনাই গান!
তোমার কৃপা না যদি পাই
কি বা পরি ক্যামনে বা পড়ুন
কবিতা | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৭৯ বার দেখা | ৮০ শব্দ ১টি ছবি
দাও গো সুধা! (গীতিকাব্য)
দাও গো সুধা! (গীতিকাব্য)
তোমার নামের দাও গো সুধা
অধম দাসের অন্তরে –
ডাকি বসে আরশিনগর বন্দরে! নীড় হারায়ে ভাবনা যতো
খায় এ হৃদয় কুরে,
সাধের জনম যায় যে বৃথা
রাখলে তুমি দূরে।
নিদেন কালে দাও গো দেখা
মীম আলিফের মন্তরে –
ডাকি বসে আরশিনগর বন্দরে! ডুকরে আজি ছেঁড়া আশা
গড়ে ভুলের বাড়ি,
পয়সা বিনে নীল পড়ুন
কবিতা | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১১২ বার দেখা | ৫৪ শব্দ ১টি ছবি
চাস নে কেনো মা! (গীতিকাব্য)
চাস নে কেনো মা! (গীতিকাব্য)
তোরই গাঁয়ের শ্যামল মাঠে
মনটা আমার যায় ছুটে –
তুই মা তবু চাস নে কেনো খড় ঘুটে!
ভাবি সংকটে –
তুই মা তবু চাস নে কেনো খড় ঘুটে! সকাল সাঁঝে দুই কানে মা বাজেই পাখির সুর,
লাটাই ঘুড়ি যায় নিয়ে মন আশায় অনেক দূর!
সবুজ ক্ষেতের পড়ুন
কবিতা | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১৭৮৪ বার দেখা | ৯৩ শব্দ ১টি ছবি
পৃথিবীতে সবাই সাধু
পৃথিবীতে সবাই সাধু
বেশ কিছু রহস্যের গল্প পড়ে
এক সময় নিজেকে গোয়েন্দা ভাবতে শুরু করলাম,
ভাববোই না বা কেন
যেথায় যাই যেখানেই বসি একই কথা –
ভাই আজ চরম শ্বাসরুদ্ধকর একটা গল্প শুনাতে হবে,
কাল অমুকের বাড়িতে অবাক এক কাণ্ড ঘটেছে
চলো না যদি রহস্যের কিনারা করতে পারো!
আর পড়ুন
অণুগল্প | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১৭৮২ বার দেখা | ৩২৮ শব্দ ১টি ছবি
জ্বীনের খিটমিটে হাসি
জ্বীনের খিটমিটে হাসি
এক সময় ষষ্ঠ শ্রেণীর উপরে অধ্যয়ণরত প্রতিটি ছাত্রেরই
লজিং অথবা বোডিং -এ থেকে লেখাপড়া করার সুবাদে
নিজেস্ব ট্রাঙ্ক থাকতো।
তখন আমি দশম শ্রেণীর ছাত্র।
তাই — ক’দিন থেকেই চলতে ফিরতে মনে হচ্ছিল
সব সময় কে যেন আমাকে ফলো করে।
কখনো ডানে কখনো বামে আবার কখনো পিছে পড়ুন
অণুগল্প | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১০৮ বার দেখা | ২০৬ শব্দ ১টি ছবি
রুবাইয়াত-ই-বোরহান (মা হারা মন)
রুবাইয়াত-ই-বোরহান (মা হারা মন)
(১)
মেললে বসে চাঁদ রাতে তার রূপায় মাখা রঙ তুলি,
এই প্রকৃতিই নেচে উঠে জীব খ্যালে সব ডাংগুলি।
ঘোরও আড়ে রয় না বেজার চষতে যা মান খাপছাড়া,
ডুকরে শুধু এই মনে আজ মা মা ডাকা দিনগুলি। (২)
হুতোম যদি ঠ্যাং তুলে ওই বাবলা শাখে গায় নেচে,
গুবরে পড়ুন
কবিতা | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১০৮ বার দেখা | ১৩২ শব্দ ১টি ছবি
চন্দ্র রে তুই দিস্ নে আমায় ফাঁকি! (গীতিকাব্য)
চন্দ্র রে তুই দিস্ নে আমায় ফাঁকি! (গীতিকাব্য)
চন্দ্র রে তুই দিস্ নে আমায় ফাঁকি!
তোরই আশায় রয় জেগে এই
ব্যাকুল দু’টি আঁখি –
চন্দ্র রে তুই দিস্ নে আমায় ফাঁকি! দিন শেষে যেই আঁধার নামে তৃষ্ণা উঠে জ্বলে,
কাঁপন চেপে হাত পেতে রই জ্যোৎস্না দিবি বলে।
মন হলে রে ধৈর্যহারা
ক্ষণে ক্ষণে দিই ইশারা
রোজ পড়ুন
কবিতা | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১১০ বার দেখা | ৮৮ শব্দ ১টি ছবি
মন তবে ক্যান অচিনপুর! (গীতিকাব্য)
মন তবে ক্যান অচিনপুর! (গীতিকাব্য)
বিশ্বাসেই সে’ বস্তু মিলে
তর্কে নাকি বহুদূর –
মনটা আমার ক্যান তবে গো অচিনপুর!
মিঠা নয় কি গুড় –
মনটা আমার ক্যান তবে গো অচিনপুর! থাকবো ভেবে সুখের আশায় হলাম গেছো ব্যাঙ,
ডাল নিলো এক বৈশাখী ঝড় ভাঙলো আমার ঠ্যাঙ।
কান্দি বসে গাছতলে আজ
যায় যদি ঢেউ খানিক পড়ুন
কবিতা | ৬ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১১৮ বার দেখা | ৮৮ শব্দ ১টি ছবি
ঝরলে পাছে মায়ের চোখের জল! (গীতিকাব্য)
ঝরলে পাছে মায়ের চোখের জল! (গীতিকাব্য)
সাধের জনম বৃথা যাবে মরণ হবে খল –
ঝরলে পাছে মায়ের চোখের জল!
সইবি নিঠুর ফল –
ঝরলে পাছে মায়ের চোখের জল! দুখ সয়ে যে গর্ভে রেখে করলো রে যতন,
তারচে’ পরম ধন কি আছে অমূল্য রতন!
সেই মায়েরে রাখলে দোরে
উঠবে খোদার আরশ নড়ে
বইবে না আর পড়ুন
কবিতা | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১১৭ বার দেখা | ৮৫ শব্দ ১টি ছবি