বোরহানুল ইসলাম লিটন-এর ব্লগ

কবির জন্ম নওগাঁ জেলাধীন আত্রাই থানার অন্তর্গত কয়েড়া গ্রামের সম্ভ্রন্ত এক মুসলিম পরিবারে। পিতা মরহুম বয়েন উদ্দিন প্রাং ছিলেন সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও মাতা লুৎফুন নেছা গৃহিণী। বর্তমানে কবি একই থানার অধিনস্থ পাঁচুপুর গ্রামে স্থায়ীভাবে বসবাস করছেন। তিনি অনেকটা ‍নিভৃতচারী লেখিয়ে।

আর দিও না ফাঁকি! (গীতিকাব্য)
আর দিও না ফাঁকি! (গীতিকাব্য)
ক্যামনে খুঁজি তোমার চরণ
লিপ্সা করে বোধ যে হরণ
ব্যাকুল সাঁঝে তবু আশায় ডাকি –
আর দিও না দয়াল তুমি ফাঁকি! এই তনু মন তোমার গড়া তুমিই বুকের মান,
সুর না দিলে দাসের গলে ক্যামনে শুনাই গান!
তোমার কৃপা না যদি পাই
কি বা পরি ক্যামনে বা পড়ুন
কবিতা | ৪ টি মন্তব্য | ৫৫ বার দেখা | ৮০ শব্দ ১টি ছবি
দাও গো সুধা! (গীতিকাব্য)
দাও গো সুধা! (গীতিকাব্য)
তোমার নামের দাও গো সুধা
অধম দাসের অন্তরে –
ডাকি বসে আরশিনগর বন্দরে! নীড় হারায়ে ভাবনা যতো
খায় এ হৃদয় কুরে,
সাধের জনম যায় যে বৃথা
রাখলে তুমি দূরে।
নিদেন কালে দাও গো দেখা
মীম আলিফের মন্তরে –
ডাকি বসে আরশিনগর বন্দরে! ডুকরে আজি ছেঁড়া আশা
গড়ে ভুলের বাড়ি,
পয়সা বিনে নীল পড়ুন
কবিতা | ৪ টি মন্তব্য | ৮৬ বার দেখা | ৫৪ শব্দ ১টি ছবি
চাস নে কেনো মা! (গীতিকাব্য)
চাস নে কেনো মা! (গীতিকাব্য)
তোরই গাঁয়ের শ্যামল মাঠে
মনটা আমার যায় ছুটে –
তুই মা তবু চাস নে কেনো খড় ঘুটে!
ভাবি সংকটে –
তুই মা তবু চাস নে কেনো খড় ঘুটে! সকাল সাঁঝে দুই কানে মা বাজেই পাখির সুর,
লাটাই ঘুড়ি যায় নিয়ে মন আশায় অনেক দূর!
সবুজ ক্ষেতের পড়ুন
কবিতা | ৪ টি মন্তব্য | ১৭৬২ বার দেখা | ৯৩ শব্দ ১টি ছবি
পৃথিবীতে সবাই সাধু
পৃথিবীতে সবাই সাধু
বেশ কিছু রহস্যের গল্প পড়ে
এক সময় নিজেকে গোয়েন্দা ভাবতে শুরু করলাম,
ভাববোই না বা কেন
যেথায় যাই যেখানেই বসি একই কথা –
ভাই আজ চরম শ্বাসরুদ্ধকর একটা গল্প শুনাতে হবে,
কাল অমুকের বাড়িতে অবাক এক কাণ্ড ঘটেছে
চলো না যদি রহস্যের কিনারা করতে পারো!
আর পড়ুন
অণুগল্প | ৪ টি মন্তব্য | ১৭৫৬ বার দেখা | ৩২৮ শব্দ ১টি ছবি
জ্বীনের খিটমিটে হাসি
জ্বীনের খিটমিটে হাসি
এক সময় ষষ্ঠ শ্রেণীর উপরে অধ্যয়ণরত প্রতিটি ছাত্রেরই
লজিং অথবা বোডিং -এ থেকে লেখাপড়া করার সুবাদে
নিজেস্ব ট্রাঙ্ক থাকতো।
তখন আমি দশম শ্রেণীর ছাত্র।
তাই — ক’দিন থেকেই চলতে ফিরতে মনে হচ্ছিল
সব সময় কে যেন আমাকে ফলো করে।
কখনো ডানে কখনো বামে আবার কখনো পিছে পড়ুন
অণুগল্প | ৪ টি মন্তব্য | ৮২ বার দেখা | ২০৬ শব্দ ১টি ছবি
রুবাইয়াত-ই-বোরহান (মা হারা মন)
রুবাইয়াত-ই-বোরহান (মা হারা মন)
(১)
মেললে বসে চাঁদ রাতে তার রূপায় মাখা রঙ তুলি,
এই প্রকৃতিই নেচে উঠে জীব খ্যালে সব ডাংগুলি।
ঘোরও আড়ে রয় না বেজার চষতে যা মান খাপছাড়া,
ডুকরে শুধু এই মনে আজ মা মা ডাকা দিনগুলি। (২)
হুতোম যদি ঠ্যাং তুলে ওই বাবলা শাখে গায় নেচে,
গুবরে পড়ুন
কবিতা | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৮৮ বার দেখা | ১৩২ শব্দ ১টি ছবি
চন্দ্র রে তুই দিস্ নে আমায় ফাঁকি! (গীতিকাব্য)
চন্দ্র রে তুই দিস্ নে আমায় ফাঁকি! (গীতিকাব্য)
চন্দ্র রে তুই দিস্ নে আমায় ফাঁকি!
তোরই আশায় রয় জেগে এই
ব্যাকুল দু’টি আঁখি –
চন্দ্র রে তুই দিস্ নে আমায় ফাঁকি! দিন শেষে যেই আঁধার নামে তৃষ্ণা উঠে জ্বলে,
কাঁপন চেপে হাত পেতে রই জ্যোৎস্না দিবি বলে।
মন হলে রে ধৈর্যহারা
ক্ষণে ক্ষণে দিই ইশারা
রোজ পড়ুন
কবিতা | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৮৯ বার দেখা | ৮৮ শব্দ ১টি ছবি
মন তবে ক্যান অচিনপুর! (গীতিকাব্য)
মন তবে ক্যান অচিনপুর! (গীতিকাব্য)
বিশ্বাসেই সে’ বস্তু মিলে
তর্কে নাকি বহুদূর –
মনটা আমার ক্যান তবে গো অচিনপুর!
মিঠা নয় কি গুড় –
মনটা আমার ক্যান তবে গো অচিনপুর! থাকবো ভেবে সুখের আশায় হলাম গেছো ব্যাঙ,
ডাল নিলো এক বৈশাখী ঝড় ভাঙলো আমার ঠ্যাঙ।
কান্দি বসে গাছতলে আজ
যায় যদি ঢেউ খানিক পড়ুন
কবিতা | ৬ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৮৮ বার দেখা | ৮৮ শব্দ ১টি ছবি
ঝরলে পাছে মায়ের চোখের জল! (গীতিকাব্য)
ঝরলে পাছে মায়ের চোখের জল! (গীতিকাব্য)
সাধের জনম বৃথা যাবে মরণ হবে খল –
ঝরলে পাছে মায়ের চোখের জল!
সইবি নিঠুর ফল –
ঝরলে পাছে মায়ের চোখের জল! দুখ সয়ে যে গর্ভে রেখে করলো রে যতন,
তারচে’ পরম ধন কি আছে অমূল্য রতন!
সেই মায়েরে রাখলে দোরে
উঠবে খোদার আরশ নড়ে
বইবে না আর পড়ুন
কবিতা | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৮৪ বার দেখা | ৮৫ শব্দ ১টি ছবি
চাঁদনী রাতে নদীর ঢালে আইসো!
চাঁদনী রাতে নদীর ঢালে আইসো!
কুসুম কুসুম আদর দিমু
লাজ হারা বায় হাইসো –
চাঁদনী রাতে নদীর ঢালে আইসো! গান শুনামু মধুর সুরে
পাগল স্রোতের মতো,
কাড়মু রে দুখ শীতল চুমে
বললে অবিরত!
যতন করে রাখমু বুকে
সুখের নায়ে ভাইসো –
চাঁদনী রাতে নদীর ঢালে আইসো! ঢালমু মায়া চাঁদের মতো
দেখে ব্যাকুল আঁখি,
ঢেউয়ের তালে চাইলে দিমু
মাতাল পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৭৫ বার দেখা | ৫৩ শব্দ ১টি ছবি
অন্তরে দাও আমার নবীর রওজা শুধু আনি!
অন্তরে দাও আমার নবীর রওজা শুধু আনি!
প্রভু —
চাই না হতে মোহের তাপে মানী –
অন্তরে দাও আমার নবীর
রওজা শুধু আনি!
টানুক এ প্রাণ যতোই দুখের ঘানী –
অন্তরে দাও আমার নবীর
রওজা শুধু আনি! শ্রদ্ধা ভরে পড়বো দরুদ অন্তরে দাও বল,
দূর করো সব পাপ কালিমা শয়তানী অনল।
অক্ষিতে দাও আশার বারি
টুটে ধনের পড়ুন
কবিতা | ৬ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৮৪ বার দেখা | ৮১ শব্দ ১টি ছবি
এ কি গরম!
এ কি গরম!
গরমের এ কি ধার – আগুনও মানে যে হার
সূর্যটা কেন এতো রেগেছে!
মেঘেরা মেলে না ছাতা – অনড় গাছের পাতা
তবে কি বাতাস ভয়ে ভেগেছে! পাখিদের ঠোঁট ফাঁক – গো ছাগ দেয় না হাঁক
ফসলের মাঠে নেই ছন্দ,
পাশাপাশি কাক হাঁস – ছায়ে করে হাঁসফাঁস
ভুলেছে পড়ুন
কবিতা | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৮৪ বার দেখা | ৬৫ শব্দ ১টি ছবি
মহা গুজব!
মহা গুজব!
মজার খেলা রে ভাই দেখি বসে আকাশে,
মেঘ দেয় হামাগুড়ি মাটি উড়ে বাতাসে।
মান কিনে ডাবগাছ জেগে তাল পুকুরে,
ছাগ গায় হুয়া হুয়া ব্যা ব্যা ডাকে কুকুরে। মাছ খায় গাছে দোল উদ ঘুরে শুকানে,
নদী কাঁদে ধারা খোয়ে খাল ধায় উজানে।
বিলি দেয় রোজ ছানা মূষিকের পড়ুন
কবিতা | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১১০ বার দেখা | ৮৯ শব্দ ১টি ছবি
আষাঢ়ে খুঁজি শালিক
আষাঢ়ে খুঁজি শালিক
প্রখর রোদের দাপট গেলেই সিক্ত হয় এ আঁখি,
সেই যে তুমি চলে গেলে পত্র লিখে রাখি –
’যতোই ভাবো মোহের কাছে গেলাম আমি হেরে
আসবো কোন আষাঢ় মাসে হয়ে শালিক পাখি!’ কদম কেয়া উঠলে জেগে রয় কি আজও হেলা!
অবাক চোখে চেয়ে দেখি কিশোর পড়ুন
কবিতা | ৬ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১২২ বার দেখা | ১০৪ শব্দ ১টি ছবি
এক খুকির কথা
এক খুকির কথা
বসে আছি একা টঙের কিনারে
এক খুকি এসে কয়,
দাও না বেড়ার বন্ধন খুলে
আমি কি আপন নয়! ওপাড়ে দেখেছি পড়ে আছে কতো
টসটসে পাকা জাম,
কুড়িয়েও খেলে করবো না বলো
হরষে তোমারি নাম! বললুম তারে বাঁধা নেই খুকি
আরও খুশি হবো জেনে,
স্বচ্ছ পানিতে ডুবিয়ে তা খাবে
এ কথা পড়ুন
কবিতা | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১১৮ বার দেখা | ৬৯ শব্দ ১টি ছবি