লেখকের আর্কাইভঃ জিল্লুর রহমান

জিল্লুর রহমান সম্পর্কে

চোখের সামনে যেকোন অসঙ্গতি মনের মধ্যে দাগ কাটতো, কিশোর মন প্রতিবাদী হয়ে উঠতো। তার বহিঃপ্রকাশ ঘটতো কবিতা লেখার মধ্য দিয়ে। ক্ষুধা ও দারিদ্রের বিরুদ্ধে, নির্যাতন ও বঞ্চনার বিরুদ্ধে প্রতিবাদী কবিতা। কবিতার পাশাপাশি সামাজিক অসঙ্গতি নিয়ে শুরু হলো ছোটগল্প, উপন্যাস লেখা। একে একে প্রকাশিত হতে থাকলো কাব্যগ্রন্থ, উপন্যাস। প্রকাশিত হলো অমর একুশে বইমেলা-২০১৬ পর্যন্ত ০১টি কাব্যগ্রন্থ, ১৭ টি উপন্যাস এবং ০১ টি ধারাবাহিক উপন্যাসের ০৩ খণ্ড। গ্রন্থ আকারে প্রকাশের পাশাপাশি লেখা ছড়িয়ে পড়ল অনলাইনেও। লেখার শ্লোগানের মতো প্রতিটি উপন্যাসই যেন সামাজিক অবস্থার প্রতিচ্ছবি। সর্বশেষ প্রতিচ্ছবিটি প্রকাশিত হয় অমর একুশে বইমেলা-২০১৭।
নিবন্ধিত হয়েছেনঃ 2017-02-16 15:17:50
পোষ্ট সংখ্যাঃ 23
মন্তব্য সংখ্যাঃ 64
লেখকের অন্যান্য লিংকঃ

বিদায় বেলা-শেষ পর্ব
লিখেছেনঃ | তারিখঃ ১১ মার্চ, ২০১৭

বদলির আদেশ পাবার পর জয়ের যাবার প্রস’তিও সম্পন্ন হলো। জয় এই দীর্ঘ কর্মজীবনে অনেক জায়গায় চাকুরি করেছে, অনেক ঘাটে তরী ভিড়িয়েছে কিন’ কোথাও নোঙ্গর ফেলেনি। কোথাও তার হৃদয় গেঁথে যায়নি। অথচ জয়পুরহাটে শুধু তার হৃদয় গেঁথেই গেলো না, হৃদয় খণ্ডিত … বিস্তারিত পড়ুন

গল্প ৬ টি মন্তব্য | ৮২ বার পঠিত হয়েছে

বিদায় বেলা-০২
লিখেছেনঃ | তারিখঃ ৯ মার্চ, ২০১৭

কয়েকমাস আগের কথা। ইরার সঙ্গে তখনো জয়ের বিয়ে হয়নি। ইরা তার সঙ্গে দেখা করার জন্য প্রায়ই কোনো না কোনো কাজের অজুহাতে জয়পুরহাট আসতো। দু’জনে সারাদিন ঘুরে বেড়াতো, সাথী নার্সারি, উর্বী নার্সারী, শিশু উদ্যান, বারো শিবালয় মন্দির, ছোট যমুনার পাড়। কেনাকাটা … বিস্তারিত পড়ুন

গল্প ৬ টি মন্তব্য | ৪০ বার পঠিত হয়েছে

বিদায় বেলা-০১
লিখেছেনঃ | তারিখঃ ৮ মার্চ, ২০১৭

ক’দিন হলো ইরার সাথে জয়ের বিচ্ছেদ হয়েছে। ওদের প্রায় তিন বছরের প্রেম, জয়পুরহাটের পথ-ঘাট, হোটেল-রেস্টুরেন্ট, পার্ক-নার্সারিতে মুক্ত পাখির মতো ছুটে বেড়ানো, তিপ্পান্ন দিনের দাম্পত্য জীবনের অবসান হয়েছে। শরীরের কোনো অঙ্গ বিচ্ছেদ হলে মানুষ দেখতে পায়, অঙ্গ বিচ্ছেদের কারণে শরীর থেকে … বিস্তারিত পড়ুন

গল্প ৬ টি মন্তব্য | ৫২ বার পঠিত হয়েছে

জীবনের শেষ গোধূলী-শেষ পর্ব
লিখেছেনঃ | তারিখঃ ৫ মার্চ, ২০১৭

ইরা গতকাল গ্রামের বাড়ি এসেছে। আসার পর থেকে সুযোগ খুঁজেছে বাসা থেকে বেরিয়ে জয়পুরহাট আসার। তারপর স্মৃতিময় বারো শিবালয় মন্দির, ছোট যমুনা নদী। জয় ইরাকে কথা দিয়েছিলো প্রতি বছর বছরের শেষ গোধূলীটা দু’জনে একসঙ্গে দেখবে। আজ সেই সুযোগ পেয়েছে ইরা, … বিস্তারিত পড়ুন

গল্প ৭ টি মন্তব্য | ১১৮ বার পঠিত হয়েছে

জীবনের শেষ গোধূলী-দ্বিতীয় পর্ব
লিখেছেনঃ | তারিখঃ ১ মার্চ, ২০১৭

হাঁটতে হাঁটতে ইরা ঠিক সেই জায়গায় গেলো আজ থেকে প্রায় দুই যুগ আগে যেখানে সে আর জয় বছরের শেষ বিকেলটা কাটিয়েছিলো। তারপর ইরাকে মোশা নিয়ে গেলো তার বাসায়, তার কাছ থেকে মোবাইল ফোন কেড়ে নিয়ে প্রথম কয়েকদিন ঘরে বন্দি করে … বিস্তারিত পড়ুন

গল্প ৪ টি মন্তব্য | ৭৮ বার পঠিত হয়েছে

জীবনের শেষ গোধূলী-১ম পর্ব
লিখেছেনঃ | তারিখঃ ২৮ ফেব্রুয়ারী, ২০১৭

ষাট/পঁয়ষট্টি বছর বয়সের এক বুড়ি, সমস্ত চুল পাকা সাদা ধবধবে, পাটের মতো সাদা। কপালের চামড়ায় ভাঁজ পড়েছে, চিবুক, গালের চামড়ায়ও অসংখ্য ভাঁজ পড়েছে। সেই বুড়ি বারো শিবালয় মন্দিরের গা ঘেঁষে প্রাচীন বটগাছটার আশেপাশে, ছোট যমুনা নদীর তীরে সেই বিকেল থেকে … বিস্তারিত পড়ুন

গল্প ৬ টি মন্তব্য | ৭০ বার পঠিত হয়েছে

কাশফুল
লিখেছেনঃ | তারিখঃ ২৪ ফেব্রুয়ারী, ২০১৭

তুমি কাশফুল চেয়েছিলে চেয়েছিলে একটা নদী নদীর ধারে আমার বুকের মতন সাদা কাশফুল একাকার হয়ে মিশে যাবে তুমি কাশফুলে লুকাবে মুখ ভুলে যাবে পৃথিবীর যত জ্বালা-যন্ত্রণা। তুমি এলে গোধূলী লগ্নে, ছোট যমুনার তীরে লুটিয়ে পড়লো গোধূলীর লাল আভা আমি তন্ময় … বিস্তারিত পড়ুন

কবিতা ৮ টি মন্তব্য | ১০৪ বার পঠিত হয়েছে

সাইক্রিয়াটিস্ট
লিখেছেনঃ | তারিখঃ ১৯ ফেব্রুয়ারী, ২০১৭

আজ সকাল থেকে ইরার মনটা খারাপ। প্রতিদিনের মতো সকালবেলা উঠে নাস্তা তৈরি করেনি। ড্রয়িং রুমের ছোট্ট চৌকিটায় শুয়ে শুয়ে টি.ভি দেখছে ঠিক সেভাবে বসে সেভাবে জয় যেভাবে জয় এই চৌকিটায় এসে বসতো সেভাবে। সেদিন ইরার সকালবেলা উঠেই ব্যস্ততা শুরু হয়েছিলো। … বিস্তারিত পড়ুন

গল্প ৮ টি মন্তব্য | ৪৮ বার পঠিত হয়েছে