শাহ আলম বাদশা-এর ব্লগ

৮০ দশকের কবি, ছড়াকার, গীতিকার বিশেষত; শিশুসাহিত্যিক। ৬টি প্রবন্ধ সংকলন, ৩টি গল্পসংকলন, ৩টি শিশুতোষ ছড়াগ্রন্থ, ২টি ছড়াগ্রন্থ, ৩টি কাব্যগ্রন্থ, ৭টি অডিও-ভিডিও এলবাম প্রকাশিত হয়েছে। ১৯৭৭ সাল থেকেই বাংলাদেশ ও ভারতের পত্র-পত্রিকায় লেখালেখি। ১৯৭৮ সালে তৎকালীন রেডিও বাংলাদেশ রংপুর কর্তৃক ‘‘উত্তরবঙ্গের শ্রেষ্ঠ ছড়াকার’’ হিসেবে স্বীকৃতিপ্রাপ্ত। ১৯৮৬ সালে সিলেট ছড়া পরিষদ কর্তৃক ছড়ায় অবদান রাখার জন্য পুরস্কৃত। ১৯৮৭ সাল পর্যন্ত জাতীয় বিভিন্ন দৈনিকে সাংবাদিকতাছাড়াও বিভিন্ন সাহিত্য পত্রিকা যেমন; লালমনিরহাট থেকে ত্রৈমাসিক চলমান, ত্রৈমাসিক ব্যতিক্রম, ত্রৈমাসিক দারুচিনি, ত্রৈমাসিক কিশোরকন্ঠ, ত্রৈমাসিক প্রজাপতিসহ (অধুনালুপ্ত) বিভিন্ন পত্রিকার সম্পাদক এবং লালমনিরহাটের প্রথম প্রকাশিত ‘সাপ্তাহিক জানাজানি’র প্রতিষ্ঠাতা সাহিত্যসম্পাদক ছিলেন।

শাহ আলম বাদশা’র প্রকাশিত অডিও-ভিডিও এলবাম এবং গ্রন্থসমূহঃ
১। ভোরের পাখিরা [অডিও-ভিডিও এলবাম-১৯৮৯]
২। শিহরণ ১ ও ২ [অডিও এলবাম-১৯৯৩]
৩। শিহরণ ২ [অডিও এলবাম-১৯৯৩]
৪। প্রত্যয় [অডিও এলবাম-১৯৯৪]
৫। প্যারোডি গান [অডিও এলবাম-১৯৯৫]
৬। তথ্য পেলেন কাশেম চাচা [নাটিকার ডিভিডি-২০০১৪]
৭। তথ্য কমিশনের বিচারিক কার্যক্রম [প্রামাণ্যচিত্রের ডিভিডি-২০১৪]
৮। কিশোকন্ঠ গল্পসমগ্র-১ (গল্পগ্রন্থ)-২০০১]
৯। মা ও শিশু [প্রবন্ধগ্রন্থ (১খণ্ড)-২০০৬]
১০। মা ও শিশু [প্রবন্ধগ্রন্থ (২খণ্ড)-২০০৭]
১১। মা ও শিশু [প্রবন্ধগ্রন্থ (৩খণ্ড)-২০০৮]
১২। মা ও শিশু [প্রবন্ধগ্রন্থ (৪খণ্ড)-২০০৯]
১৩। স্বপ্ন দিয়ে বোনা [গল্পগ্রন্থ-২০১৩]
১৪। মুক্তিযুদ্ধ এবং অন্যান্য গল্প [গল্পগ্রন্থ-২০১৫]
১৫। দুরছাই ধুত্তোরী ছাই [শিশুতোষ ছড়াগ্রন্থ-২০১৫]
১৬। ছড়িয়ে দিলেম ছড়া [ছড়াগ্রন্থ-২০১৬]
১৭। হৃদয়জমিন [কাব্যগ্রন্থ-২০১৬]
১৮। নিপুণ শব্দস্রোত [কাব্যগ্রন্থ-২০১৬]
১৯।লিন্তামণির চিন্তা-[শিশুতোষ ছড়াগ্রন্থ-২০১৬]
২০। ছোট্টমণির প্রশ্ন অনেক [শিশুতোষ ছড়াগ্রন্থ-২০১৭]
২১। ধোঁয়াচ্ছন্ন অন্ধকার-[কাব্যগ্রন্থ-২০১৭]
২২। ছড়াময়-[ছড়াগ্রন্থ-২০১৭]
২৩। লিমেরিক-[লিমেরিকগ্রন্থ-২০১৭]
২৪। কমন-স্যার-[গল্পগ্রন্থ-২০১৭]

শাহ আলম বাদশা
#শামেরিক #সাহেবজাদা সাহেবজাদা তোলেন চাঁদা ভোলেন দেশের নীতিও
দেশের প্রতি দশের প্রতি আছেও নাকি প্রীতিও!
আমরা যারা চুনোপুঁটি
অভাবে খাই লুটোপুটি
আইনে বাঁধে সাহেবজাদে শোনায় নিয়ম-গীতিও।
ক্ষমতাতে মমতাতে এরাই আবার কৃতীও!! পড়ুন
ছড়া ও পদ্য | ৯ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৪৬১ বার দেখা | ২৫ শব্দ
কবিকবি-ভাব ছন্দের অভাব
ছড়ার ছন্দ বনাম মাত্রাবৃত্ত এবং সেকেলে শব্দ:
আমি বিচ্ছিন্নভাবে ছন্দ ও পদ্যের ভাষা ও শব্দচয়ন নিয়ে অনেক প্রবন্ধ লিখেছি। সবগুলো প্রবন্ধ কেউ পড়ে থাকলে আমাকে ভুলবোঝার বা আমার কথার অপব্যাখ্যা করার সুযোগ নেই। কিন্তু আমার মতামত বা বক্তব্য বলে অনেকেই এমন কিছুকথা লিখছেন বা পড়ুন
ছড়া ও পদ্য | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১৭৬১ বার দেখা | ৮৫৪ শব্দ
জীবনঘুড়ি
[তিনপর্ববিশিষ্ট মাত্রাবৃত্ত] ঝাঁঝালো সকাল রোদেলা দুপুর মিষ্টিবিকেল
পায়ে পায়ে সেযে হেঁটে যায় নিজে ফুরায় না পথ
সময়ের ঘুড়ি করে ওড়াউড়ি যেন একরেল
কচ্ছপগতি হোক না সে অতি অবিরাম রথ।
পার হয় চর বিশাল সাগর এই তার খেল
আমায় সে দলে ছুটে যায় চলে নেই ফুরসৎ
খেলে আলোছায়া কীযে মহামায়া আর হিম্মত
আমার পড়ুন
অন্যান্য | ৮ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৩৮২ বার দেখা | ৮৭ শব্দ
শব্দনীড়কে আদর্শ সাহিত্যব্লগ করতে আমার কিছু পরামর্শ
আমি একসময় ব্লগে নিয়মিত ছিলাম। কিন্তু চাকরিগত ও বিভিন্ন কারণে ২ বছর যাবত সমস্ত ব্লগ থেকেই নির্বাসিত আছি। মূলত ব্লগগুলো গতানুগতিকতার ধারায় আমি খাপ খাওয়াতে পারছিলাম না। একঘেয়েমীও লাগছিল। তাই ফেসবুকের একটি ব্যতিক্রমী একটি ‘রঙধনু সাহিত্যগ্রুপ’ [wwwfacebook/groups/littlemagazinechharpotro] খুলে সাহিত্যের নবদিগন্ত চালুর চেষ্টা করে সফল পড়ুন
সমকালীন | ৩২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৯৬৩ বার দেখা | ৩১৫ শব্দ
বাংলাবানান ও শব্দগঠন: ভুল শুধু ভুল
সাহিত্যে সাধু-চলিত ও আঞ্চলিক শব্দের ব্যবহার:
অধুনালুপ্ত সংস্কৃতভাষার সন্তানই হচ্ছে বাংলাভাষা। সংস্কৃতশব্দকে বাদ দিলে বাংলাভাষা আর থাকে না। সাধারণত ক্রিয়াপদের ওপর ভিত্তি করেই বাংলাভাষাকে আমরা সাধু ও চলিতরূপেই চিহ্নিত করি। আমাদের সমৃদ্ধ বাংলাভাষা মূলত তিনপ্রকার, যথা:
১ সাধুভাষা:
আমি তোমাদের বাংলাশিক্ষাদান করিব। এটি সাধুভাষার পড়ুন
সমকালীন | ৯ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৪৮০ বার দেখা | ৭৯৭ শব্দ
নৈঃশব্দের অতলান্ত-সুখ
নৈঃশব্দের অতলান্ত-সুখে আমি সাঁতরাতে চাই
সুখ-সাঁতারকাটে যেমন পাখপাখালি-সবুজ
ওরাওতো মানুষের মতো বাঁচে-মরে, খেটে খায়
বড় হয় ক্রমশ বাড়ায় বংশক্রম;
তার কতটুকুই বা দেখে আমাদের চর্মচোখ?
ওদের নিয়ত ভাঙ্গাগড়ার নন্দিত সংগ্রাম
কখনো কি ঘটায় আমাদের সুখের ব্যাঘাত! অথচ এখানে হার্টবিটবাড়ায় শব্দদূষণ
সকাল-সন্ধ্যা, নিশুতিরাত অহরহ প্রতিদিন–
আমরা সয়ে যাচ্ছি ক্ষয়ে যাচ্ছি হয়ে যাচ্ছি পড়ুন
কবিতা | ৬ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ২৬৪ বার দেখা | ৬৪ শব্দ
কবিতার নামে পদ্য বা গদ্যলেখা:
মাইকেল মধুসূদন দত্ত বলেছেন, শব্দে শব্দে বিয়ে দিলেই কবিতা হয় না। একেবারেই খাঁটি ও সত্যকথা। তেমনই ছন্দ ও উপমা নাথাকলেও কবিতা হয় না। কবিতার ছন্দ:
কবিতাসহ সবধরণের পদ্যেরই প্রাণ হচ্ছে, মনমাতানো ছন্দের দ্যোতনা। ছন্দহীন কবিতা গন্ধহীন ফুলের মতন। সুন্দরশব্দ ও উপমাবিহীন কবিতা প্রাণহীন শুকনো পুষ্পমাল্যবিশেষ। তবে পড়ুন
কবিতা, ছড়া ও পদ্য | ১৫ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৭৩৮ বার দেখা | ৫২৯ শব্দ
৬ পঙক্তির "শামেরিক"
ছড়ার একমাত্র ছন্দ স্বরবৃত্তচালের নতুন এক পদ্যরীতি হচ্ছে ‘শামেরিক।’ এর চরিত্রগত কাঠামো হবে স্রেফ ছড়ারই আদলে। শামেরিক মূলত ব্যঙ্গাত্মক, রসাত্মক, ঘৃণাত্মক, প্রতিবাদী ও অর্থবোধক ছড়া যা ককখখকক চালের। এর ১ম দু’পঙক্তি ও শেষ দু’পঙক্তির মাত্রাসংখ্যা হয় মোট ১৪ বা ১৫টি করে। কক পড়ুন
ছড়া ও পদ্য | ১১ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৫৯৩ বার দেখা | ২৬০ শব্দ
সিঁড়ি
ফ্লাগহাঁকিয়ে যাও তাকিয়ে
আমরা কেমন বলদ রে
ভোট দেয়াটাই গলদ রে!
ভোটটা নিয়ে রোডটা দিয়ে
যাও দেখিয়ে দাপটটা
পাবে কি আর সাপোর্টটা? রোড কি আবার তোমার বাবার
দাও করে দাও বন্ধ রে
এইটা কেমন ছন্দ রে!
তোমার যাওয়া আমার পাওয়া
এমন নাজেহাল যে
খুব পোড়াকপাল যে। মন্ত্রী তুমি যন্ত্রী তুমি
কী দারুণ সেবক রে
বকধার্মিক হে বক পড়ুন
ছড়া ও পদ্য | ৮ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ২৯৭ বার দেখা | ৫৪ শব্দ
আমার কবিতারা
নীলাকাশে যখন হেসে হেসে ছন্দতুলে নেচে যায়
নানারঙের শাড়িপরা উর্বশী পেজাপেজা মেঘ;
তখন আমার কবিতারা বারবার উঁকিঝুঁকি দেয়
উড়ে যেতে চায় ঐ সুন্দরী-নর্তকীমেঘের ভেলায়
মনটাও মোচড় দিয়ে ওঠে কী প্রচণ্ড প্রসব-ব্যথায়। পাখপাখালি জারিগেয়ে সারিসারি উড়ে যায়
ধীরে ধীরে মিলিয়ে তারা দূরনীলিমায় বহুদূরে যায়
সাথে সাথে সুরমিলিয়ে আমার পাগল-কবিতারাও
ছুটে যেতে চায়, পড়ুন
কবিতা | ৬ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৩২৮ বার দেখা | ১১১ শব্দ