মুহাম্মাদ মাসুদ-এর ব্লগ

মুহাম্মাদ মাসুদ (মোঃ মাসুদ রানা)। ১৯৯৫ সালের ১৪ এপ্রিল সিরাজগঞ্জ জেলার শাহজাদপুর উপজেলার এনায়েতপুর থানার চৌবাড়ীয়া গ্রামে জন্ম গ্রহণ করেন।
পিতা মোঃ লাল মিয়া, মাতা মোছাঃ জাহানারা খাতুন।

শিক্ষা জীবনঃ চৌবাড়ীয়া টোকের পাড়া বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে পাশ করে স্থল পাকড়াশী ইন্সটিটিউশনে ভর্তি হন। পরবর্তীতে বাড়ির পাশে নতুন স্কুল প্রতিষ্ঠিত হলে ৮ম শ্রেণীতে সৈয়দপুর উচ্চ বিদ্যালয়ে ভর্তি হন। বিজ্ঞান বিভাগ থেকে মাধ্যমিক পাশ করে ভর্তি হয় খামারগ্রাম মহাবিদ্যালয়ে। ২০১২ সালে ব্যাবসায় শিক্ষা শাখা থেকে পাশ এইচএসসি করেন এবং ২০১৬ সালে মানবিক শাখায় বেলকুচি সরকারি কলেজ থেকে বিএ (ডিগ্রী পাশ কোর্সে) করেন।
প্রকাশিত কাব্যগ্রন্থঃ যৌথভাবে মুক্তচিন্তা (২০১৮) ও নীলপদ্ম (২০১৯ বইমেলা) দন্ত্য ‘স’ প্রকাশনী থেকে প্রকাশ পায়।
গল্পগ্রন্থঃ হুমায়ূন হিমু (বইমেলা – ২০২০)।

গল্পের পার্থক্য নেই
রাত গাছে হরেক রকমের চাঁন
হরেক রকমের তাঁরা
একটার পর একটা দাঁড়িয়ে
চেকপোস্টের সামনে ঝোপঝাড়ের কাছে! অন্ধকার দড়িতে হাঁটে ঘেউঘেউ কুকুর
দাম কষাকষি হয় চাঁনের
কুকুর খাবার পায়
কচমচ করে চিবিয়ে খায়! দুটি কুকুর মজা পায়
একজন শরীরের অন্যজন অর্থ-দেহের
পাপীদের পাপ ছুয়ে দেখে না
পাপীরা মরে পড়ুন
কবিতা | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৪১৬ বার দেখা | ৪৯ শব্দ
অভাব
আলোর ঘর নেই-
উঠোনের নেই বারান্দার ছাউনি
বৃষ্টির নিজস্ব শিহরণের অভাব!
বালিশের মুখোশ উন্মুক্ত
নিমগাছ নিজে থেকেই ঔষধ
আর আমি! পরিত্যক্ত প্রেমিক। জোৎস্নার ছায়া মুকুট নেই-
চাঁদের নিবুনিবু আলোর সংকট
ঝিঁঝিঁপোকা সুরে ডাকে না
নৌকার পালে বাতাসের আঁচড় নেই
পাতিহাঁসের সংসার পানিতে ভাসমান
আর আমার! ঘরে গৃহবধূর প্রতিকৃতি নেই। পড়ুন
কবিতা | ১০ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৪৮৬ বার দেখা | ৪৪ শব্দ
পথ ও পাপী
মেঘেদের বাড়ি নেই
অন্যের উঠানে বসবাস।
ছায়াদেহের মৃত্যু নেই
অন্যের মৃত্যুতে হাসফাস। প্রেমে দুটি অক্ষর আছে
শরীরে মাংস নেই।
প্রেমিকার রেঁধে খাওয়ার দেহ আছে
বিবাহ বাসনা নেই। পড়ুন
কবিতা | ৬ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ২০২ বার দেখা | ২৮ শব্দ
রূপমাধুরী
প্রিয় প্রিয়তমেষু
চাঁদমুখ চাহনি
এমন রূপের আস্ফালে জ্বলেপুড়ে দেহকোষ।
প্রিয় সুজনেষু
এলোকেশ আবরণী
এমন কেশবহুল আলাপে নেই দোষ। প্রিয় পাখি
আকাশস্পর্শী আঁখি
এমন আকাশে উড়াই নাটাই ঘুড়ি।
প্রিয় সুখী
জোৎস্না মাখি
রূপের হাসিতে ঘুড়ি হয়ে উড়ি। প্রিয় রূপবতী
কাজলের দীঘি
এমন কাজলের টিপে কৃষ্ণবর্ণ সাজি।
প্রিয় মায়াবতী
ঠোঁটের পড়ুন
কবিতা | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৪৭৯ বার দেখা | ৬৬ শব্দ
আত্মার মাগফেরাত
আত্মার মাগফেরাত মামা দুইডা ট্যাকা দেন। মামা দুইডা ট্যাকা দেন। এভাবেই বারবার বলে বলে পিছু পিছু ঘুরছে ছেলেটি। তখন আমি ওভারব্রিজ সিঁড়ির এক কোণে কোণঠাসা হয়ে বসে আছি। আর কান্ডকারখানাগ দেখছি। শেষ পর্যন্ত।
লোকটি (যাকে মামা বলে সম্মোধন করলো) পাশের দোকান থেকে একটি স্পীড ড্রিংকস, পড়ুন
অণুগল্প, গল্প | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৫৯২ বার দেখা | ২৬৬ শব্দ
তৃপ্তি অতৃপ্তির গল্প
তৃপ্তি অতৃপ্তির গল্প
‘ভাই শুধু টাকা জমিয়ে যাচ্ছে। ব্যাংকে রাখে, ইন্সুইরেন্স করছে, ডিপিএস আরও কতকিছু।’
‘না রেখে উপায় নেই। ছেলে সন্তান হয়েছে। কিছু না রেখে পিতাকে গালি দিয়ে বলবে আমাদের কি করেছো?’
‘আমি ভাই কিছুই রাখবো না। আল্লাহ যা রাখে পড়ুন
অণুগল্প, গল্প | ৬ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ২৪১ বার দেখা | ৩১৫ শব্দ ১টি ছবি
হুমায়ূন হিমু
হুমায়ূন হিমু
পেছনের গল্পঃ সর্বপ্রথম ২০১২ সালে একটি কবিতা লিখেছিলাম। প্রথম কবিতাটি খুব বেশি ভালো ছিলো বলে আমার মনে হয় না। তবুও কেন যেন সেই ভুলে ভরা কবিতাটি ‘মুসফিকা স্মৃতি পাঠাগার’ আয়োজিত মেঠোপথ ম্যাগাজিনে প্রকাশ পায়। তখন অবশ্য প্রকাশ পাওয়ার আনন্দ কেমন পড়ুন
অন্যান্য, গল্প, প্রকাশনা ও রিভিউ | , | ৬ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ২৮৩ বার দেখা | ২৯৯ শব্দ ১টি ছবি
নুপুরের বিছানা
নুপুরের বিছানা
হাউমাউ করে কান্নার শব্দ কানে এসে ভিড় করলো। ততক্ষণে কলিজা শুকিয়ে তেঁতুল পাতা হয়ে গেছে। যার চির চির শব্দ বুকের মধ্যিখানে ধুকপুক ধুকপুক ঢোলের কম্বিনেশনে আহাজারি পায়চারি করছে। বেশকিছু দূরে কেউ একজন কথা বলছে। মুখটা মিষ্টিমুখ, মিষ্টি হাসিতে ভরা। পড়ুন
অণুগল্প | ৫ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৩১৫ বার দেখা | ৯২ শব্দ ১টি ছবি
কমলা রঙের রোদ
কমলা রঙের রোদ
লম্বা চাদর মুড়িয়ে ল্যাম্পপোস্টের নিয়ন বাতির আলোয় সিগারেটের বিবর্ণ ধোঁয়ার জালে ফেঁসে উশখুশ রূপে বসে আছে। উসকোখুসকো চুল দাঁড়ি, হাতে রংবেরঙের ব্রেসলেট, ময়লা জরাজীর্ণ জীর্ণশীর্ণ জিন্স প্যান্ট ফতুয়ায় চেনার উপায় নেই। বিদঘুটে অবস্থা।
কি রে! কি হয়েছে তোর? বিকেল থেকে পড়ুন
অণুগল্প | ৫ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৩৫৭ বার দেখা | ১৩২ শব্দ ১টি ছবি
প্রিয়তমার পিছুপিছু প্রেম
প্রিয়তমার পিছুপিছু প্রেম
প্রেমের রশ্মি ধরে বেয়ে বেয়ে উঠতে গিয়ে কাঠগোলাপের কাঁটায় বুকের বাঁ পাশের কুঁড়েঘরের ছাউনি ভিটায় ক্ষত-বিক্ষত কিছু আঘাতের চিহ্নে এখনো প্রিয়তমার স্মৃতি ভেসে ওঠে। আর স্মৃতির খামখেয়ালি পদচারণে প্রায়শই অজ্ঞান অবচেতনে সূর্য স্নানের স্নিগ্ধতায়ও নিজেকে লুকিয়ে লুকিয়ে মগ্ন নেশায় ছোবল পড়ুন
অণুগল্প | ৯ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৩৬০ বার দেখা | ৩১৪ শব্দ ১টি ছবি
হিমু এবার সিনেমাহলে
হিমু এবার সিনেমাহলে
ভালোবেসে সখি নিভৃতে যতনে, আমার নামটি। গান বাজছে। বারবার বাজছে। ক্রমাগত বাজছে। গানটি শুনতেও বেশ ভালো লাগছে। শুধুমাত্র এই একটি গান শুনলেই বারবার প্রেমে পড়তে ইচ্ছে করে। ইচ্ছে করে প্রিয়তমার হাতে দুহাত রেখে মুখপানে চেয়ে থাকি অজস্র বছর। অজস্র বছরের পড়ুন
অণুগল্প | ৯ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৩১৫ বার দেখা | ৩৯১ শব্দ ১টি ছবি
প্রিয় প্রিয়তমেষু প্রিয়তমার নাম
প্রিয় প্রিয়তমেষু প্রিয়তমার নাম
ঝরঝর করে কাঁদতে লাগলো হিমু। কান্নার শব্দে রান্নাঘর থেকে বুয়া বেরিয়ে এসে বললো – মামা, কাঁদছেন কেন? কি হয়েছে?
কিন্তু কিছুতেই হিমুর কান্না থামছে না। আবার কোন কথাও বলছে না। শুধু খাবারের দিকে একনাগাড়ে তাকিয়ে রয়েছে।
বুয়া গিয়ে অতনুকে ব্যাপারটা খুলে বললো। পড়ুন
অণুগল্প | ১৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৩১৮ বার দেখা | ১৫২ শব্দ ১টি ছবি
হিমুর হাতে নীল রঙের মাফলার
হিমুর হাতে নীল রঙের মাফলার
বাড়ি থেকে ফিরছি। বেশ কয়েকদিন খোলা আকাশের ক্যানভাসের কাপড় পরে, শান্ত গাঙের অথৈজলের শিহরণে শিহরিত হয়ে, খেজুর রসের পায়েসে ভেসে ভেসে ঢেউ খেলেছি। এ যেন মাতৃত্বের টান, শিকড়ের টানে নীড়ে ফেরার তাগিদ। মেঠোপথের দুপাশে রশি বেঁধে পিছুপিছু হেঁটে হেঁটে পড়ুন
অণুগল্প | ১৮ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৪৭৬ বার দেখা | ৪১৪ শব্দ ১টি ছবি
হৃদয় পোড়া দগদগে ক্ষত
হৃদয় পোড়া দগদগে ক্ষত
টিউশনিটা ছেড়েই দিতে হলো। নইলে যে ও কথার ভীড়ের মাঝে লুকিয়ে লুকিয়ে সুর প্রতীকীর সাঁজে নিজেকে সাজিয়ে ফেলতাম। আর নিজের তৃপ্ত কিছু অশোভন ইচ্ছেগুলো মনের নেশায় মাখিয়ে ছোবল দিতেও কুণ্ঠিত বোধ করতাম না। কারণ, অল্প বয়সী মেয়েদের সম্মতি পেতে পড়ুন
অণুগল্প | ১৬ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ২৭৮ বার দেখা | ২৯২ শব্দ ১টি ছবি
প্রিয় প্রিয়তমেষু পাখির বিয়ে
প্রিয় প্রিয়তমেষু পাখির বিয়ে
সিগারেটের আগুনে ঠোঁটের নীলাভ উষ্ণ আবরণে ছোঁয়াচে সুপ্ত মাংসপেশিগুলো কালচে বর্ণ ধারণ করছে। যার কালি দিয়েও হতো প্রিয়তমেষু পাখির কয়েকটি ছবির স্কেচ তৈরি করা যাবে নিমিষেই। নতুবা মাথার চারপাশের সাদা চুলগুলোয় কালো কালির প্রলেপ দেওয়া যাবে হরহামেশাই। হয়তো তখন পৃথিবীর পড়ুন
অণুগল্প | , , | ১৯ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৬৭৭ বার দেখা | ৩১৮ শব্দ ১টি ছবি