জাহাঙ্গীর আলম অপূর্ব-এর ব্লগ

জাহাঙ্গীর আলম অপূর্ব সিরাজগঞ্জ জেলার রায়গঞ্জ উপজেলার নলছিয়া নামক গ্রামে ১০ ই জুন ২০০১ সালে জন্ম গ্রহণ করেন।
তার লেখা গুলো বাস্তব ধর্মীয়। লেখা তার নেশা।
সবচেয়ে বেশি ভালো লাগে কবিতা লিখতে।

* চরম মুর্খ সেই যে শিক্ষা অর্জন করে নিজের মাতৃভাষা শুদ্ধ ভাবে বলতে পারে না ।
* আমার কাছে আনুষ্ঠানিক শিক্ষা পদ্ধতি থেকে অনানুষ্ঠানিক শিক্ষা পদ্ধতি শ্রেষ্ঠ।

ছড়াক্কা
আবুল মিয়া গাঁয়ের সহজ সরল মানুষ আবুল মিয়া নাম
হেঁসে খেলে বলে কথা
মনে তাহার নেই’কো ব্যথা
স্বপ্ন দিয়ে আঁখি ঘেরা
জগৎ মাঝে তিনি সেরা
আবুল মিয়ার স্বপ্ন গুলো কোটি টাকা দাম। দুইটি ছেলে আমার গাঁয়ের দুইটি ছেলে কুটিল তাদের মন
পরচর্চা বসে করে
নিজের দোষটা নাহি ধরে
নিজকে ভাবে চালক অতি
নাহি পড়ুন
ছড়া ও পদ্য | ২ টি মন্তব্য | ৫৯ বার দেখা | ৫৬ শব্দ
জীবন পথে
৪৪/৪২ স্বরবৃত্ত ছন্দ দামী পোষাক পড়লে পরে
দামী নয়তো তবে,
জ্ঞানে গুণে মহৎ হলে
শ্রেষ্ঠ তুমি ভবে। নামী মানুষ ভালো পোষাক
বিবেক বিহীন তারা,
ভালো মন্দের ধার ধারে না
অহংকারী যারা। প্রাচুর্য ওই দিয়ে তবে
ধরার বুকে সুখী,
জ্ঞান বুদ্ধিতে শ্রেষ্ঠ নহে
সেইজন হলো দুখী। চকচক করলে পরে সোনা
নাহি তো’রে হবে,
জ্ঞান বুদ্ধিতে শ্রেষ্ঠ হলে
শ্রেষ্ঠ তারে কবে। সব কিছুতে পড়ুন
কবিতা, ছড়া ও পদ্য | ৪ টি মন্তব্য | ৭১ বার দেখা | ৫৩ শব্দ
পালকি
পালকি
গাঁয়ের পথে হঠাৎ দেখি
পালকি চলে তবে,
এমন সুন্দর পালকি এলো
কেমন করে ভবে। খোকন সোনার ইচ্ছে ছিলো
ঘুরবে পালকি করে
পালকি বাহন হেলে দুলে
গাঁয়ের পথটা ধরে। থেকে থেকে পালকি বাহক
দেখায় কত কিছু,
খোকন সোনার দেখার জন্য
ঘোরে পালকির পিছু। অনেক দিনে দেখি পড়ুন
কবিতা, ছড়া ও পদ্য | ২ টি মন্তব্য | ৫৩ বার দেখা | ৬৩ শব্দ ১টি ছবি
কবি মহল
৪৪/৪১ স্বরবৃত্ত ছন্দ এমন একটি কবি সমাজ
আমরা সবে চাই,
হিংসা বিদ্বেষ কোনো কথা
সেইখানেতে নাই। কবি সমাজ মিলেমিশে
থাকতে হবে সব,
কবি কবি হিংসা বিদ্বেষ
নাহি কলরব। কবি হলো জাতির দর্পণ
কবি শুদ্ধ জন,
ভালো কাজে ভালো ফলটা
কবির সৃষ্টি ক্ষণ। হিংসা বিদ্বেষ ভুলে গিয়ে
চলো জীবন মুখ,
হিংসা বিদ্বেষ জাতি ধ্বংস
পাবে না কো সুখ। জ্ঞানী গুণী কবি যারা
মন পড়ুন
কবিতা, ছড়া ও পদ্য | ২ টি মন্তব্য | ৬১ বার দেখা | ৫১ শব্দ
দুর্দিন
খেটে খাওয়া মানুষ গুলো
মুখে তাদের উড়ছে ধূলো
চুকছে পেটের ঋণে,
রোদ বৃষ্টিতে নিত্য পোড়া
মাইনের জন্য পিছু ঘোরা
নিত্য নতুন দিনে। দিনটা চলে এরূপ করে
শান্তি নাহি আসে ঘরে
খাদ্য চাই যে ছেলে,
সুখের উল্লাস নেই তো কভু
লেগে আছেন দুঃখ তবু
সুখ নাহি তো মেলে। সংসারের হাল ধরার তরে
খেটে খেটে জীবন ভরে
ভালো থাকার জন্য,
কষ্ট পড়ুন
কবিতা, ছড়া ও পদ্য | ৪ টি মন্তব্য | ৭১ বার দেখা | ৭০ শব্দ
স্বজনের প্রতীক্ষা
শৈশবকালে হারিয়ে যায়
অনেক ছেলে মেয়ে,
আসবে কবে আপন ঘরে
স্বজন থাকে চেয়ে। হারিয়ে গেছে সেই জনেরা
আসে না কভু ফিরে,
স্বজন তরে থাকেন শুধু
স্মৃতি এটুকু ঘিরে। তাদের সাথে দেখা করতে
মনে ইচ্ছে করে,
সেই কথাটা মনে হলেই
অঝোর ধারা ঝরে। চলে গেছে যে সবার থেকে
অনেক বেশি দূরে,
তাকে দেখতে পেলে স্বজনে
হৃদয় খানা ভরে। সম্ভব না দেখা পড়ুন
কবিতা, ছড়া ও পদ্য | ২ টি মন্তব্য | ৩৬ বার দেখা | ৫৬ শব্দ
বাড়ি যাবো
বাবা মায়ের কাছে যাবে
রেলগাড়িতে চড়ে,
তাদের জন্য জিনিস নেবো
থলেখানি ভরে। অবহেলায় পড়ে আছেন
তাঁরা অজগাঁয়ে,
সুখে-দুখে তারা থাকেন
তমাল তরু ছায়ে। অযত্ন আর অবহেলা
ভীষণ কষ্ট করে,
সারাজীবন শুধু তারা
থাকে কুড়ে ঘরে। এমন করে বাবা মায়ের
সময় যায় রে চলে,
শুধু দুঃখ শুধু দুঃখ
সুখ আসে কি বলে। এত কষ্ট সহ্য করে
আছেন তারা বেঁচে,
তাদের কাছে যেতে আমার
মনটা পড়ুন
কবিতা, ছড়া ও পদ্য | ২ টি মন্তব্য | ৫৮ বার দেখা | ৪৮ শব্দ
বৃষ্টির শব্দটা গান
বৃষ্টির শব্দটা গান
রিমঝিম রিমঝিম শব্দ মনে
গান গেয়ে যায় প্রতিক্ষণে
সাজে তরু লতা,
মেঘের সাজে নীল আকাশে
জোয়ার আসে ওই বাতাসে
বলি নানা কথা। গুড়গুড় গুড় ওই মেঘের ডাকে
থেকে থেকে ব্যাঙে হাঁকে
জলের কলতানে,
গাছের ডালে পাখির বাসা
মনের ভিতর বহু আশা
উদাস করে গানে। পরিস্কার সব গাছের পাতা
নব সাজে তরুলতা
বেশি লাগে পড়ুন
কবিতা, ছড়া ও পদ্য | ২ টি মন্তব্য | ৬৪ বার দেখা | ৬৫ শব্দ ১টি ছবি
প্রেমের আগুন
জীব প্রেমের তেজ যার মনেতে
অল্প অল্প জ্বলে,
সেজন সফল মানব কূলে
এই না ধরার তলে। জীবে সেবা যেজন করে
মুক্ত মনে মনে,
সদা ভাবে সে সব কথা
নিত্য ক্ষণে ক্ষণে। ভালোবেসে ধরা বুকে
বিভোর থাকে তবে,
ক্যামন করে করবে সেবা
এই না নিখিল ভবে। যুগল বন্দী জীবন মুখে
জীবে সেবায় সুখী,
সেবায় ব্যর্থ সেজন হলো
ধরা বুকে দুখী। জীবে পড়ুন
কবিতা, ছড়া ও পদ্য | ২ টি মন্তব্য | ৫৭ বার দেখা | ৫৬ শব্দ
মানব তুমি
শ্রেষ্ঠ জাতি মানব তুমি
সৃষ্টিকর্তার দান,
যেমন করে রক্ষিও হোক
তুমি তোমার মান। মানের চেয়ে দামী নয়তো
এই অবনীর প্রাণ,
মান না থাকলে যতই করো
সপ্ত হর্ষে গান। দাম দেবে না অবনীর কেউ
মান নাই রে ভাই যার,
কথায় কথায় অবহেলা
করবে সবে তার। সপ্ত রাজার ধনের চেয়ে
বেশি মানের দাম,
থাকুক যত ধন সম্পদ রে
হবে না কো পড়ুন
কবিতা, ছড়া ও পদ্য | ২ টি মন্তব্য | ৭২ বার দেখা | ৫৫ শব্দ
রঙ্গভঙ্গ
আমার বাড়ি কাঁচের চুড়ি
আছে তবে ভূরি ভূরি
হয়ে গেছে কালকে চুরি
তা নিয়েছে কানা বুড়ি। চুরি করা বুড়ির পেশা
রাতে বেলা করে নেশা
অবাধ তাহার মেলামেশা
পর জিনিসের প্রতি রেষা। চুরি করে বাড়ি করে
নিজের মতো পথটি ধরে
নিজের স্বার্থে নিজের তরে
পাপে পাপে গেছে ভরে। গ্রামের ভিতর সেরা বাড়ি
চুরি করে বড় গাড়ি
আছে তাহার চাঁদে পড়ুন
কবিতা, ছড়া ও পদ্য | ২ টি মন্তব্য | ৫৯ বার দেখা | ৬০ শব্দ
মোটা বউ
বউটি তাহার অতি মোটা জায়গা হয় না খাটে
শোবার কালে বিবাদ লাগে নিত্য দিনের রাতে।
ছোট্ট তাদের খাটটি রে ভাই আঁটবে পাতলা মানুষ,
কে যেন রে বাতাস দিয়ে ফুলে রাখে ফানুস। ঘুরে শোবার কালে স্বামী খাটটি থেকে পড়ে
ঘুমের ঘোরে হঠাৎ করে খাটটি চেপে ধরে।
মোটা হওয়া অতি জ্বালা সব পড়ুন
কবিতা, ছড়া ও পদ্য | ৪ টি মন্তব্য | ৬২ বার দেখা | ১২৯ শব্দ
শিক্ষিত হও
শিক্ষিত হও খোকা সোনা
দূর করো সব কালো,
আঁধার ভেদে ছিনে আনে
ধরার বুকে আলো। অজ্ঞতার ওই কালো ছায়া
দূর করিবে তুমি,
মাতৃ সম তোমার খোকা
মাতৃ জনম ভূমি। জাগাবে হে নবীন সমাজ
দেখাবে আলোর মেলা,
যা দেখে সব খেলবে সদা
নতুন আলোর খেলা। পৃথিবীর সব জরাজীর্ণ
কাটাবে যে খোকা,
বৃথা সময় নষ্ট করলে
হবে তুমি বোকা। নতুন নতুন স্বপ্ন পড়ুন
কবিতা, ছড়া ও পদ্য | ৪ টি মন্তব্য | ৮০ বার দেখা | ৫৪ শব্দ
গানের পাখি
ময়না পাখির কাছে আমার
গান শেখারি আশা,
আমার কাছে সুন্দর লাগে
ময়না পাখির ভাষা। ময়না পাখির গানটি ভালো
হৃদয় লাগে ভালো ,
ময়না পাখির পালক গুলো
ভীষণ ভীষণ কালো। ধরার বুকে অনেক পাখি
আছে তবে ভরা,
তাদের মধ্যে ময়না পাখি
বলে শুধু ছড়া। দোয়েল কোয়েল ময়না ফিঙে
আছে নানা পাখি,
তাদের মধ্যে আপন করে
ময়না টাকে রাখি। ঠোঁটের আগায় হলুদ পড়ুন
কবিতা, ছড়া ও পদ্য | ২ টি মন্তব্য | ৬৪ বার দেখা | ৫৩ শব্দ
বিদায়কালে
বিদায়বেলা স্বামীর কোলে
মাথা রাখতে চাই
সুখের সাথী দুখের সাথী
তিনি ছিলেন তাই। স্বামীর কোলে মরণে সুখ
অন্য কোথা নাই,
বিধির কাছে মোর মিনতি
এমন যেন পাই। স্বামীই হলো মাথার তাজ
সব সুখের মূল,
জীবন মুখে জীবনে সব
ধরে দিতেন ভূল। সাত জনমে বাঁধনে বাধা
স্বামীর সাথে মোর,
তাহার সাথে কাটুক গানে
সাত জনমে ভোর। শেষে বিদায় নেবো যেদিন
আমি পৃথিবী পড়ুন
কবিতা, ছড়া ও পদ্য | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৭৪ বার দেখা | ৫০ শব্দ