আলমগীর সরকার লিটন-এর ব্লগ

আলমগীর সরকার লিটন। লেখকের প্রথম কবিতা প্রকাশ হয় ‘দৈনিক যুগান্তর পত্রিকায় ‘ভিজে যাই এই বর্ষায়’ এরপর লেখকের অন্যান্য কবিতা ধারাবাহিকভাবে প্রকাশিত হতে থাকে যেমন- ত্রৈমাসিক সাহিত্য পত্রিকা “মেঘফুল”, ত্রৈমাসিক পত্রিকা ’পতাকা’, মাসিক ম্যাগাজিন, সংকলন ‘জলছাপ মেঘ’। এছাড়া অনলাইন পত্রিকায় লিখে থাকেন। প্রথম কাব্যগ্রন্থ ’’মেঠোপথের ধূলিকণা’’ প্রকাশিত।

পিঠ মন্ত্র নাই
পিঠ মন্ত্র নাই
প্রণয় মনে- পিঠ মন্ত্র নাই
গন্ধ পলাশ মাটি খুঁজতে চাই-
নয়ন বাঁকে সরিষা মাঠ মৌমাছি উড়ে
মেঘ সাদা- রঙিন শুধু বাগিচা
প্রণয় মনে- মিঠ মন্ত্র নাই। নিশি চুরি আকাশ জুড়ে তারা
পেঁচা কালার মনে দলছুট মায়া-
ফর্সার গায়ে চাঁদ পুড়া কায়া
তবুও সোনালি চিল পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | ৬১ বার দেখা | ৬৭ শব্দ ১টি ছবি
মাটি
মাটি
মাঠের পরে ঘর দেখি
সোনালি মুখের হাসি;
নদীর বুকে ঢেউ দেখি
সকাল দুপুর সাঁতার কাটি; কত নামের বাহার শুনি-
আমার নামের হিংসা পুড়ি!
প্রেমের কথায় শুধু আগুন
অনেক দূরে গেলো ফাল্গুন তবুও ঘর দেখি বাড়ি দেখি
আইলপাথারের মুখোমুখি
মেঘলা বাদল ঝরে আস যদি
হাত স্পর্শে ভরে যাবে মাটি। ০৭ ফাল্গুন ১৪২৬, ২০ পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | ১৭৯ বার দেখা | ৪২ শব্দ ১টি ছবি
সামান্য
সামান্য
ছায়া ঘিরা কত ডালিমের বাগান
একটা ডালিম শুধু অন্ত রঙ মহলে ভাবি
আরও খালি কলস দুচোখ ভরে দেখি
মায়া ঘিরা সবই চাই শুধু নিভূতে- শত শত কলম ঝরে যাচ্ছে নিমেষে
রাতদুপুর দাগ রেখে কালির আগুন-
সহজ সরল কিংবা নিঠুরতায় একনিষ্ঠতায়;
অথচ আমার চাওযা এতটুকু পড়ুন
কবিতা | ৩ টি মন্তব্য | ৫২ বার দেখা | ৪৫ শব্দ ১টি ছবি
নির্জন
নির্জন
আকাঙ্খা ছিল কত ঢেউ খেলার নদে
মৃদুল পায়ে ধূলিমাখা উড়া উড়ি রঙিলা ঘরের কোণে;
উঠন বাঁকে ফাল্গুন মেঘের ঘূর্ণিপাকে ঘুরছিল
সুবাসিত গন্ধ ফুর ফুর ডানায় কাকাতুয়া উড়ছিল যত
ঘুমটা পরা লজ্জার মুখে লজ্জাবতীর চোখ
যেনো ঝলসে উঠা কষ্টের রাত জেগে থাকা তারার মতো
চমৎকার পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | ৪৫ বার দেখা | ৭০ শব্দ ১টি ছবি
চির অমলিন
চির অমলিন
উৎসর্গঃ মোঃ সফিকুল হক চৌধুরী তোমার এ চলে যাওয়া মানে
মন মন্দিরে সকাল দুপুর পূজা করা!
এ চলে যাওয়া মানে সমস্ত সৃষ্টির
রঙে রাঙা তোমার এ চলে যাওয়া বলে না
তুমি নতুন দিগন্ত সৃষ্টি করা মহা মানব
শস্য শ্যামল গ্রাম বাংলার সুবাসিত বাতাসের
ঘ্রাণে ভাসবে- নয়নের দৃষ্টি পড়ুন
কবিতা | ৪ টি মন্তব্য | ৫১ বার দেখা | ৫২ শব্দ ১টি ছবি
বসন্ত কবিতা
বসন্ত কবিতা
হাঁটতে- হাঁটতে উপলব্ধি করলাম
সেই বসন্ত হাওয়া দোলে- দোলে গেলো-
কিছুতেই আলিঙ্গন করতে পারলাম না!
দুঃখটা ওখানেই- সেতো এতটুকু বুঝল না-
ফিরেও তাকাল না, উড়া বসন্তের আকাশ;
এখন চলতে- চলতে বসন্ত একটু হাসে উঠে মুচকি হাসের আড়ালে দাঁত ঝিলিক মারে
এই না হলো বসন্ত জুড়ে চোরা বাতাস;
অনূভবে পড়ুন
কবিতা | ৪ টি মন্তব্য | ৩৪৪ বার দেখা | ৭০ শব্দ ১টি ছবি
পদধূলি
পদধূলি
হাজার বছর পথ চলা কি? ভাবে শেষ হলো
পাখির কলরব জানলো না- বুঝল না মায়াময়!
অথচ পদধূলি ঘ্রাণটা এখন আকাশ মুক্ত!
ধোঁয়াটা ঘরবন্দী দক্ষিণা জালানাটাও মাটময়; তবুও সাদা মেঘ শুধু আকাশ জুড়ে ঘনঘটা,
হৃদয়ের বাঁকে ছবিটা রঙিন যেন সোনালি মাঠ। যে দিকে পড়ুন
কবিতা | ৮ টি মন্তব্য | ৪১০ বার দেখা | ৬৯ শব্দ ১টি ছবি
কি হবে
কি হবে
চোখের দেখা- দেখে কি হবে-
মনের দেখা- দেখলে না ভব সংসারে;
শেষ বেলাতে বিবেক কেঁদে, কি হবে-
শিক্ষার আগুন নিভে গেলো দ্বিগুণ-
তবুও ভয় পেলে না শুধু মরণে, চোখের
মায়া অন্ধ দূর- বহুদূর ধর্মগুরু অন্ধসুরু আসল চিনবে কি ভাবে?
যখন আবেগ এসেছে শেষ বেলায়- তখন
চোখের দেখা দেখে পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | ৬০ বার দেখা | ৬৮ শব্দ ১টি ছবি
জেদ
জেদ
রঙবিরল রাস্তার মোড় ছিল বেশ-
সেইদিন জেদ ধরেছিলাম ফুলের গন্ধ নিবো বলে
তা আর হয়ে উঠল না-
এতোটাই ধূলিবালি ছিল বুঝাছিল না । সত্যই বড়ই গাছ হেঁটেই আসল!
তারপর ঢিল ছুড়লাম বড়ই পরল না।
প্রশ্নমালা কিছু বর্ণ রাস্তার মোড়ে কৃষ্ণচূড়া
ছড়িয়ে পড়ুন
কবিতা | ৮ টি মন্তব্য | ৩০৩ বার দেখা | ৬৯ শব্দ ১টি ছবি
পাড়া
পাড়া
পাড়া থেকে যাচ্ছে খশে রঙিন তারা-
কেউ বা লাশ কেউ বা জীবিন্তলাশ বয়ে;
পাড়ার কোন চোখ বিবেক এতটুকু নেই-
একটু আলো জ্বালাবে শ্মাশান ঘাটের পারে। তবুও কত রঙের সাজান পাড়ার দিব্যজ্ঞান
হেসেই যাচ্ছে- তুলে যাচ্ছে নদী সমুদ্র ঢেউ-
এত হলো পাড়ার পড়ুন
কবিতা | ১০ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৬৭ বার দেখা | ৫০ শব্দ ১টি ছবি
ধোয়ার মাঠ ফর্সা হবে
ধোয়ার মাঠ ফর্সা হবে
একটা স্মৃতির প্রসাদ নেই-
সেখানে সাজানো ছিল প্রণয়!
অথচ খরগোশ, কচ্ছপের দৌড় গল্প,
নিঃশেষ হয়েছে- সরকার বাড়ি
ধূলিমাখা রাস্তার মোড়; তবুও বেঁচে
থাকার নিঃশ্বাস আকাশ ভাড়ি-
এতটুকু বাতাসের গন্ধ নেই। কল্পনার কষ্টগুলো লজ্জাহীন
তবুও মেঘ বৃষ্টির অবকাশ চায় বেশ-
অথচ হিংসার উঠান- পড়ুন
কবিতা | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ২৭৫ বার দেখা | ৬৯ শব্দ ১টি ছবি
কবিদ্বয়ের কবিতা
কবিদ্বয়ের কবিতা
কবিদ্বয়ের তিনটি কবিতা,
কবিতারা চঞ্চল মুখরিত সোনালি মাঠ!
কতটুকু ফসল ঘরে উঠবে প্রত্যাশিত কবিদ্বয় চোখ;
তিন কবিতা কে নিয়ে আশা আঙ্খাকার শেষ নেই
যেনো আকাশ চুম্মি, তারা ছোঁয়া গল্প। প্রেরণার ছবি বুকে মুখে বসন্ত ফাল্গুন- পড়ুন
কবিতা | ৮ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৬৩ বার দেখা | ৮৪ শব্দ ১টি ছবি
অমরকাব্য
অমরকাব্য
নিজের দর্পণ চকচকে নয় বলে
বার বার কাচ ভাঙ্গি; রক্তাক্ত দেয়াল
কথা কয়- কিছু প্রশ্ন নেই কারণ স্বার্থপরতা;
গিলে খেয়েছে নিজেকে। তুমি না
থাকলে আজ দর্শন হতো না অথচ কত বড়াই!
দেখছি নয়ন কেঁপে- সবুজ মাঠে ঘাটে-
স্যালুট জানাই তোমার চকচকে পড়ুন
কবিতা | ৬ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৬৯ বার দেখা | ৬০ শব্দ ১টি ছবি
কোথায় ঘুমায়
কোথায় ঘুমায়
সমুদ্রের জল দেখে দেখে
কান্নামাখা চোখ, শেষ করি-
সবুজের প্রেমও নীলা দেখে
রঙিন হই- রাতদুপুর ফুরাই-
আর হরেক সদায় পান করি-
ভবঘরে কি নিঠুর শব্দ বুনায়-
মরে গেলে জানবো না- কোথায়
হবে- ঘর বাড়ির- শেষ ঠিকানা; কে বা দিতে প্রথম মাটির ছোঁয়া
কে বা কবে পড়ুন
কবিতা | ৬ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ২৫৯ বার দেখা | ৭৮ শব্দ ১টি ছবি
মন
মন
জীবনের ভাবনাগুলো যদি ধূলির মতো
এলোমেলো হয়! তাহলে তো সংসার ঘর
অব্যয় সঞ্চয়হীন, সন্দেহ রবেই; কি হবে
কঠি পাথার হয়ে- হও যদি সুগন্ধী সাবান
তাও কিছুদিন সুবাস ছড়বে পাড়ায়-পাড়ায়;
এমন কি ঐ ঘাস বালি বিছানায়- দেখো একটু ভেবে- ভেবে; হয় তো পড়ুন
কবিতা | ৯ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৩৪৬ বার দেখা | ৮৩ শব্দ ১টি ছবি