আবু মকসুদ-এর ব্লগ
হৃদকমল
হৃদকমল আমি হাঁটার সাথে মাটি হাঁটে
হাওয়ায় টের পাই উৎফুল্লতা
পরিবেশ পরিপাশে আত্মীয়তার
আগ্রহ দেখে পুনরায় নিজের দরজায়
ঠোকরাই, ডেকে নিবে আপন আলয়
প্রসারিত দুই হাতের মধ্যে এঁটে যাবে
নির্মল শৈশব, দুরন্ত কৈশোরের পরে
টগবগে যৌবন থমকে গেলে, মধ্য বয়সী
ধাতে আমি লাগাম লাগাই, পরন্ত
বেলায় অন্ধকার ধেয়ে আসছে দেখে
পোষাক পাল্টাই, স্মৃতি পাড়ে আসে
পরিচিত পড়ুন
কবিতা | ৩ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৫৬৯ বার দেখা | ৯৩ শব্দ
ফেইসবুক...
ফেইসবুক তোমাদের কালে তোমরা যখন
খেলেছ পুতুল খেলা
আমরা এখন সেই বয়সেই
ফেইসবুক করি মেলা কাটাই সময় লাইক মেরে মেরে
কমেন্টে দেই ঝাঁকি
ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট ঝুলিয়ে রেখে
ইনবক্সে রঙ মাখি স্ট্যাটাস পাল্টাই মিনিটে মিনিটে
প্রফাইল ছবিও পাল্টাই
ফটোশপের ম্যারপ্যাচ দিয়ে
ফেইসবুকে মারি ফালটাই চিনি না যাদের বন্ধু বানাই
তাদের চড়াই ঘাড়ে
আসল বন্ধু ফেইসবুকে নাই
তারে আর ডাকি নারে ডিজিটাল যুগে পড়ুন
ছড়া ও পদ্য | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৪৭৯ বার দেখা | ৬৮ শব্দ
মোনাজাতের মহিমা
মোনাজাতের মহিমা গণিকা বাড়ির দরবারে দরবেশের ধ্যান
সমৃদ্ধির মোনাজাতে পরিবেশ
জটিল হলে উত্তেজিত জনতার ব্যথা
উপশমে অন্দরমহল থেকে প্রকাশ্য প্রান্তরে
উপস্থিত হয় মেহেরজান। তার আগমনে
উতপ্ত বেলুন ফুটো হয়ে যায়, বিশিষ্ট কয়েক
বিতণ্ডাকারী নিজেদের শিশ্নে গরম
অনুভব করেন। পাততাড়ি গোটাবার মানসে
পিগলিত হাসির ম্যারাথনে গলির
কুকুরের মতো তাড়া খাওয়া তারা দূরত্বে
নিজেদের জলসাকে পরিমিত পর্যায়ে
পৌঁছান। পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৩৪৫ বার দেখা | ৯০ শব্দ
দৃঢ়চেতা
দৃঢ়চেতা যন্ত্রণার রঙে ছেয়ে গেলে বরফকুচি আকাশ
শরীরে কাঁটা দেয় মৃত্যুর বান্ধব
চিরঋণী জলের কন্যা অস্ফুট যন্ত্রণার সাথী
কাঠকুটো খুঁটে খায় শঙ্খের শব। সাড়া দাও শঙ্খিনী হাড়হাভাতে মানুষের দেশে
এখানে শোকাতুর যতসব জন্মান্ধ
থেঁতলে পড়ে থাকে মরা কোকিলের অভিশাপে
পালকে থাকেনা কোন প্রফুল্ল গন্ধ। মানুষ দীর্ঘ জীবন কাটায় সাপের তীক্ষ্ণ শীৎকারে
কোন এক দৃঢ়চেতা পড়ুন
কবিতা | ৩ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৫৯৪ বার দেখা | ৪৮ শব্দ
সমঝোতা স্মারক
সমঝোতা স্মারক পাহাড়ের জুমচাষীদের সাথে সমঝোতায় আসা গেল;
তারা পাহাড়েই থাকবে, গরু চরাবে, ধান বুনবে
পুরুষেরা শম্বর শিকারের প্রস্তুতি নেবে,
তাদের নারীরা সময় সুযোগে বাচ্চা বিয়াবে, তাদের ক্ষেতের ধানে আমরা মাড়া দিতে গেলে
তারা প্রতিবাদী হবে ধনুক আর তীরের বীরত্বে
কাছা বাঁধবে, বাঁশের বর্শায় ক্ষেতের শষা বেঁধে
বুক টান করে দাঁড়াবে, তফাতে পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৩৪৬ বার দেখা | ১০৫ শব্দ
নষ্টালজিক
নষ্টালজিক গাছের আড়ালে একদিন শৈশব লুকিয়েছিল
তারে খুঁজতে খুঁজতে পেরেশান
দুরন্ত সময় এভাবে হারিয়ে গেলে
বিলাপ করতে ইচ্ছে করে কিন্তু বিলাপে
কি ফল লভিবে, এই ভেবে বিলাপ
স্থগিত রেখে সামনে এগোই গাছের আড়ালে শৈশব অবহেলায়
তড়পাতে তড়পাতে
ক্লান্ত হয়ে ঘুমিয়ে পরে আমি তড়িঘড়ি কৈশোর পাড়ি দিয়ে
যৌবনের মদমত্ত জীবন এনজয় করতে থাকি
আহ! এর নামই লাইফ
বিয়ারের পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৪৯৭ বার দেখা | ৯৫ শব্দ
এক বোন পারুল (শেখ হাসিনার জন্মদিনে, শুভেচ্ছা...)
এক বোন পারুল
(শেখ হাসিনার জন্মদিনে, শুভেচ্ছা) খুনির খাবলে একে একে ঝরে পরছে ফুল
গ্রহণের দিনগুলি অতিকায় দীর্ঘ হয় মরমের শরম চাঁদ জানায় অমাবস্যার রাতে
সময় থেমে থাকুক, কারোরই মুখ দেখাবার
যো নেই, জ্যোৎস্না প্লাবিত প্রান্তরে যে ঘোড়া
দুরন্ত দাপটে ছুটে আসতো কতিপয় নেড়ি
তাঁর গতিরোধ করেছে। নিরস্ত্র হত্যার পৈশাচিক
আনন্দ শেষে হানাদার পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৩৬৯ বার দেখা | ১৪০ শব্দ
নতুন শহর-২
নতুন শহর-২ শহরের বাতাসে আমন্ত্রণের চিঠি
পিঠাপিঠি বোনের মতো খুনসুটি
সেরে ক্লান্ত হলে পাখির পালকের
বালিশ ঘুমের পথ দেখায়, ঘুমের রাত অঘুমে কেটে গেলে ভোরের
পাখি হলদে ডানায় আকাশ দেখায়
আলোর আভায় নিজস্ব দিন প্রস্ফুটিত
হতে থাকলে আমি ভাবি যে দিন গেছে তাকে নিয়ে ভাবিত হবো না সামনের
দিগন্তের হাতছানি আত্মস্থ করে দূর
প্রদেশের নাবিকের পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৪১১ বার দেখা | ৬০ শব্দ
অ-শুচির জন্য
অ-শুচির জন্য সুচির পাতে নরমাংস
খাচ্ছে শিশুর ঝোল
সুশ্রী মুখে মাখছে পালিশ
বাঁধছে সুখে চুল সুশ্রী কোথায় অসুর নারী
আঁধার তাহার বুক
নারী শিশুর রক্ত খেতে
পিচাশটা উন্মুখ শান্তি মালা তার গলাতে
ঝুলবে হয়ে ফাঁসি
এই দৃশ্য দেখব বলে
হাতে নিয়ে বাঁশি দাঁড়িয়ে আছি দেখব বলে
মগ রাজ্যের কাকী
কুকুর হয়ে মরে গেছে
মল শরীরে মাখি পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৩৯৫ বার দেখা | ৪০ শব্দ
অধিকার
অধিকার প্রত্যেকেরই বলার অধিকার আছে
থাকতে হয়, নইলে সৃষ্টি বিপন্ন হয়
পর্যবেশিত হয় অরাজক অনাচারে সূর্যের অধিকার আছে অন্ধকার তাড়ানোর, পেলব আলোয়
ভোরের পাখিদের বলা দিবস এসেছে
চাঁদের অধিকার আছে দিক ভুলা নাবিকের
চোখে দারুচিনি দ্বীপ হয়ে ধরা দেয়া
গাছের অধিকার আছে কার্বনের বিষাক্ত গ্যাস
শরীরে ধারণ করে নানামুখী প্রক্রিয়ায়
অক্সিজেন রূপান্তরিত করা
মাছেরও অধিকার পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৬৭০ বার দেখা | ১৩৯ শব্দ
কথা...
কথা কথায় কথার পাহাড় চড়ি
কথায় পাড়ি নদী
কথার সুরে কথারা সব
গায় যে নিরবধি গানের ভাষায় প্রাণের ভাষায়
কথার হাঁটাহাঁটি
চরের লাগি হয় যে জড়ো
কথার পলিমাটি কথার আকাশ গভীর নীলে
কথায় থাকে ছেয়ে
সবুজ বনের হরিণগুলো
কথায় থাকে চেয়ে দূর সাগরে কথার পানি
ছাড়ে কথার ঢেউ
নোনাজলের কষ্ট কথা
বলছে তারে কেউ পাখির মত কিচিরমিচির
হয় যে কথা যত
কথার বনে পড়ুন
সাহিত্য | ১টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ২৯৩ বার দেখা | ১২৫ শব্দ
নতুন শহর-১
নতুন শহর-১
(শেফিল্ডের প্রথম রাত) নতুন শহরে খোলস খোলে গড়াগড়ি খাব
এতোদিন যা পুঁজিপাটা জড়ো করেছিলাম
তা বিলাবো বলেই সঙ্গে এনেছি, ঐ মাটিতে
পোঁতে রাখা নাড়ী সুড়ঙ্গ খুঁড়ে এ মাটিতে
মিতালী পাতাবে, যোগসুত্রতা তৈরি হবে দীর্ঘ দিনের পরে আমিও আমাদের যৌথ
চলা নতুন পথের দিকে ধাবিত হবে এই
ভাবনায় বুকের বল্কলে লিখে রাখি পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৩৭৯ বার দেখা | ৫৭ শব্দ
প্রান্তের আকাশ
প্রান্তের আকাশ পৃথিবীর প্রান্তে একজন মানুষ জন্মালে
আমি জিজ্ঞাসিত হই, ইচ্ছুক উত্তরে
আমার আত্মা মানব জনমের দৃঢ়তায়
মোহনীয়তায়, কমনীয়তায় আপ্লুত হলে
প্রান্তের আকাশ দেখায় উজ্জ্বল তারা । কপর্দকশূন্য অস্তিত্বে অনাদি আত্মা
আবশ্যিক কারণে ভগ্ন মনোরথে
ধাবিত হলে তারার উজ্জ্বলতা
দিক ভ্রষ্ট নাবিকের
কম্পাসের মত আস্থায় ফিরে আসে। আমি ভাবি- একদিন সমুদ্র পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৩১৮ বার দেখা | ১১৯ শব্দ ১টি ছবি
বাংলাদেশের আকাশ...
বাংলাদেশের আকাশ মুজিব মানে জাতির পিতা
মুজিব মানে জাতি
টুঙ্গি পাড়ার শেখের ব্যাটা
বীর বাঙালীর জ্ঞাতি তাঁর নামেতে রক্ত ঝরায়
বুকের বাধন খুলে
তাঁর নামেতেই বীর বাঙালী
উচ্চে মাথা তুলে এ দেশে সে জন্মে ছিল
এদেশ হলো ধন্য
বাংলা নামের দেশটা পেলাম
ঠিক তাঁহারই জন্য নাই হয়ে সে তবুও আছে
পদ্মা নদীর বাঁকে
দেশের মাঝে ছায়া পড়ুন
সাহিত্য | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৩১২ বার দেখা | ৪৪ শব্দ ১টি ছবি
পাশের দেশে ভ্রমণ
পাশের দেশে ভ্রমণ অনির্ধারিত এক কবরের পাশে হেঁটে যেতে যেতে
হটাতই মনে হল
এবেলা যদি ডাক আসে
দয়াপরবশ কেউ কি সঙ্গী হবে
আবার ভাবি দয়া দাক্ষিণ্য কেউ না দেখালে
একা কোথায় যাব, সঠিক ঠিকানায় কি পৌঁছানো হবে
পাড়া প্রতিবেশী হিসাবে
যাদের পাব তাদের সাথে কি সখ্য হবে
তারা কি আমাকে স্বাগত জানাতে প্রস্তুত
নাকি পড়ুন
কবিতা | ১টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ২৬৯ বার দেখা | ১২০ শব্দ