সৌমিত্র চক্রবর্তী-এর ব্লগ
নিজকিয়া ৫৭
নিজকিয়া ৫৭
যতই দিন গড়িয়ে চলেছে, আরও বেশী
মজে যাচ্ছি নদীর গোল্লাছুট গতিময়তায়
নদীও হাঁটে আমিও হাঁটি
হঠাৎ গভীর খাদ হাঁ মুখ মেলে ধরলে
নদীও পড়ে, আমিও পড়ি;
সূর্যকুমারী তোর্সার রিংটিং হাসিতে
সূর্যও কামুক হয়ে ওঠে, বিদীর্ণ পতনে
আমি তখন নির্বিকল্প দর্শক।
গত জন্ম থেকে ভালোবাসা ছুঁয়েছি
চুমু খেয়েছি তোর্সার নম্র পড়ুন
কবিতা | ৪ টি মন্তব্য | ৫২ বার দেখা | ৬২ শব্দ ১টি ছবি
নিজকিয়া ৩৮
নিজকিয়া ৩৮
নখ বেড়ে অকাল সাইক্লোন
জলের তোড়ে ভাসছে ফুলমাথানীয়ার জঙ্গল
সব গাছ ফুল আর ফল
দুহাতে উঁচুতে তুলে
নোয়ার নৌকা খোঁজায় ব্যস্ত।
পায়ের নীচে চোরা জলের স্রোত,
এখানে জলের ভেতরে জল
দাগ কেটে যায় অনবরত;
থৈ জলের ত্বকে ডুবকি মারে
অনাবশ্যক ফেলে আসা আদর ছাড়া
সেক্সের টুকরো ফ্রেম,
একসময়ে নির্বেদ গাছের শাখায়
ঠাঁই পড়ুন
কবিতা | ৫ টি মন্তব্য | ৫৬ বার দেখা | ৪৭ শব্দ ১টি ছবি
নিজকিয়া ৩৯
নিজকিয়া ৩৯
মৌরলা, সরপুঁটি, খলসে মাছেরা ডানা মেলে ডায়নোসর হয়ে গেল,
পুরনো বিবর্ণ দিনগুলো ডায়রীর হলদে পাতায় জন্ডিসে ভুগছে,
ছেলেবেলার শিলকোটাও কিম্বা চানাজোরগরম
প্রাইমারী স্কুলের ভুলে যাওয়া মুখ সেকেন্ড মাস্টারের
ছিঁড়ে যাওয়া পকেট গলে কখন পড়ে গেছে স্মৃতির লালধূলো রাস্তায়। পড়ুন
কবিতা | ৪ টি মন্তব্য | ৭৭ বার দেখা | ৩৪ শব্দ ১টি ছবি
উদ্ভুতুরে
উদ্ভুতুরে
চায়ের কাপে গোঁত্তা খেয়ে
সকাল বেলায় শিববাবু
খালি গলায় গান ধরলেন
ভাত নয় আজ দাও সাবু!
সে কি কথা! গিন্নী বলেন
কেমনতর ভীমরতি!
সাধ করে কেউ সাবু খায়?
এ কেমন ছন্ন মতি!
ওঠো এবার বেলা হলো
বেরিয়ে পড় বাজারে,
পকেট ভরো নতুন নোটে
শ কিম্বা হাজারে।
ইলিশ নাকি শস্তা এখন
খাচ্ছে সবাই পাড়ার পড়ুন
ছড়া ও পদ্য | ৩ টি মন্তব্য | ৮৬ বার দেখা | ২০০ শব্দ ১টি ছবি
দেওয়া নেওয়া
দেওয়া নেওয়া
প্রেমিকারা চুমু দেয় বউ মুখ ঝামটা
ছাত্ররা গ্রামে দেয় কলা মুলো আম টা।
ব্যবসায়ী তোলা দেয় রকবাজ খিস্তি
গরমে বৃষ্টি দেয় চাষীদের স্বস্তি।
অফিসের বস দেয় শাস্তির ধমকি
ভোট এলে নেতা দেয় তারাবাজী ফুলকি।
সরকার বাঁশ দেয় হরঘড়ি বাজেটে
পুজো এলে ছাড় দেয় ফ্লিপকার্ট গ্যাজেটে।
কবিরা কবিতা পড়ুন
ছড়া ও পদ্য | ২ টি মন্তব্য | ১২৭ বার দেখা | ১১৫ শব্দ ১টি ছবি
নিজকিয়া ৩৪
নিজকিয়া ৩৪
যতদিন জীবিত থাকে নেলপালিশের শিশি
লিপস্টিকে লেগে থাকে রং
ততদিন, ঠিক ততদিন
কুচোমাছ খালেবিলে বঁড়শি প্রত্যয়
ডানা মেলে কিচমিচ বসন্তবৌড়ি
নির্ভার ভেসে যায় উড়ুক্কু সাপ
খেজুর গাছের নীচে অলস দুপুর
মেগাসিরিয়ালে বনেদী এয়ারপোর্টের পাশে
লাল চাল মুঠো ভাত আটপৌরে গ্রাম।
তারপর একদিন, একদিন
টান মেরে ভেঙে যায় গুছানো গেরস্থালী
ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়ুন
কবিতা | ৩ টি মন্তব্য | ১৯৭ বার দেখা | ৫৫ শব্দ ১টি ছবি
ছন্নছাড়া
ছন্নছাড়া
আমার ভাগ্য লিখতে গিয়ে ওপরওয়ালা ঘুমিয়ে পড়েছিলেন ভাতঘুমে। আমি তো টুপ করে জন্মে গেলাম, এক গোছা অগোছালো সাদা পাতা নিয়ে। আমার জন্য ধরাবাঁধা ছক কাটা কুষ্ঠি ঠিকুজী কিম্বা জন্মপত্রিকা ইত্যাদি সীমান্তপারের রূপকথা। আমার এলোমেলো পায়ের হাঁটাচলায় স্বাভাবিক চাওয়া পাওয়া ছিটকে পড়ে পড়ুন
কবিতা | ৪ টি মন্তব্য | ১৬৮ বার দেখা | ৭১ শব্দ ১টি ছবি
আয়না
বিস্তৃত ললাট চার বাই চার লেনের অ্যাসফল্টের এক্সপ্রেসওয়ে
হঠাৎই বুকের ভেতরের লুকানো ফাটল বমি করে বাইরে
ভয়ঙ্কর দ্রুত গতির দুই চার ছয় আট কিম্বা আরও বেশী চাকারা
হোঁচট খেয়ে এ ওর ঘাড়ে হুমড়ি খেয়ে থেমে যায়;
ফাটলের ভেতর থেকে বেরিয়ে আসে প্রথম প্রস্তর যুগের বিশাল এক আয়না,
তার ফ্রেম পড়ুন
কবিতা | ৬ টি মন্তব্য | ১৮০ বার দেখা | ৭০ শব্দ
ঈশ্বরের মৃত্যুর আগে
ঈশ্বরের চেহারায় মৃত্যুর ছাপ স্পষ্ট হচ্ছে
কণ্ঠার হাড় উঁচু, গাল চুপসে নেমেছে
সমুদ্র গভীরে অসহায়
ঈশ্বরের চুল আধপাকা আধকাঁচা
বাহুবলী হাতের কাঠামো
কখন যেন নিঃশব্দে সরু হয়ে এসেছে
পাঁজরের প্রত্যেক রিড
মাংস চামড়া ভেদ করে
পরিমণ্ডলে প্রকাশিত
ঈশ্বরের শেষ সময়ের কাউন্টডাউন চলছে
শেষ বারের মত নিভে যাওয়ার আগে
হুংকার ছেড়েছেন তিনি। পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | ১০৩ বার দেখা | ৪০ শব্দ
বাজনদার
বাজনদার
ওই যে কাঁধের বাঁকে
দু ঢাকের বোঝা, এ হাত
ও হাত আরো মাস দুই
সপরিবারে চিন্তাহীন
থাকার রসদ। আমার
খাবার উদ্বৃত্ত হয় দুবেলাই।
আহ! এবার ঢাকের বোল
বড় মোহময় ছিল। বাকি
দশমাস কন্দমূল, জঙ্গুলে
ইঁদুর, বুনো আলু এত দম
কিসে পাস ঢাকি? পড়ুন
কবিতা | ৬ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১৮৪ বার দেখা | ৪৬ শব্দ ১টি ছবি
রাস্তা
রাস্তা
নুড়িগুলো সরে গেলে
পড়ে থাকে লালরঙা
রাস্তার কঙ্কাল:
দুপাশের রোয়া ধান
আল বিভাজনের
সাম্প্রদায়িক মনোভাবে
অবসন্ন, ক্লান্ত:
একখান রুটি চেয়ে
চাষাভুষো ছেলে
ছুটে যায় ক্রমাগত
দেহবেচা রমনী ছায়ায়:
বাপ তার মরেছে
ঋণের দায়ে গতসনে:
কোনো ঘাস কুটিপাটি
অমল হাসিতে
কোনো ঘাস খড় হয়ে
অকাল স্বর্গবাসী:
রাস্তাটা ছুটে গেছে
শহরের কানা গলি খোঁজে
ছড়ানো অঢেল নাকি
ফুটপাতে আলোর পেছনে। পড়ুন
কবিতা | ৩ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ২৯৬ বার দেখা | ৪০ শব্দ ১টি ছবি
সউমিত্তিরের ছড়া-জবানবন্দী
সউমিত্তিরের ছড়া-জবানবন্দী
দেখতে পেলুম বক্সে গিয়ে
চিন্তা সবার হ্যাকার নিয়ে।
ওয়াল নাকি চুরি যাবে
আমার নামে পর্ণো হবে।
বিটকেল ওই বদমাশেরা
উড়িয়ে দেবে আমার সেরা।
বক্সে ঢুকে গালি দেবে
সউমিত্তির কুনাম হবে।
ভাই ও বহিন বন্ধুলোগ
ভাববে আমি খারাপ লোগ।
কিন্তু আমিই জানব না
কার কাজ তাই বুঝবো না।
এমন হলে হো সাবধান
খবর কর পড়ুন
ছড়া ও পদ্য | ৩ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৩০০ বার দেখা | ৫৪ শব্দ ১টি ছবি
রেকলেস রেলপথ
রেকলেস রেলপথ
ট্র্যাকের দুই লাইনে কৃষ্ণ রাধা ভাব
ঐশ্বরিক প্রেমের পাঠ নিয়ে স্নাতকোত্তর
মনের হরেকরকম্বা ভুলভুলাইয়া
তাদের গলিপথ শাখা প্রশাখা
উত্তল অবতলে অনায়াস চারণ
টরেটক্কা ছাড়াই স্লিপারের দল
এ ওর কথা চালাচালি করে
স্বভাবসুলভ পিএনপিসির টকঝালমিষ্টি তে;
গম্ভীরা অমাবস্যায় ট্রেন চলে গেলে
উত্তাপে ছাড়খার হাত তবুও
কিছুতেই পৌঁছে দিতে পারেনা
এ ওর নরম পড়ুন
কবিতা | ৩ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ২৬২ বার দেখা | ৮৪ শব্দ ১টি ছবি
বৈশাখী রাঢ় দুপুরে
বৈশাখী রাঢ় দুপুরে
এখানেই একটু ছায়া আছে
আয়, এখানেই দাঁড়াই! এপাশে সাতটা মোষ
সাত কালো টিলা
মুঠি মুঠি সবুজে লাঞ্চ সারছে,
একধারে নিঃসঙ্গ রিকশা
মালিকানা বিহীন ঝিমোয়। এদিকে একদিস্তে গাছ ওদিকে ডজন
মধ্যিখানে রোদ্দুর মেখে
হেসে লুটোপুটি খেয়ে ছুটেছে
কৃষ্ণকলি অ্যাসফল্টের রাস্তা। আসানসোলে এখনই হুহুম
চিৎকারে বইছে লু,
হাত মুখ বাঁধা টুকটাক
বাইক পদব্রজী এখন
ধোপদুরস্ত আরব পড়ুন
কবিতা | ৬ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ২৮৯ বার দেখা | ৮৯ শব্দ ১টি ছবি
ছোঁয়াছুয়ির গপ্পো
ছোঁয়াছুয়ির গপ্পো
ছোঁয়ার আগে আকাশকুসুম
ছুঁয়ে ফেল্লেই চিত্তির
ছোঁয়াছুয়ির গল্পে সমান
মোল্লা কিম্বা মিত্তির। এদিক ছুঁয়ে ওদিক ছুঁয়ে
টুকরো আলোর বুন্দি
কথার চাষে কথার পাশে
একটু ছোঁয়ার ফন্দি। কাক শালিকে সকাল ছুঁলে
রাতবিরেতে যক্ষ
না ছুঁলে অমাবস্যা
ছুঁলেই শুক্লপক্ষ। সবুজ মাঠের আঙুল ছুঁয়ে
আকাশ দেখে মাটি
ছুঁলেই কোথাও রে রে করে
প্রাগৈতিহাসিক চাঁটি। কোথাও ছোঁয়ার বাছবিচারে
কাঁটাতারের বাধা
তবুও ছোঁয়া পড়ুন
কবিতা | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ১৪২ বার দেখা | ৪৪ শব্দ ১টি ছবি