চারু মান্নান-এর ব্লগ
সাদা কাগজে জল রং
বর কনের মেলা ঘাস ফুলে শিশির দানা
মুক্তার স্ফটিক হাসে
ভোরের আলো যেই ছুঁয়েছে
ঝিকিমিকি রঙ খেলে। শিউলী ঝরে শিউলী তলায়
শিশিরে ভেজা ঘাস
ফুল কুড়াতে ভুতু সোনার
শীতে কাঁপে ঠোঁট। ফুলের ডালা শিউলী ফুলে
বাহারি রং ধরে
শিউলী ফুলে পুতুল বিয়ে
বরকনের মেলা বসে। বাঘা ফড়িং ডোবার ধারে শালিক জটলা
কিচির মিচির ডাকে
হাসের ছানা ডুব সাঁতারে
শীতল জলে পড়ুন
কবিতা | | ৬ টি মন্তব্য | ৪৯ বার দেখা | ১৪৭ শব্দ
মা, তুমি নেই বলে
তারার মেলায় মা মাগো, আকাশ নীলে কোন সে তারা?
আঁধার রাতে তারা ভরা; এদিক ওদিক খুঁজে মরি
কোন সে তারা মায়ায় টানে? ঐ তারা কি তুমি মা?
ঐ যে পাশে ঐ তারটা; আবার ঐ সে টিও কি তুমি মা?
তোমায় খুঁজতে সব তারা যে তুমিই মা। সন্ধ্যা তারা হারিয়ে গেল
সাতটি তারার পড়ুন
কবিতা | | ৯ টি মন্তব্য | ৪৫ বার দেখা | ১৮৯ শব্দ
মায়ের বুকে লুকানো পালকের ছামিয়ানা
মায়ের বুকে লুকানো পালকের ছামিয়ানা অগ্রাহয়ণে থিতিয়ে আসে বানের জল
একেবারে শুকিয়ে যায় না; উচু মাঠের ক্ষেতগুলো জল শুকায়
তবুও ধান ক্ষেতে খড়ের নীচে; লালচে অথচ টলটলে রঙা জল
ক্ষেত জুড়ে মাঠের পর মাঠ; সেই জলে না না ধরনের শেওলা
পোকা মাকড়ের ডিমে ভরা; ব্যঙচি দল বেঁধে ঘুড়ে
এমনি নিড়ালা পড়ুন
কবিতা | | ৬ টি মন্তব্য | ৫০ বার দেখা | ১৪৬ শব্দ
প্রতিদ্বন্দ্বী
প্রতিদ্বন্দ্বী তুমি আমার প্রতিদ্বন্দ্বী তুমি আমার প্রতিদ্বন্দ্বী
প্রতিযোগীও ছিলে বটে; কি সে তা বুঝতে সময় গেল টেনে?
অবশেষ তা অভিমানে মিটে গেল। অভিমানেই যদি চুপসে যাবে
বিড়ালের গলায় ঘন্টা বাজে লাজে; শুধু শুধু বাহানা এমনি
এমন দ্বন্দ্ব দাঁড় করালে প্রতিযোগীর বেশে। তুমি না কি ছিলে প্রেমের প্রতিযোগী?
প্রেম দ্বন্দ্বে ভালোবাসার প্রতিদ্বন্দ্বী বনে গেলে; পড়ুন
কবিতা | | ২ টি মন্তব্য | ৩১ বার দেখা | ১৫০ শব্দ
দুঃখবোধ
দুঃখবোধ দুঃখবোধে বিষম লাগে
হৃদয় পোড়া গন্ধ ছুটে
দিনের আলো আঁধার লাগে
চোখে শুধু সর্ষেফুল নাচে সব কিছুতেই বিস্বাদ যেন
তৃঞ্চা নামের পানি পানে
যন্ত্রণা ঠেলে দ্রোহ রাগের
আকাশ নীল নীল হারা যে। এমনি করে চাঁপা ব্যথা
বেঁচে রয় বুক পাঁজরে
দিনে দিনে দিন ফুরালে
দুঃখবোধ ঠিকই বাঁচে। ক্ষণ কাল ক্ষণকাল এ যাপিত কাল
পরম আত্মার অনন্তকাল; ক্ষণকালে জীবন পড়ুন
কবিতা | | ২ টি মন্তব্য | ৪৯ বার দেখা | ১০৯ শব্দ
হেমন্তের সোনা রোদ
হেমন্তের সোনা রোদ সন্ধ্যাবতী গাঁয়ে হেমন্তের সোনা রোদ ঝরে
মাঠে মাঠে পাকা ধান সোনা রোদে রাঙা।
কৃষকের তামাটে গায়ে সোনা রোদের প্রীতি
মাথল মাথায় সাদা দাঁতে মুচকি হাসির উঁকি। কাদা জলে ক্ষেত নেতিয়ে পড়া খড়ে পাকা ধানের শিষ
সোনা রোদে যেন নকশি কাঁথার সোনালী ফোঁড়। থরে থরে পরিপাটি সোনা রোদে ঝিকি পড়ুন
কবিতা | | ১টি মন্তব্য | ৪২ বার দেখা | ৫৩ শব্দ
মালবিকা
মালবিকা তুমিতো অন্তধানে
আগ্নীয় গিরির গ্রীবায়
লাভায় মিশে ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র স্বর্ণকণা
মৃত্তিকা দহনে
আমৃত্যু মালবিকা। চন্দ্র গ্রহণে লুকিয়ে ছিলে
আকাশ নীলে
কত কথা তার? বাতাস বয়ে আনে
কুস্তুরী ঘ্রাণ
মৃগনাভির হরিনী ছুটে বেড়ায়
গভীর বনে
মৃত্তিকার সুধাসনে। তোমার নিষিদ্ধ প্রেম
মৃগনাভির হরিণী বোনা
আঁধারে জোনাকি মহিমায় বাঁচে। ১৪২৪/৪ অগ্রাহায়ণ/হেমন্তকাল পড়ুন
কবিতা | | ৪ টি মন্তব্য | ৩৬ বার দেখা | ৩৬ শব্দ
মুক্তির দোটানা
মুক্তির দোটানা মুক্তির দোটানা
সব সময় মন পুড়ে
মনের দ্রোহে ছেঁড়া হৃদয় ছোপ ছোপ রক্তের ক্ষত
মন আর হৃদয় পড়শী যে
নন্দন রুপে রয়।
মন পোড়া আবার
হৃদয় পোড়া তার একই চিতা
শরীর দ্রোহে বিদ্রোহ দুজন দুদিক ছন্নছাড়া বিদিশা
শীতে ঝরে পড়া নাঙা গাছ যে
ফিরবে বলে বাঁচে। এ কি তব সহবাস?
প্রাণের লয় স্বাধিতে পড়ুন
কবিতা | | ৫ টি মন্তব্য | ৬৩ বার দেখা | ১১০ শব্দ
মনে পড়ে তোমায়
মনে পড়ে তোমায় মনে পড়ে তোমায়
হেমন্তের সাঁঝ বিছানো মায়া; সন্ধ্যাবতীর গাঁয়ে
বড়ই মায়া স্বপ্ন ভরা। সজনে পাতা ঝরা বধুয়ার উঠান
একঝাঁক চড়ুয়ের কিচিরমিচির; লাউ মাচায় টুনির বাসা
বধুয়ার ঘোমটা হেমন্ত অভিমান।
আধা পাকা ধান ক্ষেত
ডাহুক ডাহুকী ঘর বাঁধে; পাঁতি হাঁসের ঝাঁক
কাদা জলে খাবার খুঁজে। হেমন্ত কুয়াশা আইল পথে নিশানা মিলায়
শিশির পড়ুন
কবিতা | | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৯২ বার দেখা | ৫৫ শব্দ
জীবনে এলে মনের দর্প
জীবনে এলে মনের দর্প ____আত্মায় মন মন আর আত্মায়
ব্যবচ্ছেদই প্রাণীর জীবন; তা হলে মন আর আত্মা একই?
একই সুতায় গাঁথা; ঘুরে ফিরে দিন রাতের মতো
আত্মার সান্নিধ্যে মনের আবর্তন। আত্মা সে তো সদা চরাচর
মর্তলোকে আর অনন্তলোকে; আবার অনন্তলোকে শত বাঁধা
মৃত্যু ইতি কথায় তাই প্রতীয়মান; বিনাশ হয় না কি?
প্রানীর পড়ুন
কবিতা | | ৩ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৬০ বার দেখা | ১৫৫ শব্দ
আকাশটা ছিল তোমার
আকাশটা ছিল তোমার ____আকাশটা ছিল তোমার একদিন, আকাশটা ছিল তোমার
আর পথটা ছিল উম্মুক্ত, নন্দন অহমিকার
সেই পথেই দু’জন
আঙ্গিক মৃদ লয়; ভাবনার আকড় জুড়ে ছিল
স্বপ্ন ডানার প্রজাপতি। আকাশটা ছিল যে তোমারই
মেঘ গুলো ছন্নছাড়া, অভিমানি মেঘবালিকা
শতরঞ্জে রাঙা হাওয়া
কদাচিত অভিমানে; বৃষ্টি বাহানায় ঝরে
পথের গায়ে ধুলো ধুয়ে যায়। ____স্বপ্নযাপন লুট হয়ে যায় চাইবার অভিমানে,
আমলকি পড়ুন
কবিতা | | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৭৮ বার দেখা | ১২১ শব্দ
একটু ভালোবাসায় ফেরা
একটু ভালোবাসায় ফেরা ___নদীর মত চলবো একা
আমি আর বাসবো না ভাল কখনও
নদীর মত চলবো একা,
হাসবো কাঁদবো শুধু একা; থাকবো একা জোয়ার ভাটায়
স্বপ্ন মেঘের ঘনঘটায় যতই ডাকুক মেঘ বালিকা
দেখবো না আর পিছন ফিরে। আকাশ নীলের উদাস হাওয়া
মাখবো গায়ে আমি একা,
চাঁদের আলো যতই ডাকুক রাতে আমায়
থাকবো আমি আঁধার পড়ুন
কবিতা | | ৬ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৬৭ বার দেখা | ১০৭৭ শব্দ
হেমন্তের বাতায়ন
হেমন্তের বাতায়ন হেমন্তের বাতায়ন
খুলেছে দ্বার! আকাশে মেঘ যেন ফুরালো
রোদের রসনাই আকাশময়; যেন চুপসে আছে
নীলের মহাশূণ্য বলয়।
আলোর কিন্নরি ষ্ফুরণ
বাতাসের সাথে করে খেলা
বানভাসি পথ ঘাট জেগেছে; পলির আইল পথে
সবুজ ঘাস সবে উঠছে গজে। আইল পথের কাদায় ছাপ এঁকে রয়
ডাহুক ডাহুকির বিবসনা মুর্চ্ছনায়
ক্ষেতের ধানের ঝোপে বাঁধবে বাসা; ললনার পড়ুন
কবিতা | | ২ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৬৩ বার দেখা | ৭০ শব্দ
ক্ষুধা
ক্ষুধা ____ক্ষুধা
ক্ষুধা দিকে দিকে,
পৃথিবীর এ প্রান্ত হতে ও প্রান্ত ব্যপ্তি।
ক্ষুধার জন্য ছুটে ছুটে-
পৃথিবী বাস যোগ্য হয়ে উঠার
প্রত্যয় ছিল বলেই;
আজ পৃথিবী মানুষের বাস যোগ্য। তবুও ক্ষুধা মিটে কই?
ক্ষুধার জন্য লড়াই,
ক্ষুধার জন্য মৃত্যু,
ক্ষুধার জন্য দেশান্তর,
ক্ষুধার জন্য প্রজন্ম লড়াই, _____অধিকারের বুলি
মুখে মুখে, দেশে দেশে, মানুষের মুক্তির অধিকারের পড়ুন
কবিতা | | ৩ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৬৯ বার দেখা | ২২৯ শব্দ
কার্নিশে ঝুলে ছিল আকাশ
কার্নিশে ঝুলে ছিল আকাশ ___কার্নিশে ঝুলে ছিল আকাশ
কার্নিশে ঝুলে ছিল আকাশ
তোমার অভিমান দেখবে বলে!
বেলা যখন পড়ে এলো-;
তন্দ্রামাখা মুখ নিয়ে দাঁড়ালে বারান্দায়
বিরহের সুত্র খুঁজতে দেরি হয়নি তার!
এলোকেশে বালিশের গা ঘেঁসা দাগ
তোমার টোল পরা গালে
এখনো জ্বল জ্বলে; টিপটা
একটু উপরে উঠে গেছে এই যা’
এ যে নিত্য পড়ুন
কবিতা | | ৪ টি মন্তব্য | মন্তব্য বন্ধ রাখা আছে | ৯৯ বার দেখা | ২৭৫ শব্দ